অস্ত্রবিরতি লঙ্ঘনের কড়া প্রত্যাঘাত করল ভারত। টংধর সেক্টরের উল্টো দিকে নীলম ভ্যালিতে ভারী গোলাবর্ষণে বেশ কয়েকটি জঙ্গি ঘাঁটি উড়িয়ে দিয়েছে ভারতীয় সেনা। সেনা সূত্রে দাবি, অন্তত পাঁচ জন পাক সেনা জওয়ানের মৃত্যু হয়েছে। যদিও অসমর্থিত সূত্রের খবর, সেনা এবং জঙ্গি মিলিয়ে হতাহতের সংখ্যা আরও অনেক বেশি। যদিও পাকিস্তানের দাবি, ভারতীয় সেনার গোলাবর্ষণে তাদের এক সেনা জওয়ান এবং তিন গ্রামবাসীর মৃত্যু হয়েছে। পাক সেনার গুলিতে ন’জন ভারতীয় সেনা জওয়ানের মৃত্যু হয়েছে বলেও দাবি পাকিস্তানের।

রবিবার ভোর রাত থেকেই জম্মুর কুপওয়ারার টংধর সেক্টরে বিনা প্ররোচনায় অস্ত্রবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে ব্যাপক গোলাবর্ষণ শুরু করে পাক সেনা। তাতে দুই ভারতীয় জওয়ান এবং এক গ্রামবাসীর মৃত্যু হয়। এর পর থেকেই টংধরের উল্টো দিকে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের নীলম উপত্যকার জঙ্গি ঘাঁটিগুলি লক্ষ্য করে ভারী গোলাবর্ষণ শুরু করে। মর্টার, কামানের মতো অস্ত্র ব্যবহার করা হয় বলে সেনা সূত্রে খবর। তাতে চার-পাঁচটি জঙ্গি শিবির গুঁড়িয়ে যায়। পাক সেনার পাঁচ জন জওয়ান নিহত হয়েছে বলেও সেনার ওই সূত্রের দাবি।

কিন্তু পাকিস্তানের পক্ষ থেকে পাল্টা দাবিতে জানানো হয়েছে, ভারত বিনা প্ররোচনায় অস্ত্রবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে সাধারণ বাসিন্দাদের লক্ষ্য করে গোলাগুলি ছুড়েছে। তাতে এক সেনা জওয়ান এবং তিন গ্রামবাসীর মৃত্যু হয়েছে। পাক সেনার জনসংযোগ বিভাগের ডিজি মেজর জেনারেল আসিফ গফুর টুইটারে লিখেছেন, ‘ভারতীয় সেনা বিনা প্ররোচনায় অস্ত্রবিরতি লঙ্ঘন করে জুরা, শাহকোট এবং নওসেরা সেক্টরে সাধারণ নাগরিকদের নিশানা করেছে। পাক সেনা তার যোগ্য জবাব দিয়েছে। ন’জন ভারতীয় সেনা জওয়ানের মৃ্ত্যু হয়েছে। দু’টি বাঙ্কার গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। গোলাগুলিতে এক সেনা জওয়ান, তিন গ্রামবাসীর (পাক অধিকৃত কাশ্মীরে) মৃত্যু হয়েছে,  দুই জওয়ান এবং আরও পাঁচ গ্রামবাসী আহত হয়েছেন।’

আরও পডু়ন: ফের সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন পাক সেনার, কুপওয়ারায় নিহত ২ জওয়ান, এক গ্রামবাসী

আরও পডু়ন: এক রাতে নাইটক্লাবে উড়িয়েছেন ৮ কোটি! কমল নাথের ভাইপোর বিরুদ্ধে চার্জশিট ইডির

পাক অধিকৃত কাশ্মীরে জঙ্গি শিবিরে ভারতীয় সেনার হামলার প্রসঙ্গে মেজর গফুরের বক্তব্য, ‘‘নিরীহ নাগরিকদের উপর হামলা চালিয়ে ভারত জঙ্গি শিবিরে হামলা চালানোর মিথ্যে দাবি প্রমাণ করার চেষ্টা করছে।’’ পাক সেনা সব সময় ভারতের অস্ত্রবিরতি লঙ্ঘনের যোগ্য জবাব দেবে এবং সাধারণ নাগরিকদের রক্ষা করবে বলেও মন্তব্য করেছেন গফুর।

ভারতীয় সেনার অবশ্য দাবি, টংধর সেক্টরের উল্টো দিকে নীলম উপত্যকায় একাধিক জঙ্গি ঘাঁটি রয়েছে। সেগুলি থেকে ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালায় জঙ্গিরা। পাক সেনা তাতে প্রত্যক্ষ ভাবে মদত দেয় এবং সাহায্য করে। রবিবার ভোরেও জঙ্গিদের সেই রকম সক্রিয় কার্যকলাপ ও গতিবিধি নজরে আসার পরেই জঙ্গি ঘাঁটিগুলি লক্ষ্য করে ভারী গোলাবর্ষণ করা হয়েছে এবং জঙ্গি অনুপ্রবেশের চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে।