• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

দলত্যাগী কংগ্রেস নেতাদের গোয়ায় মন্ত্রী করল বিজেপি!

goa
চলতি সপ্তাহেই কংগ্রেস থেকে বিজেপিতে যোগ দেন ১০ জন। —ফাইল চিত্র।

Advertisement

কংগ্রেস ছেড়ে আসা ১০ বিধায়কের মধ্যে তিন জনকে গোয়ার মন্ত্রী করে দিল বিজেপি। এমনকি তাঁদের জায়গা করে দিতে শনিবার রাজ্য মন্ত্রিসভা থেকে চার মন্ত্রীকেও সরিয়ে দেওয়া হল। যে চার জনকে সরানো হয়েছে, তাঁদের মধ্যে তিন জনই শরিক দল গোয়া ফরোয়ার্ড পার্টির নেতা। এ ছাড়াও সরানো হয়েছে নির্দল বিধায়ক হিসেবে জিতে আসা এক মন্ত্রীকে।

বিজয় সরদেশাই, বিনোদ পালিয়েঙ্কার, জয়েশ সালগাঁওকর— এই তিন জনই গোয়া ফরোয়ার্ড পার্টির নেতা। গোয়া ফরোয়ার্ড পার্টির সভাপতি বিজয় সরদেশাই। এত দিন গোয়ার উপ মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন তিনি। জল সংরক্ষণমন্ত্রী ছিলেন বিনোদ পালিয়েঙ্কার এবং বন্দরমন্ত্রী ছিলেন জয়েশ সালগাঁওকর।  নির্দল প্রার্থী রোহন থাউন্তে রাজস্ব দফতরের দায়িত্বে ছিলেন।

এত দিন যে চন্দ্রকান্ত কাভলেকর গোয়া বিধানসভায় কংগ্রেসের হয়ে বিরোধী নেতার পদ সামলেছেন, বিজয় সরদেশাইকে সরিয়ে এ দিন তাঁকেই উপমুখ্যমন্ত্রী করেছেন মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সবন্ত। মন্ত্রী করা হয়েছে আতানাসিও ‘বাবুশ’ মঁসারত্তে এবং  ফিলিপ নেরি রডরিগেজকে। এ দিন দুপুর তিনটে নাগাদ রাজভবনে শপথ গ্রহণ করেন তাঁরা। কংগ্রেস নেতাদের জায়গা করে দিতে বিধানসভার ডেপুটি স্পিকারের পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন মাইকেল লোবো। মন্ত্রিসভায় জায়গা পেয়েছেন তিনিও।

আরও পড়ুন: গোয়ার পরেই কি রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ​

অন্য দিকে, মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সবন্তের মন্ত্রিসভা থেকে বাদ পড়ে, দলের বিধায়কদের নিয়ে নিজের বাড়িতে এ দিনই কংগ্রেস বিধায়ক অ্যালেক্সিও রেজিনাল্ডোর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন গোয়া ফরোয়ার্ড পার্টির সভাপতি বিজয় সরদেশাই। সেখানে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে রেজিনাল্ডো বলেন, ‘‘রাজনীতিতে সুখ-দুঃখ বলে কিছু হয় না। কিন্তু এখন যা ঘটছে, তাকে অন্য কিছু নয়, বরং রাজনৈতিক পতিতাবৃত্তি বলা চলে।’’

আরও পড়ুন: ‘শক্তি পরীক্ষায় ভয় পাচ্ছে বিজেপি, কর্নাটকে জিতব আমরাই’, দাবি সিদ্দারামাইয়ার​

২০১৭ সালে গোয়ার ৪০টি বিধানসভা আসনে নির্বাচন হলে ১৭টিতে জয়লাভ করে কংগ্রেস। ১৩টি জেতে বিজেপি। কিন্তু গোয়া ফরোয়ার্ড পার্টি-সহ ছোট দলগুলির সমর্থন জোগাড় করে ক্ষমতা দখল করে বিজেপি। এই মুহূর্তে তাদের আসনসংখ্যা ২৭। একের পর এক নেতা দলত্যাগী হওয়ায়, কংগ্রেসের আসনসংখ্যা এসে ঠেকেছে পাঁচে। কিন্তু যে শরিক দলগুলির উপর ভর করে ক্ষমতায় এসেছিল বিজেপি, তাদেরই মন্ত্রিসভা থেকে বাদ দেওয়ায় সমালোচনার মুখে পড়েছে তারা।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন