যতই বাহারি তেল বাজারে পসার জমাক না কেন, মা-ঠাকুমাদের মতে এখনও কিন্তু চুলের যত্নে নারকেল তেলই সেরা। তাঁদের মতে, এক ঢাল সুন্দর ঘন কালো চুল পেতে এর কোনও বিকল্প নেই। কথাটি যে এক্কেবারে খাঁটি, তা আর নতুন করে প্রমাণ করার প্রয়োজন নেই। তবে নারকেল তেলের কেরামতি কি শুধু চুলের যত্নেই সীমাবদ্ধ? না। গবেষকেরা জানাচ্ছেন, চুলের মতোই ত্বকের রোজকার যত্নতেও নারকেল তেল রীতিমতো সিদ্ধহস্ত। এমনকি বাজারি ক্রিম-লোশনের চেয়ে মুখের জেল্লার পাল্লা ভারী করতেও নারকেল তেলের জুড়ি মেলা ভার! মানে যত্ন হোক বা রূপটান, এক কথায় বলতে গেলে নারকেল তেলের কাছে রয়েছে সব রকম সমস্যার সহজ সমাধান। চলুন তবে, এই অতি পরিচিত নারকেল তেলের স্বল্প পরিচিত দিকগুলির সঙ্গে খানিক আলাপ জমানো যাক।

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

রূপচর্চার নানা পর্যায়ে

নারকেল তেলে রয়েছে ভরপুর অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট। তাই শুদ্ধ নারকেল তেল নিয়মিত মুখে মাখলে বয়স ধরে রাখা কোনও ব্যাপারই নয়!

আন্ডারআই ক্রিমের পিছনে গুচ্ছের পয়সা খরচ না করে ভরসা রাখুন নারকেল তেলে। নাইট ক্রিমের বদলেও অনায়াসে নারকেল তেল ব্যবহার করতে পারেন।

রোদে পোড়া ত্বক সারিয়ে তুলতেও নারকেল তেল দারুণ উপযোগী। ত্বকের উপরে স্রেফ কয়েক ফোঁটা শুদ্ধ নারকেল তেল লাগিয়ে হালকা মাসাজ করুন কয়েক দিন। তা ছাড়া ত্বক ফাটার সমস্যা থাকলেও এই টোটকা ব্যবহার করে দেখতে পারেন। উপকার পাবেন ম্যাজিকের মতো।

মেকআপ শেষে হাইলাইটিংয়ের জন্য দুই চিকবোনের উপর দিয়ে আঙুলের সাহায্যে আলতো করে নারকেল তেল ছুঁইয়ে দিন। রাসায়নিক হাইলাইটারের চেয়ে ত্বকের জন্য এই টোটকা ঢের ভাল।

নারকেল তেল মেকআপ রিমুভার হিসেবেও দারুণ কাজ করে। মেকআপ তুলতে একটি কটন বল নারকেল তেলে ডুবিয়ে ভাল করে মুখে ঘষে মুখ পরিষ্কার করে নিন। শেষে ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে ময়শ্চারাইজ়ার লাগাতে ভুলবেন না।

দাঁতের হলদে ভাব কাটাতেও নারকেল তেলই হয়ে উঠতে পারে আপনার তুরুপের তাস। নারকেল তেল দাঁতে ঘষে নিয়ে পরিষ্কার করলে দেখবেন, হলদে ছোপ দূর হয়েছে।

স্ট্রেচ মার্কসের দাগ হালকা করতে নিয়মিত তার উপরে নারকেল তেল লাগান। খুব সহজেই দাগ হালকা হবে। 

চুলের যত্নের শেষ কথা 

আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু যখন নারকেল তেল তখন চুলের যত্নে তা কী ভাবে ব্যবহার করবেন, তা নিয়ে দু’চার কথা না বললে কি আর হয়? চুলের ডগা ফাটার সমস্যা হোক কিংবা রোজকার ধুলোবালি, দূষণের পাল্লায় পড়ে চুলের রুক্ষতা বেড়ে যাওয়ার মতো ঝক্কি— দুই সমস্যার সমাধান সূত্র একই। আঙুলের ডগায় নারকেল তেল নিয়ে পুরো চুলের দৈর্ঘ্যে মাসাজ করুন। তবে তেলতেলে ভাব এড়াতে লক্ষ্য রাখতে হবে তেল যেন স্ক্যাল্পে না লেগে থাকে। ঘণ্টাখানেক রেখে শ্যাম্পু এবং কন্ডিশনিং করে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত দু’দিন নিয়ম করে এমনটা করতে পারলে চুল হবে মসৃণ। সঙ্গে বাড়তি পাওনা হিসেবে চুলের প্রাকৃতিক শাইন তো থাকছেই!