একেই বোধহয় বলে ‘বাপ কা বেটা’! পুর আধিকারিককে ব্যাট দিয়ে পিটিয়ে গ্রেফতার হয়েছেন আকাশ বিজয়বর্গীয়। এই নিয়ে এখন তপ্ত মধ্যপ্রদেশের রাজনীতি। কিন্তু আকাশের বাবাও যে প্রায় একই ধরনের কাণ্ড ঘটিয়েছিলেন, তা অনেকেরই অজানা। পুত্র শিরোনামে আসতেই স্মৃতিতে তরতাজা হয়ে উঠেছে ‘বাবার কীর্তি’। ছেলের মতোই বাবা কৈলাস বিজয়বর্গীয় এক পুলিশ অফিসারকে জুতো দিয়ে পেটাতে গিয়েছিলেন। সামনে চলে এসেছে ২৫ বছর আগের সেই ছবিও।

সম্প্রতি একটি বাড়ি ভাঙা ঘিরে বিবাদের জেরে এক পুর আধিকারিককে ব্যাট দিয়ে পিটিয়ে গ্রেফতার হয়েছেন ইন্দওরের বিধায়ক আকাশ বিজয়বর্গীয়। তিনি বিজেপি নেতা তথা এ রাজ্যে দলের পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়র ছেলে। এই ঘটনা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে ব্যাপক তোলপাড় হয়েছে। এখনও জামিন পাননি আকাশ।

তার মধ্যেই এ বার ২৫ বছরের পুরনো একটি ঘটনার প্রাসঙ্গিকতা খুঁজে পেয়েছেন অনেকেই। ঘটনা ১৯৯৪ সালের। সেই সময় ইন্দওর পুর কর্পোরেশনের মেয়র ছিলেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়। শহরের প্রবীণ নাগরিকদের সূত্রে জানা গিয়েছে, একটি রাজনৈতিক কর্মসূচি ঘিরে ঘিরে বিবাদের জেরে মেজাজ হারান কৈলাস। তখনই পা থেকে জুতো খুলে কর্তব্য পুলিশ অফিসার এএসপি প্রমোদ শ্রীপদ ফাদিনকরকে ধমকান এবং পেটাতে যান। যদিও ওই অফিসারকে জুতোপেটা করেছিলেন কি না, সে বিষয়ে বিশ্বাসযোগ্য কোনও তথ্য মেলেনি।

সেই ঘটনার ছবিও ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে। সাদাকালো ওই ছবিতে দেখা যাচ্ছে, জুতো হাতে নিয়ে মারতে উদ্যত কৈলাস। যে ব্যক্তিকে তিনি মারতে উদ্যত হয়েছেন, তিনিই পুলিশ অফিসার প্রমোদ শ্রীপদ বলে দাবি করা হেয়েছে বিভিন্ন সূত্রে। যদিও ছবিতে েতাঁর গায়ে ইউনিফর্ম নেই, সাদা পোশাক।

আরও পড়ুন: ‘বড় ঘোষণা করতে চলেছি’, মোদীর সঙ্গে বৈঠক নিয়ে মন্তব্য ট্রাম্পের, শুল্ক-সংঘাত থামার ইঙ্গিত?

আরও পড়ুন: ছত্তীসগঢ়ে মাওবাদী-সিআরপিএফ সংঘর্ষে নিহত দুই জওয়ান

এই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। পিতা-পুত্রকে জুড়ে ফেসবুক, টুইটারে আছড়ে পড়েছে নানা ধরনের মন্তব্য। কেউ বলছেন, ‘দু’টো ছবি আসলে একই। শুধু জুতো পাল্টে গিয়েছে ব্যাটে’। অন্য একজন লিখেছেন, ‘গাছের থেকে ফল যে বেশি দূরে পড়ে না, তার প্রমাণ।’