দেখে মনে হয়েছিল মুসলমান। তাই রাস্তা দিয়ে যাওয়া কিছু লোককে গাড়ি চাপা দিয়ে খুন করার চেষ্টা করলেন এক ব্যক্তি! ওই ঘটনায় আহত একই পরিবারের তিন ব্যক্তি-সহ মোট আট জন। প্রাথমিক ভাবে পুলিশ এই ঘটনাকে সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষের ঘটনা বলেই মনে করছে। অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে সানিভেল পুলিশ।

গত মঙ্গলবার ঘটনাটি ঘটেছে সান ফ্রান্সিসকোয়। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তের নাম ইসাইয়া পিপলস। ওই দিন সান ফ্রান্সিকোয় রাস্তা দিয়ে এক দল লোক হেঁটে যাচ্ছিলেন। সেই দলে একটি পরিবারও ছিল। পুলিশ জানিয়েছে, পিপলস ওই ভিড়ের মধ্যে দিয়ে গাড়ি চালিয়ে দেন। এক পুলিশ আধিকারিক জানিয়েছেন, তদন্তে এটা স্পষ্ট যে ইচ্ছাকৃত ভাবেই এবং খুনের উদ্দেশ্য নিয়েই পিপলস ভিড়ের মধ্যে গাড়ি ঢুকিয়ে দিয়েছিলেন।

তবে যে লোকগুলোকে চাপা দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন পিপলস, তাঁরা আদৌ মুসলিম কি না, বা তাঁরা কোন দেশের নাগরিক সে বিষয়ে স্পষ্ট কিছু বলেনি পুলিশ।

আরও পড়ুন: ৩১ হাজারে বাইক! নিয়ে এল শাওমি

আরও পড়ুন: শ্রীলঙ্কায় আইএস জঙ্গিদের গোপন ডেরায় হানা সেনার, ছয় শিশু-সহ হত ১৫

বছর চৌত্রিশের পিপপলস ক্যালিফোর্নিয়ার বাসিন্দা। শনিবার আদালতে তোলা হলে পিপলসের আইনজীবী দাবি করেন, তাঁর মক্কেল মানসিক রোগে ভুগছেন। এই মানসিক অস্থিরতার কারণেই এমন কাণ্ড ঘটিয়ে ফেলেছেন। পিপলসের মানসিক চিকিত্সার প্রয়োজন বলে জানান তিনি।

ছেলে যে এমন কাণ্ড ঘটিয়েছে সেটা বিশ্বাসই করতে পারছেন না পিপলসের মা লিভেল পিপলস। তিনি বলেন, পিপলস মার্কিন সেনাবাহিনীতে কাজ করত। ইরাকে ছিল। সেখান থেকে ফেরার পর থেকেই পোস্ট ট্রমাটিক স্ট্রেস ডিসঅর্ডারে ভুগছে। তবে পিপলসের মা এবং আইনজীবী যা-ই দাবি করুন না কেন, বিষয়টিকে খুব একটা হালকা ভাবে নেওয়া হচ্ছে না বলেই জানিয়েছেন সানিভেল পুলিশের এক আধিকারিক।