• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কটাক্ষ শুনতে শুনতে বিরক্ত শিশু আত্মহত্যা করতে চায়, ভিডিয়ো শেয়ার করলেন মা!

Australian Child Quadon
কোয়াডন। ছবি: ফেসবুক থেকে নেওয়া।

সন্তানকে নিয়ে হৃদয় বিদারক ভিডিয়ো পোস্ট করলেন এক অস্ট্রেলিয় মহিলা। তাঁর ছেলের উচ্চতার জন্য সহপাঠীরা ক্রমাগত উত্ত্যক্ত করে। আর তার জন্য ওই শিশুটি স্কুল যেতে চায় না। এমনকি কাঁদতে কাঁদতে শিশুটি বলছে, সে আত্মহত্যা করেতে চায়। এই ঘটনা রেকর্ড করে মঙ্গলবার পোস্ট করেন ওই মহিলা।

ইয়ারাকা বেলেস নামে ওই মহিলা ফেসবুকে ভিডিয়োটি পোস্ট করে লিখেছেন, “উত্ত্যক্ত করার প্রভাব। আমি জানি না কী করব।” ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে, একটি বাচ্চা গাড়ির মধ্যে বসে ক্রমাগত কেঁদে যাচ্ছে। চোখের জল মুছতে মুছতে সে বলছে, আত্মহত্যা করবে। এমনকি, একবার তাকে নিজের গলায় আঁচড়াতেও দেখা যায়। সেই সঙ্গে বলতে থাকে, “আমাকে একটা দড়ি দাও, আমি আত্মহত্যা করব।”

ন’ বছরের বাচ্চাটির নাম কোয়াডন। শারীরিক সমস্যার কারণে তার উচ্চতা স্বাভাবিক নয়। এদিন তার মা তাকে স্কুল থেকে আনতে গিয়েছিলেন। সেই সময় দেখতে পান, ছেলেকে উত্ত্যক্ত করছে কয়েকটি বাচ্চা। তা সহ্য করতে না পেরে কোয়াডন কাঁদতে আরম্ভ করে। এর পর কোয়াডনের মা তাকে গাড়িতে বসিয়ে ভিডিয়োটি রেকর্ড করেন।

আরও পড়ুন: শিবরাত্রি উপলক্ষে সমুদ্র তটে তৈরি হল সারি সারি শিবমূর্তি

ভিডিয়োতে কোয়াডনের মা বলছেন, কী ভাবে দিনের পর দিন তাঁর ছেলেকে স্কুলে অন্য বাচ্চাদের দ্বারা নির্যাতনের শিকার হতে হচ্ছে। তার ফলে মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছে সে। ছেলের এই কষ্টের কথা বলতে বলতে তাঁর গলাও কান্নায় বুজে আসে। অন্য অভিভাবকদের বার বার আবেদন করেন, যাতে এভাবে কাউকে নির্যাতন না করা হয়, বাচ্চাদের যেন তাঁরা শেখান। এভাবে নির্যাতন করা কখনই ঠিক নয়।

আরও পড়ুন: '৩১ সেকেন্ডে' মাটিতে মিশে যাচ্ছে প্রাণীর দেহ, ভিডিয়ো দেখলে বদলে যেতে পারে জীবনদর্শন!

ভিডিয়োটি প্রকাশ্যে আসতেই প্রচুর মানুষ এমন উত্ত্যক্ত করার সমালোচনা করেছেন। তবে এটাই প্রথম নয়, এর আগেও তিনি তাঁর ফেসবুক অ্যাকাউন্টে ছেলের উপর নির্যাতনের বিরুদ্ধে পোস্ট করেছেন।

এই ভিডিয়োটি পোস্ট হওয়ার পর নেটাগরিকদের কাছ থেকে প্রচুর সমর্থন ও সমবেদনা পেতে শুরু করেছে কোয়াডন। মঙ্গলবার পোস্ট হওয়া ভিডিয়োটি এখনও পর্যন্ত এক কোটি ৮০ লাখের বেশি দেখা হয়েছে।

দেখুন সেই ভিডিয়ো:

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন