অন্ধ্রপ্রদেশের বিশেষ অধিকার নিয়ে চন্দ্রবাবু নায়ডুর সঙ্গে বিজেপি-র লড়াই চরমে পৌঁছল।টিডিপি কেন্দ্রের এনডিএ জোট ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিতে না নিতেই বৃহস্পতিবার সকালেই অন্ধ্রের টিডিপি মন্ত্রিসভা থেকে বেরিয়ে গেলেন বিজেপি-র দুই মন্ত্রী শ্রীনিবাস রাও এবং মানিক্যলা রাও।
রাজ্যভাগ হওয়ার পর থেকেই অন্ধ্রের জন্য বিশেষ অধিকার দাবি করে আসছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, টিডিপি সুপ্রিমো চন্দ্রবাবু নাইডু। কিন্তু কেন্দ্রের আশঙ্কা, অন্ধ্রপ্রদেশকে‘স্পেশ্যাল স্ট্যাটাস’দিলে পশ্চিমবঙ্গ কিংবা পঞ্জাবের মতো রাজ্যগুলোও একই দাবিতে সরব হবে।কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি জানান, চন্দ্রবাবুর দাবি মতো অর্থ বরাদ্দ করতে তাঁরা রাজি আছেন। কিন্তু, বিশেষ অধিকার দেওয়া সম্ভব নয়।এর প্রতিবাদেই টিডিপির দুই মন্ত্রী— অশোক গজপতি রাজু এবং ওয়াই এস চৌধুরী কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা ছাড়বেন বলে শোনা যাচ্ছে। এই মুহূর্তে অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রীর দায়িত্বে রয়েছেন গজপতি রাজু। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বে রয়েছেনওয়াই এস চৌধুরী।

আরও পড়ুন, সরকার থেকে সরছেন চন্দ্রবাবু

গোটা ঘটনা নিয়ে অন্ধ্রপ্রদেশ তপ্ত। কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বঞ্চনার অভিযোগ তুলে গলা চড়াচ্ছে কংগ্রেস। রাহুল গাধীঁ জানিয়েছেন, কেন্দ্রে ক্ষমতায় এলে চন্দ্রবাবুর দাবি মেনে নেওয়া হবে। সূত্রের খবর, চন্দ্রবাবুকে কাছে টানতে সনিয়া গাধীঁও বিশেষ উদ্যোগ নিচ্ছেন।
এদিন অন্ধ্র-মন্ত্রিসভা থেকে দুই বিজেপি মন্ত্রীর ইস্তফার খবর চন্দ্রবাবু স্বীকার করে নিয়েছেন।বিধানসভায় দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, ‘‘কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা থেকে আমাদের দুই মন্ত্রী ইস্তফা দিয়েছেন। ঠিক সেরকমই ওদের দুই মন্ত্রীও ইস্তফা দিলেন।" 
টিডিপি-বিজেপির টক্করে স্কোর লাইন এখন ২-২।কিন্তু এরপর? বিজেপির সঙ্গ ছেড়ে কি তা হলে এ বার রাহুলের হাত ধরবে টিডিপি? উত্তরটা জানেন একজনই। তিনি চন্দ্রবাবু নায়ডু।
 

আরও পড়ুন, দুর্নীতি রোখার পথ কী, প্রশ্ন জনতাকেই