• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

পুতুল নেবে গো, পুতুল...

রাজকন্যা, রানি, কেউ আবার নতুন বৌ... কত পুতুল নিয়ে কেটেছে ছোটবেলা। তেমনই নানা রকমের পুতুল তৈরি করতে পারেন বাড়িতেও

doll making

গোল গোল চোখ, হাতদুটো দু’দিকে ছড়িয়ে দাঁড়িয়ে থাকে ওরা। দেখলেই ইচ্ছে করে দৌড়ে গিয়ে কোলে তুলে নিই। এমনই সুন্দর গোলগাল পুতুলগুলো। কিন্তু তাদের এখন পাবেন কোথায়? একটু চেষ্টা করলে বাড়িতে বসে তৈরি করে নিতে পারেন এমন সুন্দর পুতুল। 

 

মনের মতো পুতুলগুলো

• বাড়ির ফেলনা সব কিছুই জমাতে হবে। ফেলা যাবে না কিছুই। পুরনো জামা, কাপড়ের টুকরো,  শ্যাম্পুর বোতল, প্লাস্টিকের কন্টেনার, পুরনো কানের দুল, হার... সব জমিয়ে রাখতে হবে একটা বাক্সে। আর চাই বেশ খানিকটা তুলো, কয়েকটা সুতো, সুচ আর উলের গোলা। বাড়িতে তুলো মজুত না থাকলে পুরনো কাপড়ের কুচিও ব্যবহার করতে পারেন।

• পুতুলের বডি অনেক ভাবে তৈরি করা যায়। কাপড়ের বডি বানিয়ে তার মধ্যে তুলো ভরে দিন। আবার শিশি-বোতল দিয়েও তৈরি করা যায়। এ রকম পুতুল বানান পরিচালক শতরূপা সান্যাল। তিনি বললেন, “আমি বোতল দিয়ে বানাই। একদম হালকা বোতল না নিয়ে একটু ভারী বোতল নেওয়ার চেষ্টা করি। তা হলে পুতুলগুলো ভাল দাঁড়াতে পারবে।’’ মোটা কাপড় দিয়ে দু’বার পুরো বোতলটাকে জড়িয়ে পিছন দিকে সেলাই করে দিন। তার পর বোতলের ঢাকনাটা কাপড়ে জড়িয়ে নিন ভাল করে। তার উপরেই কালো সুতো দিয়ে সেলাই করে চোখ-নাক ফুটিয়ে তুলুন।

• এ বার পুতুলের চুল তৈরি করার পালা। মেঘবরণ চুল করতে উলও লাগবে খানিকটা। মেম পুতুল না কি দেশি পুতুল বানাবেন, সেই হিসেবে কালো, সোনালি বা খয়েরি উল কিনে নিন খানিকটা। পুতুলের মাথার মাঝে পেনসিল দিয়ে সিঁথি এঁকে নিন। সিঁথির দু’পাশে পেন দিয়ে একটা লাইন বরাবর ডট দিন। এ বার স্কেলে মেপে ২, ৩ বা ৪ সেন্টিমিটার পর্যন্ত দাগ দিয়ে নিন উলে। পুতুলের চুল যতটা লম্বা করতে চান, সেই অনুযায়ী দৈর্ঘ্য রাখুন। তার পর ওই ডট বরাবর সুচে ভরে উল ঢুকিয়ে দিন। তার পর চুল কাঁচি দিয়ে কেটে সমান করে নিন। উলের বদলে সাটিনের সুতো ব্যবহার করতে পারেন। চুল ঘন দেখাবে।

• এ বার মুখটা যে রঙের কাপড় দিয়ে তৈরি করেছেন, সেই রঙের কাপড় দিয়ে হাত গড়ে নিন। তার মধ্যে তুলো ভরে সেলাই করে রাখুন। এ বার পুতুলের শরীরের সঙ্গে সেলাই করে জুড়ে দিলেই হল।

• পুতুলকে শাড়ি পরাতে চাইলে কাপড় মাপমতো কেটে পরিয়ে দিতে পারেন। না হলে কাপড় কেটে জামা, স্কার্ট, ব্লাউজ... পুতুলের নানা ধরনের পোশাক বানাতেই পারেন। শতরূপার কথায়, “আমি বাড়ির সব ফেলে দেওয়া জিনিসই কাজে লাগাই। রেস্তরাঁ থেকে যে প্লাস্টিক কনটেনারে খাবার দেয়, সেগুলো পোশাকের নীচে ঢুকিয়ে দিলে বেশ ঘের তৈরি হয়ে যায়। সঙ্গে পুরনো কানের দুল, গলার হার থাকলে তা-ও ব্যবহার করতে পারেন পুতুল সাজানোর জন্য।

মন খারাপের দিনে এই মিষ্টি মুখ দেখলেই মন জুড়িয়ে যায়। মুড খারাপ থাকলেও সঙ্গী করতে পারেন হাতে বানানো পুতুলদেরই।

পুতুল সৌজন্য: শতরূপা সান্যাল

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন