সকাল থেকে রাত পর্যন্ত সময় মাপার যন্ত্র তো ঘরে রাখতেই হবে। কিন্তু সেই ঘড়ি দিয়েই যদি সাজিয়ে ফেলা যায় নিজের বাড়িটি। ভেবে দেখুন তো কেমন লাগবে!

 

ঘড়ি কেনার আগে

• দেখে নিতে হবে ঘড়ির আকার ঘরের আকারের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ কি না! বিশেষত যে দেওয়ালে ঘড়ি রাখছেন, সেই দেওয়ালের আকারের সঙ্গে মানানসই হওয়া দরকার।

• ঘড়ির রংও গুরুত্বপূর্ণ। যেমন সাদা দেওয়ালের উপরে কাঠের ঘড়ি বা কাঠের দেওয়ালে মেটাল ফ্রেমের ঘড়ি বেশ আকর্ষক দেখায়।

• ঘরের আসবাবের সঙ্গেও ঘড়ির গড়ন ও গঠন মানিয়ে রাখবেন।

 

কতশত ঘড়ি

• ফোটো ফ্রেমের ঘড়ি। ফ্রেমে পারিবারিক ছবি রাখতে পারেন। সকাল ছ’টা থেকে শুরু করে প্রত্যেক ঘণ্টায় ছুঁয়ে যাবে আপনার একটি করে ছবি।

• রাখতে পারেন মিরর ওয়াল ক্লক। এতে আলোর প্রতিফলনে ঘরে আলোও ছড়িয়ে পড়বে।

• প্রজাপতি থেকে শুরু করে গাছ, পেঁচা, বাড়ি ইত্যাদি বিভিন্ন আকারের কাঠের ঘড়িও পেয়ে যেতে পারেন। 

• ঘরে রং আনতে চাইলে কালার স্কিমের ঘড়ি রাখুন। লাল, সবুজ, নীল ইত্যাদি বিভিন্ন প্যাস্টেল শেডের ওয়াল ক্লক ভাল লাগে ঘরে।

• বড় ঘরে গ্র্যান্ডফাদার ক্লক বা পেন্ডুলাম ক্লকও রাখতে পারেন। সময় কাটবে নস্ট্যালজিয়ায়।

এ ছাড়াও থাকছে ডেস্ক ক্লক, ডিজ়াইনার, থ্রিডি ওয়াল ক্লক। বাড়ি অনুসারে বেছে নিতে পারেন। ঘরের একটা দেওয়াল বিভিন্ন রকমের ঘড়ি দিয়ে সাজিয়ে ফেলতে পারেন। তবে খেয়াল রাখবেন, ঘড়িগুলির মধ্যে যেন সামঞ্জস্য থাকে।