ফের দিল্লির এমসে অগ্নিকাণ্ড। শনিবার বিকেলে হাসপাতালের এমার্জেন্সি ওয়ার্ডের খুব কাছে একটি বিল্ডিংয়ে আগুন লাগে। হাসপাতালের একাধিক তলায় ছড়িয়ে পড়ে সেই আগুন। হাসপাতাল চত্বরে তীব্র আতঙ্কের পরিস্থিতি তৈরি হয়। দমকল বেশ কিছু ক্ষণের চেষ্টায় আগুন আয়ত্তে আনে। তবে, অগ্নিকাণ্ডে হতাহতের কোনও খবর নেই।

শনিবার বিকেল ৫টা। অন্যান্য দিনের মতোই ব্যস্ত দিল্লির এমস হাসপাতাল। আচমকা হাসপাতালের প্রথম তলের একটি অংশ থেকে কালো ধোঁয়া বেরোতে দেখা যায়। দ্রুত খবর দেওয়া হয় দমকলে। একে একে ঘটনাস্থলে আসে দমকলের ৩৪টি ইঞ্জিন। ইতিমধ্যে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলতে দেখা যায়। সেই সঙ্গে, গলগল করে বেরোতে থাকে কালো ধোঁয়া। সেই ধোঁয়া ছড়িয়ে পড়ে বিভিন্ন ব্লকে। এমন ভয়াবহ পরিস্থিতিতে রোগী ও রোগীর পরিজনের মধ্যে তীব্র আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। হাসপাতালে ভর্তি থাকা রোগীদের অন্যত্র সরানোর কাজ শুরু হয়। অর্থোপেডিক ইউনিটের রোগীদের অন্যত্র সরানো হয়। বাড়তি সতর্কতা হিসাবে বন্ধ করে দেওয়া হয় এমার্জেন্সি ওয়ার্ড।

অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল। টুইটে তিনি লেখেন, ‘এমসের আগুন খুব দ্রুত নিয়ন্ত্রণে আনা হবে। দমকল সর্বতো ভাবে সেই চেষ্টা করছে। প্রত্যেকেকে শান্ত থাকার আবেদন করছি।’ আগুনে অবশ্য হতাহতের কোনও খবর নেই। ওই হাসপাতালেরই আইসিইউ-তে ভর্তি রয়েছেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। হাসপাতালের ওই অংশে অবশ্য আগুনের কোনও আঁচ পৌঁছয়নি।

আরও পড়ুন: স্বাধীনতা দিবসে পুরস্কার, পর দিনই ঘুষ নিতে গিয়ে হাতেনাতে গ্রেফতার কনস্টেবল!

কী কারণে এমন অগ্নিকাণ্ড তা খতিয়ে দেখছে দমকল। প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে শর্ট সার্কিট থেকেই আগুন লেগেছে। এর আগেও এমসে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। গত মার্চ মাসেই আগুন লাগে হাসপাতালটির ট্রমা সেন্টারে।

আরও পড়ুন: সরকারি বিজ্ঞাপনে মোদী-শাহের পাশে কুলদীপ সেঙ্গার!