আগামী মাসে ভারতীয় বায়ুসেনা প্রথম রাফাল যুদ্ধবিমান হাতে পেলেও ৩৬টি যুদ্ধবিমান কেনার চুক্তি পুরোপুরি সম্পূর্ণ হতে ১০ বছর। রাফালে এত দেরি হওয়ায় মিগ-২১ সিরিজের যুদ্ধবিমানগুলি ধাপে ধাপে বাতিল করার প্রক্রিয়ায় দেরি হচ্ছে। কিন্তু নতুন ১১৪টি যুদ্ধবিমান কেনার ক্ষেত্রে আর তার পুনরাবৃত্তি চায় না বায়ুসেনা। তাই দ্রুত যুদ্ধবিমান হাতে পাওয়ার বিষয়টিতেই সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে চাইছেন বায়ুসেনা কর্তারা। ইতিমধ্যেই ১৫০০ কোটি মার্কিন ডলারের (ভারতীয় মুদ্রায় যা এক লক্ষ কোটিরও বেশি) চুক্তির জন্য যুদ্ধবিমান প্রস্তুতকারী দেশগুলি এবং সংস্থার সঙ্গে প্রাথমিক আলোচনাও শুরু হয়েছে বলে বায়ুসেনা সূত্রে খবর।

রাফাল চুক্তির সময়ই বায়ুসেনা জানিয়েছিল, তাদের দরকার ১২৬টি যুদ্ধবিমান। কিন্তু সেই সময় ফরাসী সংস্থা রাফালকে বরাত দেওয়া হয় ৩৬টি যুদ্ধবিমান। অন্য দিকে ধাপে ধাপে মিগ-২১ বাতিল করতে হবে এই বছরের মধ্যেই। সব রাফাল হাতে এলেও কিছুটা ঘাটতি থাকবে বায়ুসেনার যুদ্ধবিমানভাণ্ডারে। সব মিলিয়ে যু্দ্ধপ্রস্তুতিতে খামতি থেকে যাচ্ছে বলে বায়ুসেনার এক কর্তা জানিয়েছেন। তাই নতুন করে আরও ১১৪টি যুদ্ধবিমান কেনার চুক্তি তড়িঘড়ি সেরে ফেলতে চাইছেন বায়ুসেনার কর্তারা।

বায়ুসেনা সূত্রে খবর, দেড় হাজার কোটির এই চুক্তি করতে বোয়িং, লকহিড মার্টিনের মতো মার্কিন সংস্থা, রাশিয়ার ইউনাইটেড এয়ারক্র্যাফট এবং সাব-এর মতো সংস্থা রয়েছে বায়ুসেনার নজরে। এই সব সংস্থা এর আগেও মিডিয়াম মাল্টি রোল কমব্যাট এয়ারক্র্যাফটের (এমএমআরসিএ) টেন্ডারে অংশ নিয়েছে।

আরও পডু়ন: ‘খুব বিপদে আছি’, বিমানে রাহুলকে পেয়ে ক্ষোভে কেঁদে ফেললেন কাশ্মীরের মহিলা, দেখুন ভিডিয়ো

আরও পড়ুন: ভোটের ময়দানে সাফল্যের হার প্রায় শূন্য, কিন্তু মুশকিল আসান সেই জেটলিই

বায়ু সেনার একটি সূত্রে জানা গিয়েছে, এই একাধিক সংস্থা ইতিমধ্যেই নানা ‘অফার’ নিয়ে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক এবং বায়ুসেনার সঙ্গে যোগাযোগ করতে শুরু করেছে। এমনকি, মার্কিন সংস্থা ভারতে এফ-১৬ এবং এফ-১৬ জেট গোত্রের বিমান তৈরির ইউনিট খোলার প্রস্তাবও দিয়েছে বলে বায়ুসেনার এক পদস্থ কর্তা জানিয়েছেন। রাশিয়া সরকারের সঙ্গেও কয়েক প্রস্ত আলোচনা হয়েছে বলেও সূত্রের খবর। তবে প্রতিরক্ষামন্ত্রক সূত্রে খবর, সব প্রস্তাব এবং পরিকল্পনাই খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে এর বাইরেও আরও কিছু পরিকল্পনা রয়েছে। সেগুলি অবশ্য স্পষ্ট করতে চায়নি মন্ত্রক বা বায়ুসেনা।