মহারাষ্ট্রে শিবসেনা-এনসসিপি-কংগ্রেসের সরকার গঠন প্রায় নিশ্চিত। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী কে হবেন? এ প্রশ্নের জবাব খুঁজতেই শুক্রবার বৈঠক সারল এনসিপি।

দলের বিধায়কদের মত, উদ্ধব ঠাকরেই মুখ্যমন্ত্রী হোন। কিন্তু উদ্ধব এখনও তাতে সম্মতি দেননি। শিবসেনার নেতা প্রতাপ সরনায়েক বলেন, ‘‘চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন উদ্ধব নিজেই।’’ অন্য দিকে, সরকার গঠনের আগে শুক্রবার তিন দলের একের পর এক বৈঠক হয়েছে।

তিন দল জোট করে সরকার গঠন নিশ্চিত হতেই কার্যত স্পষ্ট হয়ে যায়, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর পদ পাচ্ছে শিবসেনাই। কিন্তু মরাঠা রাজ্যের কুর্সিতে কে বসবেন, তা নিয়ে নানা জল্পনা। ফল ঘোষণার পর বিজেপির সঙ্গে যখন ৫০:৫০ ফর্মুলা নিয়ে দর কষাকষি চলছিল, তখন ভেসে উঠেছিল শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরের ছেলে আদিত্য ঠাকরের নাম।

কিন্তু সেই পর্ব মিটে যাওয়ার পরে তিন দলের জোটের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে সামনে চলে আসে উদ্ধব ঠাকরের নাম। কিন্তু শুক্রবারের বৈঠকে দলের বৈঠকে বিধায়করা সর্বসম্মত ভাবে উদ্ধবের পক্ষে ভোট দিলেও শিবসেনা প্রধান তাতে উদ্ধব এখনও সবুজ সঙ্কেত দেননি। রাজনৈতিক শিবিরে গুঞ্জন, সরকার গঠনের ফর্মুলা চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত নাম ঘোষণা করবে না সেনা।

এর মধ্যে আবার জল্পনা বাড়িয়েছেন শিব সেনার মুখপাত্র সঞ্জয় রাউত। এ দিনই তিনি দাবি করেছেন, ৫ বছরই সেনার মুখ্যমন্ত্রী থাকবে এবং তাতে রাজি হয়েছে বাকি দুই দলও। কিন্তু এনসিপি এখনও তাতে পুরোপুরি সায় দেয়নি বলেই দলীয় সূত্রে খবর। তাই আগেভাগে মুখ্যমন্ত্রীর নাম ঘোষণা করে শেষ মুহূর্তে এসে জোটের সরকার গঠনের প্রক্রিয়ায় কোনও জটিলতা সৃষ্টি করতে চাইছে না শিবসেনা।

আরও পড়ুন: ৫ বছরই সেনার মুখ্যমন্ত্রী, চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের আগে দাবি সঞ্জয় রাউতের

আরও পডু়ন: পরকীয়ার জেরে আইনজীবী স্বামীকে খুন! স্ল্যাবের নীচে পুঁতে মাসখানেক সেখানেই রান্নাবান্না

অন্য দিকে, বৈঠকে বসেছে কংগ্রেসও। মহারাষ্ট্র বিধান ভবনের ওই বৈঠকেই তাদের বিধানসভার দলনেতা নির্বাচন করবে দল। আবার আজই কংগ্রেসের সঙ্গে শিবসেনা নেতাদের বৈঠকও রয়েছে। সেই বৈঠকে সরকার এবং জোটের চূড়ান্ত রূপরেখা তৈরি হওয়ার কথা। অভিন্ন ন্যূনতম কর্মসূচি নিয়েও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে ওই বৈঠকে।