• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ডিগ্রি হাতাতে ৮ জন ‘ডামি’কে পরীক্ষায় বসালেন নেত্রী! টিভি চ্যানেলের অভিযানে পর্দাফাঁস

Tamanna Nusrat
তামান্না নুসরত। —ফাইল চিত্র

Advertisement

ডিগ্রি চাই সাংসদ নেত্রীর। তা বলে এ ভাবে! তাঁর হয়ে পরীক্ষা দিতে নিজের মতো দেখতে ৮ জনকে ভাড়া করেছিলেন। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না। একটি টিভি চ্যানেলের ক্যামেরায় ধরা পড়ে গেলেন বাংলাদেশেআওয়ামি লিগ নেত্রী তামান্না নুসরত। শুধু তাই নয়, ভাড়াটে পরীক্ষার্থীদের ঘিরে ছিলেন নেত্রীর মাসলম্যানরা। টিভি চ্যানেলে কেলেঙ্কারির পর্দাফাঁস হওয়ার পরই নুসরতকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করেছে কর্তৃপক্ষ। তবে নুসরতের প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

গত বছরই নরসিংদি থেকে বাংলাদেশের শাসক দল আওয়ামি লিগের সাংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন নুসরত। তার পর ‘বাংলাদেশ মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়’-এ স্নাতক স্তরে ভর্তি হন। সম্প্রতি সেই স্নাতক স্তরের পরীক্ষা ছিল। পরীক্ষার সময় তাঁর মতো দেখতে ৮ জনকে নুসরত ভাড়া করেন বলে অভিযোগ। তাঁরা পরীক্ষার হলে গিয়ে পরীক্ষাও দিতে শুরু করেন।

কেলেঙ্কারির আঁচ পেয়ে বাংলাদেশেরই একটি টিভি চ্যানেল পরীক্ষার হলে ঢুকে এক পরীক্ষার্থীর সঙ্গে কথোপকথন শুরু করে। তাতেই উঠে আসে এই বিস্ফোরক তথ্য। সেই ভিডিয়ো বাংলাদেশে ব্যাপক ভাবে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। এর পরেই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ নুসরতকে বহিষ্কার করেন।

আরও পড়ুন: অভিজিতের কৃতিত্বে গর্বিত ভারত, নোবেলজয়ীর সঙ্গে সাক্ষাতের পর বললেন মোদী

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান এম এ মান্নান বলেন, ‘‘উনি অপরাধ করেছেন। সেই কারণেই আমরা তাঁকে বহিষ্কার করেছি।  অপরাধ অপরাধই। আমরা ওঁর রেজিস্ট্রেশন বাতিল করেছি। উনি আর কখনও আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারবেন না।’’

বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অধ্যাপক আবার কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধেও আঁতাঁতের অভিযোগ তুলেছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই অধ্যাপক বলেন, ‘‘ডামি পরীক্ষার্থীরা যখন পরীক্ষা দিচ্ছিলেন, তখন তাঁদের ঘিরে রেখেছিল নেত্রীর মাসলম্যানরা। সবাই সব কিছু জানত। কিন্তু তিনি যেহেতু প্রভাবশালী পরিবারের, তাই কেউ কিছু বলেননি, সবাই চুপ করে ছিলেন।’’

আরও পড়ুন: সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ন্ত্রণে ১৫ জানুয়ারির মধ্যেই বিধি চূড়ান্ত করবে কেন্দ্র

নুসরতের স্বামী লোকমান হাসান ছিলেন নরসিংদির মেয়র। ২০১১ সালে আততায়ীদের গুলিতে তিনি নিহত হওয়ার পর রাজনীতিতে আসেন নুসরত।গত বছর বাংলাদেশের সাধারণ নির্বাচনে সংরক্ষিত আসনে দাঁড়িয়ে সাংসদ হন। কিন্তু ডিগ্রি হাতাতে গিয়ে আপাতত বেকায়দায়। পর্যবেক্ষকদের অনেকেরই আশঙ্কা, এই ঘটনা নুসরতের রাজনৈতিক কেরিয়ারে ছাপ তো ফেলবেই, এমনকি, কেরিয়ারে দাঁড়ি পড়েও যেতে পারে।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন