Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০১ অক্টোবর ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

গরমে চিকেন-মাটন নয়, চাহিদা পান্তার

মেনুতে এক দফা চোখ বোলানোর ফাঁকে বেসরকারি সংস্থার কর্মী ওই যুবকের প্রশ্ন, ‘‘পান্তা হবে?’’ হোটেলের কর্মী মাথা নাড়তেই অর্ডার এল, ‘‘তা হলে পান

অর্পিতা মজুমদার
দুর্গাপুর ০৬ মে ২০১৬ ১৩:১৭
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

কেতাদুরস্ত পোশাকের যুবক এসে বসতেই দ্রুত পায়ে সামনে হাজির হয়েছিলেন হোটেলের কর্মী।

—কী খাবেন স্যার। পোলাও-চিকেন রেজালা..

মেনুতে এক দফা চোখ বোলানোর ফাঁকে বেসরকারি সংস্থার কর্মী ওই যুবকের প্রশ্ন, ‘‘পান্তা হবে?’’ হোটেলের কর্মী মাথা নাড়তেই অর্ডার এল, ‘‘তা হলে পান্তা, পোস্ত আর কাঁচা লঙ্কা।’’

Advertisement

গরম বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দুর্গাপুরের বিভিন্ন হোটেলেই ব্যবস্থা হয়েছে পান্তার। গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই শিল্পাঞ্চল-সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় তাপমাত্রা ঘোরাফেরা করছে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে। ঘড়ির কাঁটায় বেলা ১০টা বাজতে না বাজতেই শুরু হয়ে যাচ্ছে গরম হওয়ার দাপট। এই পরিস্থিতিতে খিদে মেটাতে শহরবাসী ভরসা রাখছেন পান্তাতেই। খদ্দেরদের চাহিদা মতো কোর্ট চত্বর, জিটি রোড লাগোয়া বিভিন্ন ধাবায় পান্তা ছাড়া অন্য খাবার রাখা হচ্ছে কম।

শহরের অফিস পাড়া বলে পরিচিত সিটি সেন্টার, বিধাননগরের মতো এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা গেল, বিভিন্ন সংস্থার কর্মীরা দুপুর হলেই পান্তার টানে ধাবা আর হোটলগুলিতে ভিড় জমাচ্ছেন। চাহিদা মেটাতে তৈরি হোটেল মালিকরাও। রাখছেন পোস্তর বড়া, মাছের টক বা ঝাল, আমের চাটনি। কাঁচা লঙ্কার বদলে অনেকে আবার বেছে নিচ্ছেন শুকনো লঙ্কা। বেনাচিতির এক হোটেল মালিক জানান, দু’সপ্তাহ ধরে মেনুতে পান্তা রাখছেন তাঁরা। শ্রীরাম সৌ নামে এক হোটেল মালিক তো বলেই ফেললেন, ‘‘পান্তা না রাখলে ব্যবসা লাঠে উঠে যেত এই সময়ে। পান্তাই এখন লক্ষ্মী।’’

শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ঝাঁ চকচকে রেস্তোরাঁর মেনুতেও চিকেন-তন্দুরির জায়গা নিয়েছে পান্তা। সঙ্গে ইলিশ মাছ ভাজা, পোস্তর বড়া, কলমি শাক, মাছের মাথা দিয়ে চচ্চড়ি, রসুনের চাটনির মতো নানা পদ রাখা হচ্ছে বলে জানান সিটি সেন্টারের ক্ষুদিরাম সরণির একটি হোটেল কর্তৃপক্ষ। অনেকে আবার ঘরে মা-ঠাকুমার বানানো পান্তার স্বাদটা ফের আরও এক বার চেখে দেখতে চাইছেন। একটি সংস্থার কর্মী সুমন্ত সরকার সিটি সেন্টারের একটি রেস্তোরাঁ থেকে বেরনোর মুখে বলে গেলেন, ‘‘ভাবতে পারিনি বাড়ির মতো পান্তা এখানে পাওয়া যাবে।’’ এক খদ্দের আবার জানান, পান্তা-আমানিতে পেট যেমন ঠান্ডা থাকে, রাতে ঘুমও ভাল হয়। একটি হোটেলের ম্যানেজার শান্তনু পাল বলেন, ‘‘গরমে মশলাদার চিকেন, মাটন না-পসন্দ। বদলে অনেকেই চাইছেন পান্তা আর ইলিশ মাছ ভাজা।’’

রসনা তৃপ্তির পাশাপাশি খাদ্যগুণের দিক দিয়েও পান্তার কদর রয়েছে বলে পুষ্টিবিদেরা জানাচ্ছেন। তাঁদেরই এক জনের কথায়, ‘‘সাধারণত ১০০ গ্রাম পান্তায় (১২ ঘণ্টা পর) ৭৩.৯১ মিলিগ্রাম আয়রন থাকে, ৩০৩ মিলিগ্রাম সোডিয়াম, ৮৩৯ মিলিগ্রাম পটাশিয়াম ও ৮৫০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম থাকে।’’ গরমে তাই স্বাস্থ্যরক্ষায় পান্তাতেই ভরসা রাখছেন অনেকে।

আরও পড়ুন: আম-মৌরলা

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement