ভাগ্যের সঙ্গে ধর্ষণকে জড়িয়ে বেফাঁস মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ালেন কেরলের কংগ্রেস সাংসদ হিবি এডেনের স্ত্রী অ্যানা লিন্ডা এডেন। অ্যানা পেশায় এক জন সাংবাদিক।

সোমবারের প্রবল বৃষ্টিতে কোচি শহরের বিভিন্ন জায়গায় জল জমে যায়। বেহাল জলনিকাশি ব্যবস্থা নিয়ে শহরবাসীর সমালোচনার মুখে পড়তে হয় কর্পোরেশনকে। অ্যানার বাড়ির সামনেও জল জমে গিয়েছিল। বেহাল নিকাশি ব্যবস্থাকে কটাক্ষ করেই ফেসবুকে তিনি একটি পোস্ট করেন। সেখানে তিনি লেখেন, “ভাগ্য হল ধর্ষণের মতো। যদি প্রতিরোধ করতে না পারেন, তা হলে উপভোগ করুন!” এমন মন্তব্যের পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রবল সমালোচনার ঝড় ওঠে। এক জন সাংবাদিক হয়ে কী ভাবে এমন মন্তব্য করলেন, নেটিজেনদের অনেকেই এই প্রশ্ন তোলেন।

নেটিজেনদের এক জন এই মন্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ করে বলেন, “আপনার ক্ষমা চাওয়া উচিত। আপনি এক জন সাংবাদিক। আইনের ছাত্রী। সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিত্ব। আপনার মুখে এমন কথা শোভা পায় না। ধিক্কার!”

এই সেই ফেসবুক পোস্ট।

আরও পড়ুন: সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ন্ত্রণে ১৫ জানুয়ারির মধ্যেই বিধি চূড়ান্ত করবে কেন্দ্র

আরও পড়ুন: ইনফোসিস শেয়ারে ধস! অভিযোগ গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে, বললেন চেয়ারম্যান

সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচমনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে দেখে তড়িঘড়ি ড্যামেজ কন্ট্রোলে নামেন অ্যানা। মঙ্গলবারই তাঁর এই মন্তব্যের ব্যাখ্যা দেন ফেসবুকে। প্রবল বর্ষণে মহিলাদের যে দুর্ভোগের শিকার হতে হচ্ছে তা বোঝাতেই এমন মন্তব্য করেছেন। এই মন্তব্যের পিছনে অন্য কোনও উদ্দেশ্য বা কাউকে আঘাত করার ইচ্ছা ছিল না বলেই জানিয়েছেন অ্যানা। তিনি বলেন, “যে সব নারীরা এই ধরনের মর্মান্তিক পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছেন তাঁদের ভাবাবেগে আঘাত করার জন্য এ ধরনের মন্তব্য করিনি।” শুধু তাই নয়, এ ক্ষেত্রে তাঁর শব্দচয়নেও ভুল হয়েছে। এমন মন্তব্যের জন্য নিঃশর্ত ক্ষমা চাইছেন বলেও ফেসবুকে পরে লেখেন তিনি।

অ্যানার স্বামী তথা কংগ্রেস সাংসদ হিবি এডেন ফেসবুকের এই পোস্ট নিয়ে যদিও স্ত্রীর পাশেই দাঁড়িয়েছেন। সেই সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যাবহারকারী যুব সম্প্রদায়েরও প্রবল সমালোচনা করেছেন।