রাতের দিল্লিতে এক মহিলা সাংবাদিককে ধাওয়া করে গুলি করল দুষ্কৃতীরা। এই ঘটনায় রাজধানীতে মহিলাদের নিরাপত্তা নিয়ে ফের প্রশ্ন উঠল। শনিবার রাতে পূর্ব দিল্লির অশোক নগরের ঘটনা।

পুলিশ জানিয়েছে, সাংবাদিকের নাম মিতালি চান্দোলা। নয়ডায় কাজ করেন। রাত তখন প্রায় সাড়ে ১২টা। নিজের গাড়ি চালিয়ে ফিরছিলেন মিতালি। তাঁর গাড়িকে অনুসরণ করছিল আরও একটি গাড়ি। হঠাত্ই সেটা মিতালির গাড়িকে ওভারটেক করে সামনে দাঁড়িয়ে যায়। কিছু বুঝে ওঠার আগেই ওই গাড়িতে থাকা আরোহীরা পর পর দু’টি গুলি চালায়। প্রথম গুলিটি লক্ষ্যভ্রষ্ট হলেও দ্বিতীয় গুলিটি গাড়ির উইন্ডশিল্ড ভেদ করে মিতালির হাতে লাগে।

মিতালি পুলিশকে জানিয়েছেন, হামলাকারীদের প্রত্যেকেরই মুখ ঢাকা ছিল। হামলাকারীরা প্রথমে তাঁর গাড়িতে ডিম ছোড়ে। গাড়ি থামানোর জন্য তাঁকে হুমকি দেওয়া হয়। কিন্তু তিনি গাড়ি না থামানোয় ওভারটেক করে হামলাকীরা পথ আটকে দাঁড়ায়। তার পরই গুলি চালায়।

আরও পড়ুন: রাতের দিকে আসুন, হাফ দামে দেব!

আরও পড়ুন: অশান্ত ভাটপাড়া, ছড়াচ্ছে গুজবও, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে রিপোর্ট দেবেন অহলুওয়ালিয়া

মিতালিকে উদ্ধার করে পূর্ব দিল্লির একটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। চিকিত্সকরা জানিয়েছেন, তাঁর অবস্থা স্থিতিশীল। এই ঘটনায় মোটরবাইক গ্যাং জড়িত কি না খতিয়ে দেখছে পুলিশ। এই মোটরবাইক গ্যাং রাতে পথচলতি গাড়িতে ডিম ছুড়ে দিকভ্রান্ত করার চেষ্টা করে। তার পর সব কিছু লুটপাট করে।

কী কারণে এই আক্রমণ তা জানা যায়নি। ব্যক্তিগত শত্রুতার সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছে না পুলিশ। ওই সাংবাদিক জানিয়েছেন, তাঁর সঙ্গে তাঁর স্বামীর সম্পর্ক ভাল নয়। আবার রাতের রাস্তায় ডাকাতির উদ্দেশ্য নিয়ে হামলা হয়েছে কি না, তা-ও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। জসমিত সিংহ নামে এক পুলিশ কর্তা বলেন, ‘‘ওই সাংবাদিকের হাতে গুলি লেগেছে। তবে এখন বিপন্মুক্ত। পারিবারিক অশান্তির কারণে হামলা হয়ে থাকতে পারে। সব সম্ভাবনাই খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’’ এই ঘটনায় খুনের চেষ্টার মামলা দায়ের করেছেন ওই তরুণী। 

মিতালির উপর যে ভাবে হামলা চালানো হয়েছে, ঠিক একই কায়দায় ২০০৮ সালে রাজধানীর বসন্তকুঞ্জে সৌম্যা বিশ্বনাথন নামে ২৬ বছরের এক সাংবাদিককে গুলি করে খুন করা হয়েছিল।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও।সাবস্ক্রাইব করুনআমাদেরYouTube Channel - এ।