চিকিৎসকের পরামর্শে ম্যাসাজ নিতে গিয়ে ব্ল্যাকমেলিংয়ের ফাঁদে পড়ে গেলেন ৬৮ বছরের এক বৃদ্ধ। পুলিশের তরফে সেই বৃদ্ধের নাম ধনরাজ সিন্ধি বলে জানানো হয়েছে। জানা গিয়েছে যে তিনি মুম্বইয়েরই এক চলচ্চিত্র পরিচালকের বাবা।

কয়েক মাস আগে শরীরে ব্যাথা হওয়ার কারণে চিকিৎসক ওষুধের পাশাপাশি ওই বৃদ্ধকে ম্যাসাজ নেওয়ারও পরামর্শ দেন। ওই সময়েই তাঁর ছেলে একজন ম্যাসিওরের খোঁজ-খবর শুরু করেন। লাকি মিশ্র নামের এক মহিলা সেই সময় যোগাযোগ করেন তাঁদের সঙ্গে। তিনিই ব্যবস্থা করে দেন ম্যাসাজ থেরাপিস্টের। ২০১৮-এর শেষ কয়েক মাসে সেই থেরাপিস্টের কাছে বেশ কয়েক বার ম্যাসাজ নেন ওই বৃদ্ধ।

দিন কয়েক আগে ওই বৃদ্ধকে ফোন করেন রাহুল শুক্ল নামের এক ব্যক্তি। ওই ব্যক্তি তাঁকে বলেন যে ‌ওই বৃদ্ধের আপত্তিকর অবস্থার ভিডিয়ো ক্লিপিং তাঁদের কাছে রয়েছে। ২৫ কোটি টাকা না পেলে তা ফাঁস করে দেওয়া হবে বলেও হুমকি দেওয়া হয়। কিন্তু তিনি টাকা দিতে রাজি না হলে ওই বৃদ্ধের ছেলেকেও ফোন করেন তিনি। তার পরেই বাধ্য হয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হন ওই বৃদ্ধ। পুলিশের তৎপরতায় মুম্বইয়ের লোখণ্ডওয়ালা থেকে  গ্রেফতার করা হয় রাহুল শুক্ল-সহ মোট পাঁচজনকে। গ্রেফতার করা হয় লাকি মিশ্র নামে ওই মহিলাকেও।

আরও পড়ুন: ভারতের প্রথম বুলেট ট্রেনের নাম দিয়ে জিতে নিন ৫০ হাজার টাকা

পুলিশের পরামর্শ অনুযায়ী ওই দলটির সঙ্গে ১২ কোটি টাকায় রফা করেন অনিল। তার পর লোখণ্ডওয়ালার একটি কফি শপে দেখা করতে বলা হয় তাঁদেরকে। সেখান থেকেই গ্রেফতার করা হয় ওই দলটিকে।

আরও পড়ুন: খবর থাকা সত্ত্বেও জওয়ানদের মৃত্যুর মুখে ঠেললেন, রাজনীতি করবেন বলে? আক্রমণাত্মক মমতা