• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বাইরে বেরলে ঘরে তৈরি মাস্ক পরুন, পরামর্শ স্বাস্থ্য মন্ত্রকের

Mask
ঘরোয়া মাস্ক পরতে পরামর্শ কেন্দ্রের।

মাস্ক নিয়ে বিভ্রান্তি এড়াতে প্রথমে কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছিল, যাঁদের সর্দি, কাশি, জ্বর হয়েছে অথবা যাঁরা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, তাঁদেরই মাস্ক পরার প্রয়োজন আছে। এ ছাড়া মাস্ক ব্যবহার করবেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। কিন্তু যাঁরা সুস্থ, তাঁদের মাস্ক পরার প্রয়োজন নেই। শনিবার অবশ্য সেই নির্দেশিকা বদল করল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক। এ দিন নতুন একটি নির্দেশিকায়, বাইরে বেরোলে ঘরে তৈরি বা পুনর্ব্যবহারযোগ্য মাস্ক পরার পরামর্শ দিল তারা।

বাজারে মাস্কের আকাল। এ নিয়ে অভিযোগ উঠছে অনেক দিন ধরেই। এ দিন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক নয়া নির্দেশিকায় স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে, ‘‘যাঁরা সুস্থ আথবা শ্বাসকষ্টে ভুগছেন, তাঁরা বাইরে বেরনোর সময় ঘরে তৈরি অথবা পুনর্ব্যবহারযোগ্য মাস্ক পরতে পারেন। এটা গোষ্ঠী সংক্রমণ এড়াতে সাহায্য করবে।’’

তবে যাঁরা স্বাস্থ্যকর্মী বা করোনা রোগীর চিকিৎসা করছেন তাঁদের ঘরোয়া পদ্ধতিতে তৈরি মাস্ক ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া হয়নি। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের নির্দেশিকায় ওই কাজের জন্য নির্দিষ্ট যে মাস্ক, তাই তাঁদের পরার কথা বলা হয়েছে। কী ভাবে ঘরোয়া পদ্ধতিতে পরিষ্কার কাপড়ের টুকরো থেকে মাস্ক বানানো যাবে তা-ও জানানো হয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে। নির্দেশিকায় এ-ও বলা হয়েছে, ‘‘মাস্ক যেন অন্য কারও সঙ্গে শেয়ার না করা হয় এবং একটি মাস্ক যেন এক জনই ব্যবহার করেন। একটি পরিবারে অনেক সদস্য থাকলেও,  তাঁদের প্রত্যেকে যেন আলাদা আলাদা মাস্ক ব্যবহার করেন।’’

 

আরও পড়ুন: নতুন করে রাজ্যে করোনা আক্রান্ত ১১, এই মুহূর্তে মোট আক্রান্ত ৪৯

 

 

(অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিয়ো আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, feedback@abpdigital.in ঠিকানায়। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।)

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন