• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

অপারেশন বাগদাদির ভিডিয়ো প্রকাশ পেন্টাগনের, আংশিক ক্লিপিংস ঘিরে প্রশ্ন

Baghdadi
বাগদাদির ডেরায় অভিযানের ভিডিয়ো থেকে নেওয়া ছবি।

Advertisement

কী ভাবে অভিযান চালিয়েছিল মার্কিন সেনা? শীর্ষ আইএস জঙ্গি আবু বকর আল বাগদাদির ডেরা কেমন ছিল, ধ্বংস করে দেওয়ার পরেই বা কেমন চেহারা নিয়েছে— অপারেশন বাগদাদির এই গোটা পর্বের ভিডিয়ো প্রকাশ করল পেন্টাগন। মার্কিন সেনা কী ভাবে ঘিরে ফেলেছিল বাগদাদির ডেরা এবং কী ভাবে আকাশ পথে হামলা চালানো হয়েছিল, তার মোটামুটি একটা ছবি ধরা পড়েছে ওই ভিডিয়োতে। সেই সঙ্গে বেশ কিছু ছবিও প্রকাশ করা হয়েছে মার্কিন প্রশাসনের তরফে।

ভিডিয়োটি প্রকাশ করা হয়েছে মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগের তরফ থেকে। ওই ভিডিয়ো প্রকাশ করেন ইউএস সেন্ট্রাল কমান্ডের কমান্ডার কেনেথ ম্যাকেঞ্জি। সাংবাদিক বৈঠকে বাগদাদির ডেরায় অভিযানের ভিডিয়ো দেখানোর পরে সংবাদ মাধ্যমের হাতে তুলে দেন ওই ভিডিয়ো ও ছবি। সাদাকালো ওই ভিডিয়োতে বাগদাদির ডেরায় অভিযানের সময়কার ছবি ধরা পড়েছে।

আকাশ থেকে তোলা ভিডিয়োটিতে দেখা যাচ্ছে, উঁচু পাচিলে ঘেরা একটি কম্পাউন্ড। সেটির দিকে ধীরে ধীরে সন্তর্পণে এগিয়ে যাচ্ছে মার্কিন সেনা। ওই ডেরার আশেপাশে থাকা বেশ কিছু মানুষকেও দেখা যাচ্ছে। ভিতরেও দু’-একজনের গতিবিধি লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ম্যাকেঞ্জির দাবি, মার্কিন বিমান লক্ষ্য করে গুলি চালানোর চেষ্টা হয়েছিল। এর কিছুক্ষণ পরেই দেখা যায়, উপর থেকে ওই বাড়িটির উপর একের পর এক বোমা আছড়ে পড়ছে। তার পরেই বাড়িটি পুরো কালো ধোঁয়ায় ঢেকে যায়। একটা সময় আগুন জ্বলতেও দেখা যাচ্ছে ওই বাড়িটিতে।

ভিডিয়োর পরে অংশে দেখা যাচ্ছে, ওই ডেরা তথা উচু পাঁচিল ঘেরা বাড়িটি পুরো ধুলিসাৎ হয়ে গিয়েছে। কোথাও সামান্য নির্মাণও অবশিষ্ট নেই। ফাঁকা জায়গায় কয়েকটি গর্তের মতো। কয়েক জনের আনাগোনাও লক্ষ্য করা যাচ্ছে ওই ধ্বংসস্তূপে।

 

আরও পডু়ন: উপত্যকায় উন্নয়নের নবযুগ শুরু হবে, বল্লভভাইয়ের জন্মদিনেও কাশ্মীর বার্তা মোদীর

ম্যাকেঞ্জির দাবি, অভিযানের সময় বাগদাদি একটি সুড়ঙ্গে ঢুকে পড়েন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প দাবি করেছিলেন, কুকুরের মতো মরেছে বাগদাদি। তার সঙ্গে তিন ছেলেকে নিয়ে বোমায় নিজেকে উড়িয়ে দেয় সে। কিন্তু ম্যাকেঞ্জির দাবি, তিন নয়, দুই ছেলেকে নিয়ে আত্মঘাতী বোমা ফাটায় বাগদাদি। মৃত্যুর আগে বাগদাদি চিৎকার-আর্তনাদ করেছিলেন বলে যে বর্ণনা দিয়েছিলেন ট্রাম্প, পরিস্থিতি যে অতটা নাটকীয় ছিল না, সেই ইঙ্গিতও মিলেছে ম্যাকেঞ্জির কথায়।

কিন্তু ভিডিয়োতে এই অংশের কোনও ছবি বা প্রমাণ নেই। উপর থেকে বোমা পড়ার পরেই ধ্বংসস্তূপ। মাঝের সময়ের কোনও ছবি বা ভিডিয়ো নেই। অথবা প্রকাশ করা হয়নি। তাই অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন, পুরো ভিডিয়ো কেন প্রকাশ করা গেল না। আবার যদি মার্কিন সেনার হাতে না থাকে, তাহলে অভিযানের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়েও প্রশ্ন উঠতে পারে।

তাহলে কী ভাবে প্রমাণিত হল বাগদাদি মৃত? ম্যাকেঞ্জির দাবি, ডিএনএ পরীক্ষায়। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার বাগদাদির দেহের অংশ থেকে নমুনা নিয়ে মিলিয়ে দেখা হয় ২০০৪ সালে ইরাকের জেলে বন্দি থাকা বাগদাদির ডিএনএ-র সঙ্গে। তাতেই ডিএনএ মিলে গিয়েছে বলে দাবি ম্যাকেঞ্জির।

ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে বাগদাদির ডেরা। পেন্টাগনের দেওয়া ছবি। 

আরও পড়ুন: বাহালপুর পৌঁছল পাঁচ শ্রমিকের কফিনবন্দি দেহ, কান্নায় ভেঙে পড়ল গ্রাম, আজ শেষকৃত্য

খবর রটেছিল মার্কিন সেনার হাতে দু’জন আটক হয়েছিল অভিযানে। কিন্তু সেই খবর নিয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলতে চাননি ম্যাকেঞ্জি। তিনি শুধু জানান, বাগদাদি ছাড়াও আরও ছ’জনের মৃত্যু হয়েছে। উদ্ধার হয়েছে বেশ কিছু ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী ও নথিপত্র।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন