• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

হাসিমুখে অসহযোগ চেয়েছি: অরুন্ধতী

Arundhati Roy
—ফাইল চিত্র।

জাতীয় জনসংখ্যা রেজিস্টার (এনপিআর) এবং জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি) নিয়ে গত বুধবার দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিবাদের সময়ে বক্তৃতা দিয়েছিলেন অরুন্ধতী রায়। কিন্তু তাঁর সেই বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে বলে শুক্রবার দাবি করলেন লেখিকা। টিভি চ্যানেলে বৃহস্পতিবার দেখানো হয়েছে, অরুন্ধতী বলছেন, এনআরসি-র তথ্যভাণ্ডার হিসেবে কাজ করবে এনপিআর। তাই সরকারের কাছে ভুল নাম এবং ঠিকানা জমা দিতে জনতাকে পরামর্শ দিচ্ছেন তিনি। 

অরুন্ধতীর দাবি, টিভি চ্যানেলগুলির কাছে গোটা বক্তৃতার ফুটেজ ছিল। কিন্তু তারা শুধু ওই অংশটুকু নিয়েই ভুল ব্যাখ্যা করে লাফালাফি করেছে। ওই মন্তব্যের জন্য তাঁর গ্রেফতারিও দাবি করেছেন কোনও কোনও নেতা। 

আরও পড়ুন: সিএএ-এর বিরুদ্ধে বিক্ষোভে যোগ, ফেরানো হল বিদেশিকে

লেখিকা জানিয়েছেন, রামলীলা ময়দানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ২২ ডিসেম্বরের সভায় এনআরসি নিয়ে অকপটে মিথ্যে বলেছিলেন। বলেছিলেন, ভারতে কোনও ডিটেনশন সেন্টারের অস্তিত্ব নেই। মোদীর মিথ্যের জবাব দিতে অরুন্ধতী ওই বক্তৃতা দিয়েছিলেন বলে এক বিবৃতিতে আজ নিজেই জানিয়েছেন। তাঁর কথায়, ‘‘ওই মিথ্যের জবাবে আমি বলেছিলাম, ওরা যখন আমাদের কাছে এনপিআর-এর জন্য তথ্য সংগ্রহ করতে আসবে, আমাদের সমবেত ভাবে কিছু হাস্যকর তথ্য ওদের হাতে তুলে দিতে হবে। আমার প্রস্তাব ছিল, হাসিমুখে অসহযোগিতা করার।’’ কিন্তু তাঁর মন্তব্যের অংশবিশেষ তুলে যে ভাবে গ্রেফতারির দাবি তোলা হয়েছে, তাতে বিরক্ত অরুন্ধতী। পাল্টা প্রশ্ন তুলে তিনি বলেন, ‘‘দেশের প্রধানমন্ত্রী মিথ্যে বললে কিছু হয় না? আমরা যদি একটা হাসির কথা বলি, সেটা হয়ে যায় ফৌজদারি অপরাধ। আর নিরাপত্তার পক্ষে বিপজ্জনক! অসাধারণ সময়! অসাধারণ গণমাধ্যম!’’                         

 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন