×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৮ মে ২০২১ ই-পেপার

কাশ্মীরে পুলিশকে লক্ষ্য করে এলোপাথাড়ি গুলি, হত ২, জঙ্গি হামলার ভিডিয়ো প্রকাশ্যে

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৬:০৬
গুলিবৃষ্টি করে ঘটনাস্থল থেকে চম্পট দিচ্ছে ওই জঙ্গি।

গুলিবৃষ্টি করে ঘটনাস্থল থেকে চম্পট দিচ্ছে ওই জঙ্গি।
ছবি: ভিডিয়ো গ্র্যাব।

কাশ্মীরে এ বার দিনের আলোয় পুলিশের উপর হামলা। ভরা বাজারে ঢুকে এলোপাথাড়ি গুলিবর্ষণ জঙ্গিদের। গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু হল উপত্যকার ২ পুলিশকর্মীর। গোটা ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ওই এলাকায়। জঙ্গিদের খোঁজে ব্যাপক তল্লাশি অভিযান শুরু হয়েছে এলাকায়।

শুক্রবার সকালে শ্রীনগরের বাঘত চক এলাকায় একটি বাজার সংলগ্ন এলাকায় এই ঘটনা ঘটেছে। এলাকার সিসিটিভি ক্যামেরায় যে দৃশ্য ধরা পড়েছে, তাতে দেখা যায়, স্বয়ংক্রিয় বন্দুক হাতে একটি দোকানের সামনে ছুটে আসছে এক যুবক। দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা এক ব্যক্তিকে লক্ষ্য করে পর পর বেশ কয়েক বার গুলি ছোড়ে সে। ওই ব্যক্তি মাটিতে লুটিয়ে পড়তেই ঘটনাস্থল থেকে সরে পড়ে হামলাকারী ওই যুবক।

আচমকা বন্দুক হাতে ওই যুবককে দেখে স্থানীয় দোকানদার এবং ব্যবসায়ীরা আতঙ্কে দৌড়োদৌড়ি শুরু করে দেন। চোখের সামনে গুলি চলতে দেখে প্রাণ হাতে নিয়ে পালাতেও দেখা যায় কয়েক জনকে। সেই অবস্থাতেই সিসিটিভির দিকে মুখ করেই বেরিয়ে যায় হামলাকারী। মুখে কোনও কাপড় ঢাকা না থাকায়, তার চেহারাও স্পষ্ট দেখা গিয়েছে।

Advertisement

উপত্যকার পুলিশ জানিয়েছে, গুরুতর জখম অবস্থায় ওই দুই পুলিশকর্মীকে তড়িঘড়ি শ্রী মহারাজা হরি সিংহ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসা চলাকালীনই মৃত্যু হয় তাঁদের।

নিহতরা হলেন মহম্মদ ইউসুফ এবং সোহেল আহমেদ। ইউসুফ কুপওয়ারার জুরহামার বাসিন্দা। সোহেলের বাড়ি লোংরিপোরা আইশমুকামে।

সিসিটিভি ফুটেজ দেখে এই মুহূর্তে ওই জঙ্গিকে শনাক্ত করার চেষ্টা করছে উপত্যকার পুলিশ। পাক জঙ্গি সংগঠন লস্কর-ই-তৈবার উপত্যকার শাখা ‘দ্য রেজিস্ট্যান্ট ফ্রন্ট’ এই হামলার পিছনে রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। যে জঙ্গিকে সিসিটিভি ক্যামেরায় দেখা গিয়েছে, সে ছাড়াও এ দিন আরও কয়েক জন জঙ্গি হামলাস্থলে ছিল বলে জানা গিয়েছে। তাদের খোঁজে এলাকায় তল্লাশি অভিযান শুরু হয়েছে।

Advertisement