বর্ষার জন্য বিশেষ জুতোর চাহিদা বরাবর থাকলেও জল-কাদার হাত থেকে সেই জুতোও পা-কে বাঁচাতে পারে না সব সময়। জল-কাদা সহ্য করার মতো জুতো হয় ঠিকই, কিন্তু পা ডোবানো জল জমলে সেই জুতোর ক্ষতি না হলেও পায়ে জল লাগে। বর্ষার জলে ব্যাকটিরিয়ারও অভাব নেই। সঙ্গে মোজা পরে থাকলে মোজা ভিজে যাওয়ার হাত থেকেও বর্ষায় বিশেষ জুতোগুলো আমাদের বাঁচাতে পারে না।

তবে এই সব অসুবিধাকে কব্জা করতে বর্ষায় দেদার বিকোচ্ছে গামবুটস। কলেজ হোক বা বন্ধুমহলে আড্ডা, অফিস হোক বা কিটি পার্টি, গামবুটস এই বর্ষায় ফ্যাশনে ‘ইন’। জুতো তৈরির বিভিন্ন সংস্থা বাজারের এই চাহিদার কথা ভেবে নানা ধরনের গামবুটস এনেছেন বাজারে।

এক সময় ধারণা ছিল, গামবুটস মানেই আউট অব দ্য ফ্যাশন কেবরলই রাবারের তৈরি একরঙা জুতো। কিন্তু জলে নষ্ট হবে না, পা বাঁচাবে আবার যে কোনও পার্টি ওয়্যার ও ফর্মালসের সঙ্গেও সমান তালে পরা যাবে এমন নানা নকশাদার গামবুটসই এ বার বাজারে এসেছে। কোন ধরনের গামবুটস হতে পারে আপনার পছন্দের?

আরও পড়ুন: পিঠের মেদ ক্রমেই বেড়ে চলেছে? এই সব মানলে ছিপছিপে চেহারা পাবেন সহজেই

গর্ভাবস্থায় রাতে গাঢ় ঘুম? সম্ভব, যদি এ সব মানেন

পোলকা ডটস গামবুটে হয়ে উঠুন ফ্যাশনেবল। 

প্রিন্টেড: তারকাখচিত বা প্রজাপতি উড়ে বেড়ানো জুতো পছন্দ হলে কিনতেই পারেন স্টার প্রিন্ট গামবুটস। কিংবা যদি পছন্দ করেন ফুল ছাপের নকশা, তা হলে আপনার শু ওয়ার্ড্রোবে ঢুকে পরতেই পারে ফ্লোরাল প্রিন্টেড গামবুটস। এ বার বর্ষায় অন্যতম সেরা চাহিদা এই ধরনের ছাপা গামবুটস।

পোলকা ডট: খাটো পোশাকের সঙ্গে খুবই খাপ খায় এমন পোলকা ছাপ গামবুটস। ববি প্রিন্টের পোশাকের সঙ্গেও খাপ খাইয়ে এমন পোলকা ডটস গামবুট হতে পারে আপনার ফ্যাশনের অন্যতম পরিচয়।

কালোর উপর নকশা: শহরের নানা বাজার ঘুরলে টের পাবেন, কালো গামবুটের চাহিদা আজও তুঙ্গে। যাঁরা খুব একটা রংচঙে জুতো পরতে পছন্দ করেন না, তাঁদের জন্য রয়েছে কালো জুতোর মধ্যে নানা রুচিশীল নানা নকশার বাহার। বর্ষার দিনে অফিস ওয়্যার হিসেবে এগুলো বাছতে পারেন সহজেই।