টাকা নিয়ে গোলমালের জেরে বন্ধু এবং বন্ধুর স্ত্রীকে কুপিয়ে খুন করলেন এক ব্যক্তি। সেই নৃশংস হত্যাকাণ্ড  পুরোটাই ঘটানো হল তাঁদের সাত বছরের সন্তানের চোখের সামনে। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে গুরুগ্রামের দুন্দেহেরার ঘটনা। ঘটনাস্থল থেকেই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

দুন্দেহারায় একটি ভাড়া বাড়িতে স্ত্রী এবং ছেলের সঙ্গে থাকতেন বিক্রম সিংহ (৩১)। ধৃত অভিনব (পুলিশ শুধুমাত্র প্রথম নামটাই জানিয়েছে) বিক্রমের বন্ধু। বিদেশে চাকরির জন্য বিক্রম বন্ধুর থেকে দেড় লক্ষ টাকা ধার নিয়েছিলেন। কিন্তু যে চক্রের মাধ্যমে তিনি বিদেশে চাকরির অফার পেয়েছিলেন, তা কাজে লাগেনি। চাকরিও হয়নি আর টাকাটাও হাতছাড়া হয়ে যায়।

বৃহস্পতিবার রাতে সেই টাকা ফেরত নিতেই বিক্রমের বাড়িতে গিয়েছিলেন অভিনব। বেশ কিছু দিন ধরে এ নিয়ে তাঁদের মধ্যে চাপান উতোর চলছিল। ওই দিন তাঁদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। বিক্রমকে মারধর শুরু করে দেন অভিনব। বিক্রমের স্ত্রী তাঁকে বাঁচাতে গেলে তাঁকেও মারতে শুরু করেন অভিনব। তাঁদের দু’জনকেই কুপিয়ে খুন করেন অভিনব। যখন এই ঘটনা ঘটছে, ওই ঘরেই উপস্থিত ছিল তাঁদের সাত বছরের সন্তান। তার সামনেই পুরো ঘটনাটা ঘটে।

আরও পড়ুন: প্রমাণ লোপাটে অভিযুক্ত নীরব মোদীর ভাই নেহালের বিরুদ্ধে এ বার রেড কর্নার নোটিস

আর্তনাদ শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে গিয়ে দেখেন, ওই দম্পতি রক্তাক্ত অবস্থায় লুটিয়ে রয়েছেন আর ঘরের এক কোণে দাঁড়িয়ে ভয়ে কাঁপছে শিশুটি। তাঁরাই অভিনবকে হাতেনাতে ধরে পুলিশে খবর দেন।

আরও পড়ুন: নবান্ন অভিযান ঘিরে হাওড়ায় ধুন্ধুমার, পুলিশের লাঠিচার্জ, পাল্টা ইটবৃষ্টি, আহত বেশ কয়েক জন

পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার আগে অভিনব এবং বিক্রম দু’জনে মদ্যপান করেছিলেন।