কেরলে বর্ষা ঢুকলেও, তীব্র দাবদাহে পুড়ছে মধ্য ভারত। দিল্লি তো বটেই জ্বালাপোড়া গরম রাজস্থানের ঢোলপুরেও। একে বর্ষার দেখা নেই তার উপর মধ্যভারতে এই তাপপ্রবাহের জেরে কলকাতাও এই গরমের হাত থেকে আপাতত রেহাই পাচ্ছে না।

ইতিমধ্যেই দিল্লির পালামে তাপমাত্রা ছাড়িয়েছে ৪৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রাজস্থানের চুরুতেও একই তাপমাত্রা। ঢোলপুরে তাপমাত্রা ৫১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, হরিয়ানা, চণ্ডীগড়, বিহার, ঝাড়খণ্ড, মধ্যপ্রদেশেও এই তাপপ্রবাহ চলবে। তার প্রভাব পড়বে এ রাজ্যেও।

আগামী কয়েকদিন কলকাতাতে পারদ আরও চড়বে। বাড়বে আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি। রাজ্যের অন্যান্য জেলাতে তাপপ্রবাহের সম্ভাবনার কথাও জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। ফলে আগামী সপ্তাহে তীব্র দাবদাহের মধ্যে কাটাতে হবে দক্ষিণবঙ্গের বাসিন্দাদের। গরমে ভুগবে কলকাতাও।

গত দু’দিন ধরেই গরমের তেজ যেন ফের ফিরে এসেছে দক্ষিণবঙ্গে। সোমবারও আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি ছিল। আলিপুর হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস, চলতি সপ্তাহে আরও ২ থেকে ৩ ডিগ্রি তাপমাত্রা বাড়বে কলকাতা-সহ দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলি, নদিয়া, মুর্শিদাবাদ এবং পূর্ব মেদিনীপুর জেলায়।

একই সঙ্গে ৬ জেলায় তীব্র তাপপ্রবাহ চলবে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া বিজ্ঞানীরা। তার মধ্যে রয়েছে পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, পশ্চিম বর্ধমান, বীরভূম, পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম।

কেরলে ইতিমধ্যেই বর্ষার আগমন ঘটেছে। কিন্তু ৮ জুনের মধ্যে এ রাজ্যে ঢোকার কথা থাকলেও, এখনও বর্ষার দেখা তো মিললই না, তার উপর আলিপুর আবহাওয়া জানাচ্ছে, গরম আবার বাড়বে। ফলে আবহাওয়ার খামখেয়ালিতে বর্ষার মরসুমে ভুগতে হবে রাজ্যবাসীকে।

কবে বর্ষা এ রাজ্যে ঢুকবে, তা সঠিক ভাবে বলতে পারছেন না আবহাওয়া বিজ্ঞানীরা। আলিপুর আবহাওয়া দফতরের অধিকর্তা গণেশকুমার দাস বলেন, ‘‘একে বর্ষা পিছিয়ে গিয়েছে। তার উপর মধ্যভারতে তাপপ্রবাহ চলছে। সে কারণেই রাজ্যে এই পরিস্থিতি থাকবে আগামী কয়েক দিন।’’