এ বছর মার্চে এক কিশোরীকে গণধর্ষণের অভিযোগে বুধবার বেসরকারি কলেজের পাঁচ ছাত্রকে গ্রেফতার করল কর্নাটক পুলিশ‌। মাসখানেক আগে গণধর্ষণের বিষয়টি সামনে আসে যখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ওই ঘটনার বেশ কয়েকটি ভিডিয়ো ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনায় অভিযুক্ত ওই ছাত্রদের সকলেরই বয়স ১৯ বছরের আশপাশে।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই কিশোরী পাঁচ অভিযুক্তের মধ্যে এক জনের পূর্ব পরিচিত। এ বছর মার্চের প্রথম সপ্তাহে বেসরকারি কলেজের চার ছাত্র ওই কিশোরীকে গাড়ি করে নিয়ে যায় জঙ্গল লাগোয়া এলাকায়। সেখানে তাঁকে গাড়ি থেকে নামিয়ে তাকে ধর্ষণ করা হয়। জঙ্গলে নিগ্রহের সেই ভিডিয়ো করেও রাখা হয়। ঘটনার কথা বাইরে বললে এই সব ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়ারও ভয় দেখানো হয়েছিল কিশোরীকে।

সেই ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে, তিন জন মিলে ওই কিশোরীকে নিগ্রহ করছে এবং এক জন ওই ঘটনার ভিডিয়ো করছে। গত সপ্তাহে সেই ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই পুলিশের মিডিয়া সেলের নজরে আসে। তার পর পুলিশ বিষয়টি নিয়ে মামলা দায়ের করে ও অভিযুক্তদের ধরতে দু’টি দল গঠন করে। সেই ভিডিয়োর ভিত্তিতেই ওইদিনের ঘটনায় যুক্ত চার জনকে গ্রেফতার করে। অপর এক ছাত্রকে পুলিশ গ্রেফতার করে ধর্ষণের ঘটনার ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য।

আরও পড়ুন: কেন বিশ্বজুড়ে ১২ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে অচল ছিল ফেসবুক-হোয়াটসঅ্যাপ?

পুলিশ জানিয়েছে, নির্যাতিত ওই কিশোরী দলিত সম্প্রদায়ের। তাঁর বয়স ১৮ বছর। সে একটি কলেজে ছাত্রী। কর্নাটক পুলিশের এক উচ্চপদস্থ অফিসার, এই ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার না করার জন্য সাধারণ মানুষের কাছে আবেদন জানিয়েছেন। এবং ওই ভিডিয়ো ছড়ানোর অভিযোগে গ্রেফতারি র হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন। ঘটনা সামনে আসতেই ওই পাঁচ ছাত্রকে বহিষ্কার করেছেন কলেজ কর্তৃপক্ষ। 

আরও পড়ুন: টিকটক ভিডিয়ো দেখে তিন বছর আগে পালিয়ে যাওয়া স্বামীকে খুঁজে পেলেন স্ত্রী!