×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৮ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

অর্থনীতির ভাল চাইলে বিরুদ্ধ স্বরকেও গুরুত্ব দিতে হবে, পরামর্শ রাজনের

সংবাদ সংস্থা
লন্ডন২৪ অক্টোবর ২০১৯ ১৩:৩৬
রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রাক্তন গভর্নর রঘুরাম রাজন। -ফাইল ছবি।

রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রাক্তন গভর্নর রঘুরাম রাজন। -ফাইল ছবি।

বিরুদ্ধ স্বরকে দাবিয়ে রাখলে চলবে না। অর্থনীতির ভাল চাইলে সমালোচনা শুনতে হবে। না শুনলে ভুল শুধরে নিয়ে অর্থনীতিকে সঠিক পথে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যাবে না। কী ভাবে তীব্র বেকারত্ব ও অর্থনৈতিক মন্দার গভীর সমস্যা থেকে ভারত বেরিয়ে আসতে পারে তার উপায় বাতলাতে গিয়ে এই পরামর্শ দিলেন রিজার্ভ ব্যাঙ্কের (আরবিআই) প্রাক্তন গভর্নর বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ রঘুরাম রাজন

কিংস কলেজ লন্ডনের ইন্ডিয়া টাউন হলের এক অনুষ্ঠানে বুধবার রাজন বলেন, ‘‘যে সমস্যার কথা খুব জোর দিয়ে বলতে চাই, সেটা হল, বিরুদ্ধ স্বর, সমালোচনাকে দাবিয়ে রাখলে চলবে না। শুধুই প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় (পিএমও) সব সিদ্ধান্ত নিলে, ভাল হবে না। সেটা করলে প্রয়োজনের সময় ভুল শুধরে নেওয়া যাবে না। কোনও সরকার যদি কাউকে সমালোচনা করতে বাধা দেয়, তা হলে সেটা সরকারের পক্ষে খারাপ ব্যাপার। প্রশংসা শুনতে কার না ভাল লাগে! কিন্তু ‘যিশুর পর আপনিই এতটা মহৎ’ শুধুই এটা শুনে চলতে চাইলে তা সরকারের পক্ষে ভাল হয় না। ভুল শুধরে নেওয়ার জন্য যে সচেতনতার প্রয়োজন, সমালোচনা না শুনতে চাইলে তা গড়ে ওঠে না।’’

তিনি যখন রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর ছিলেন, তখন যে বেসরকারি ব্যাঙ্ক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরামর্শ শুনে চলার চেষ্টা করতেন, সে কথাও মনে করিয়ে দিয়েছেন রাজন।

Advertisement

আরও পড়ুন- বিক্রিবাটা জমেনি গয়নার বাজারে, কাহিল চাহিদার ধাক্কা ধনতেরাসে​

আরও পড়ুন- অর্থনীতি চাঙ্গা করতে ফের রেপো রেট কমাল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক​

আরবিআই-এর প্রাক্তন গভর্নর বলেছেন, ‘‘আমি আশা করব, ভুল শুধরে নেওয়ার জন্য পরামর্শগুলি সরকার মন দিয়ে শুনবে। সেগুলি কার্যকর করার চেষ্টা করবে। ভারতে বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞদের অভাব নেই। সরকারকে (কেন্দ্র) তাঁদের দেওয়া পরামর্শ শুনতে হবে। সেই সব পরামর্শ মেনে চলতে হবে। তার জন্য ভারতের গণতন্ত্রকেও আরও শক্তিশালী হয়ে উঠতে হবে। যাতে সরকারি নীতির সমালোচনাও গুরুত্ব পায়।’’

গত তিনটি ত্রৈমাসিকে ভারতীয় অর্থনীতির পিছিয়ে পড়া নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন রাজন। এও স্বীকার করেছেন, এই অর্থনৈতিক মন্দা শুধুই ভারতের সমস্যা নয়। এটা এখন বিশ্বেরও সমস্যা।

তবে রাজনের মতে, ‘‘ভারতে বিনিয়োগের পরিমাণ যে ভাবে কমেছে, তা যথেষ্টই উদ্বেগজনক।’’



Tags:
Raghuram Rajan RBI Narendra Modi King's College Londonরঘুরাম রাজননরেন্দ্র মোদী

Advertisement