বর্ষা একেবারে দোরগোড়ায়। তাও গরম আপস করতে নারাজ! গলদঘর্ম হয়ে মেকআপের কথা ভাবলেও ডিপ্রেশন হয়, তাই না? কিন্তু গুমোট ভাবকে কেয়ার না করে যদি কয়েকটা কুল মেকআপ শেড ট্রাই করা যায়? ক্রাশড বেরি, প্লাম কুলার, কুল টারকোয়েজ় বা পিঙ্ক কোরালের মতো কিছু শেডের কথা ভাবলেই দেখবেন মন-মাথা সব নিমেষে কেমন ঠান্ডা হয়ে যাবে! ফ্যাশনিস্তারা কিন্তু এই জন্যই গরমের পরোয়া একেবারেই করেন না। তাঁদের মেকআপ, স্টাইল, ট্রেন্ড সব কিছু অন পয়েন্ট। তাঁদের মতো কয়েকটা শেড ট্রাই করলে গুমোট গরমেও আপনি হয়ে উঠবেন স্টাইল সম্রাজ্ঞী।

• ভ্যাপসা গরমে কিন্তু বেস মেকআপ রাখতে হবে একেবারে হালকা। হাই এসপিএফ যুক্ত সানস্ক্রিন লাগিয়ে কমপ্যাক্ট ফাউন্ডেশন অল্প ব্যবহার করতে পারেন। তার শেড বেজ, পার্ল বা গমরঙা হলে ভারতীয় স্কিন টোনের সঙ্গে মানাবে। হানি বা ব্রোঞ্জ কিন্তু ওয়ার্ম শেডস। এড়িয়ে চলুন। ক্রিম বা সিরাম ফাউন্ডেশন দিনের বেলা ব্যবহার না করলেই ভাল।

• কনসিলার ব্যবহার করে দাগছোপ ঢেকে নিন। তার পরে পাউডার ব্লাশ ব্যবহার করুন। পিচ, কোরাল, রোজ় এই ধরনের ব্লাশ মোটামুটি সব কমপ্লেকশনেই মানিয়ে যায়। কৃষ্ণকলিরা ব্লাশ ব্যবহার না করে অল্প হাইলাইট ব্যবহার করতে পারেন। ডার্ক স্কিনটোনে হাইলাইট একেবারে ঝিকিয়ে ওঠে! তবে সেটা সন্ধেবেলায় বেশি ভাল দেখায়।  

চোখে সূর্যোদয়ের রং

• মাসকারা-আইলাইনার দিয়ে চোখ ডিফাইন না করলে মেকআপই অসম্পূর্ণ। তবে মেকআপের রুলবুকে গরম, বর্ষা, শীত সব ঋতুতেই এক নিয়ম। যদি চোখের মেকআপ হালকা থাকে, তা হলে ঠোঁটে পপ আপ কালার ব্যবহার করুন। আর চোখে উজ্জ্বল কোনও শেড লাগালে ঠোঁট হবে হালকা। 

• এই মরসুমে দু’টি ট্রেন্ড হটকেক, নিয়ন এবং নুড। অর্থাৎ দুই মেরুর দুই স্টাইলই একসঙ্গে র‌্যাম্প থেকে অফিস করিডোর সব কাঁপাচ্ছে! দুটোই ব্যালান্স করে মেকআপ প্যালেটে রাখতে পারেন। মনে করুন, চোখে টারকোয়েজ় আইশ্যাডো ব্যবহার করেছেন। আপনার চোখের দিকে তাকালে মনে হবে, সমুদ্র নীলের শীতল পরশ ছুঁয়ে গিয়েছে যেন! তবে সে ক্ষেত্রে ঠোঁটে নুড বেরি রঙের ম্যাট লিপস্টিক লাগাবেন। নুড ট্যাঞ্জারিন বা পিঙ্কিশ ব্রাউনও ভাল লাগবে। 

• চোখে কোরাল পিঙ্ক আইশ্যাডোর মতো নিয়ন রং ব্যবহার করলে পিঙ্কেরই কোনও হালকা শেড লিপস্টিকে রাখুন। না হলে খাপছাড়া দেখাবে। একে বলে শেড ব্যালেন্সিং। আবার গরমেও অনেকে ওয়াইন, বোল্ড রুবি, ডার্ক প্লাম, ওয়ার্ম ক্যারামেল শেডের লিপস্টিক পরতে ভালবাসেন। সে ক্ষেত্রে মুখের মেকআপ শেষ করে চোখে নুড কোনও আইশ্যাডো দিয়ে হাইলাইট করে নিন। তার পরে আইল্যাশ কার্লার দিয়ে চোখের পাতাগুলোকে কার্ল করে দু’-তিন কোট কালো মাসকারা লাগান। নীচে ওয়াটারলাইনেও মাসকারা দেবেন। আইলাইনার এই লুকে না-ও ব্যবহার করতে পারেন। যদি করেন, তা হলে মাসকারা ব্যবহারের আগে চোখের লাইন বরাবর সরু করে আঁকুন। চোখটাকে শুধু ডিফাইন করার জন্য। একদম শেষে ডার্ক লিপস্টিক লাগিয়ে নিন। এটা কিন্তু সন্ধের সাজের জন্যই বেশি মানানসই। 

নুডের মায়ায়

উপরের কয়েকটি পরামর্শ ছাড়া নিজের খুশিমতো শেডস নিয়ে এক্সপেরিমেন্টও করতে পারেন। আসল কথা হল, সুন্দর দেখানো... আর গুমোটকে হার মানানো, তাই না?

মডেল: হিয়া বন্দ্যোপাধ্যায়, তৃণা সাহা; ছবি: অমিত দাস; মেকআপ: উজ্জ্বল দত্ত; স্টাইলিং: নীল সাহা; কস্টিউম: চান্দ্রি মুখোপাধ্যায়