×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৫ জুলাই ২০২১ ই-পেপার

লাইফস্টাইল

লু বইছে এখনই, এই গরমে সুস্থ থাকতে খান এই সব শরবত

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ০৯ মে ২০১৯ ১৫:৫১
জাঁকিয়ে বসেছেগরম।সূর্যের চোখরাঙানিতে প্রাণ যায় যায় অবস্থা।ঘেমেনেয়ে শরীর থেকে লবণ বেরিয়ে যাওয়ার সময়। তাই অল্পেই ডিহাইড্রেশনের শিকার হতে হয় গ্রীষ্মে। এই গরমে মশলা জাতীয় খাবার বাদ দিয়ে পানীয় খাবারের উপরেই নির্ভর করতে হয়বেশির ভাগ সময়ে।

খাবার পাতে তাই শরীর ঠান্ডা করা খাবার আর হাতে শরবত, এমনটাই গ্রীষ্মে ডাইনিং টেবিলের চেনা ছক।শরবত খাওয়ার ফলে খাবার হজমও হয় সহজে। কিন্তু শুধু তেষ্টা মিটলেই তো চলবে না, গরমে বাছতে হবে এমন পানীয় যা শরীরও ঠান্ডা রাখবে। বাজারচলতি রাসায়নিক মেশানো শরবত বাদ দিয়ে আজ থেকেই বাড়িতে মজুত রাখুন এ সব পানীয়।
Advertisement
তরমুজের শরবত: খেতে যেমন সুস্বাদু, তেমনই শরীরকে সতেজ রাখতেও তরমুজের জুড়ি মেলা ভার। ভিটামিন বি থাকার ফলে যথেষ্ট এনার্জিও পাওয়া যায় তরমুজের রস থেকে। তাই তরমুজের শাঁস মিক্সিতে বেটে তার সঙ্গে জল আর মধু মেশান।ঠান্ডা ভাব আনতে এর সঙ্গে দু’-এক কুচি বরফ যোগ করতে পারেন।

দইয়ের ঘোল: হজম ঠিকঠাক রাখতে ঘোল খান। রাস্তার কেনা ঘোল নয়। বাড়িতে পাতা টকদইয়ের ঘোল বানান। টক দই, চিনি, বিট নুন, লেবুর রস, আর কয়েক টুকরো বরফ দিয়ে বাড়িতেই বানিয়ে নিনদইয়ের ঘোল। রোদ থেকে ঘুরে এসে একটু জিরিয়ে খেয়ে নিন এই পানীয়। ক্লান্তি যেমন কাটাবে, তেমন হজমশক্তিও বাড়াবে।
Advertisement
আম শরবত: টক-মিষ্টি এই পানীয় ঘামের মাধ্যমে শরীর থেকে নিঃসৃত লবণের ক্ষতিপূরণ করে। খাবার হজম হতেও সাহায্য করে। কাঁচা আমের শাঁস ভাপিয়ে নিয়ে বেটে, তাতে জল, অল্প চাট মশলা, জিরেবাটা, বিটনুন ও বরফ যোগ করে বানিয়ে নিন এমন শরবত। দোকানের কেনা আমের নানা স্কোয়াশ বা শরবতের চেয়ে এতে আরাম পাবেন বেশি।

ছাতুর শরবত: এই পানীয় শরীরে যেমন শক্তি প্রদান করে, তেমনই পেট ঠান্ডা রাখে ও পেট ভরায়। নুন, মধু,লেবু, বিটনুন, মিশিয়ে বাড়িতেও বানিয়ে নিতে পারেন ছাতুর শরবত। গরমে পেট ঠান্ডা রাখতে সবচেয়ে বেশি কার্যকর শরবতদের অন্যতম এটি। অনেকে এর সঙ্গে পিঁয়াজকুচি মিশিয়েও খান।

ডাবের শরবত: সাধারণ ডাবের জল পেট ‌ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে। এছাড়াওডাবের নরম শাঁস মিক্সিতে বেটে, তাতে বিটনুন, জল, বরফ ও কিছুটা দুধ মিশিয়ে বানিয়ে ফেলুন ডাবের শরবত। ক্লান্তি সরিয়ে শরীরকে ঠান্ডা করতে অত্যন্ত উপযোগী এই শরবত।

কালোজামের শরবত: গরম মানেই আম-জাম-লিচুর মেলা। কালো জামের আঁটি ফেলে দিয়ে তাকে মিক্সিতে দিয়ে ভাল করে পেস্ট বানিয়ে নিন। এ বার ঠান্ডা জলে সেই শাঁস যোগ করে, তাতে কিছুটা মধু, লেবু ও বিটনুন যোগ করে টক-মিষ্টি শরবত বানিয়ে নিন। গরমে ঠান্ডা তো হবেনই, এ ছাড়া রক্তের সংক্রমণ রুখতেও সাহায্য করে কালোজাম।

লেবুর শরবত: প্রায় সব বাড়িতেই গরমে এই একটি শরবতের অবারিত দ্বার থাকে।গরমে অতিরিক্ত গ্লুকোজ বেরনোরকারণেডায়রিয়ার আশঙ্কা দেখা দেয়। তাই শরীরকে সহজলভ্য উপায়ে হাইড্রেট করে তুলতে লেবুর শরবতঅত্যন্ত উপযোগী।