আজকের ভারতে নিজের সন্তানদের নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তিত অভিনেতা নাসিরুদ্দিন শাহ। যদি কোথাও কোনও উত্তেজিত জনতা তাঁর সন্তানদের ঘিরে ধরে হিন্দু না মুসলিম জিজ্ঞেস করে, তা হলে কী হবে, সেই কথা ভেবেই শঙ্কিত নাসিরুদ্দিন শাহ। তাঁর কথায়, ‘‘এই প্রশ্ন করলে আমার ছেলে মেয়েদের কাছে কোনও উত্তর থাকবে না, কারণ আমরা ওঁদের ধর্মীয় শিক্ষা না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম।’’সারা দেশে বাড়তে থাকা হিংসার ঘটনার প্রেক্ষিতে নাসিরুদ্দিন শাহ-এর এই ভিডিয়ো বার্তা অনলাইনে প্রকাশ করেছে ‘কারবাঁ এ মোহব্বত’, যারা দীর্ঘ দিন ধরেই গণপিটুনি ও ঘৃণামিশ্রিত অপরাধের বিরুদ্ধে কাজ করে চলেছে।

একই সঙ্গে নাসিরুদ্দিন জানিয়েছেন, একটা ‘বিষ’ ছড়িয়ে পড়ছে ভারতীয় সমাজের অন্দরমহলে। তাঁর কথায়, ‘‘এই দৈত্যকে ফের বোতলে পুরে ফেলার কাজটা এখন খুবই কঠিন। যাঁরা নিজের হাতে আইন তুলে নিয়েছে, তাঁরাই এখন সুরক্ষিত। এক জন পুলিশ অফিসারকে মেরে ফেলার থেকে একটি গরুর মৃত্যুর ঘটনা এখন বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।’’

উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহরে পুলিশ অফিসার সুবোধকুমার সিংহকে পিটিয়ে মেরে ফেলার ঘটনার প্রেক্ষিতেই এই মন্তব্য করেছেন নাসিরুদ্দিন।

নিজের সন্তানদের নিরাপত্তা প্রসঙ্গে এই ভিডিয়োতে নাসিরুদ্দিন বলেছেন, ‘‘আমি ধর্মীয় শিক্ষা পেয়ে বড় হয়েছি। কিন্তু আমার স্ত্রী রত্না পাঠক ছোটবেলায় কোনও ধর্মীয় শিক্ষা পাননি। আমর দু’জনে ঠিক করেছিলাম, আমাদের সন্তানদের আমরা কোনও ধর্মীয় শিক্ষা দিয়ে বড় করব না। তাই কেউ ঘিরে ধরে কী ধর্ম জিজ্ঞেস করলে কোনও উত্তর থাকবে না ওদের কাছে। সব কিছু দেখে আমার খুব রাগ হয়, প্রত্যেক শুভবুদ্ধিসম্পন্ন মানুষেরই এই রাগ হওয়াটা স্বাভাবিক।’’

দেখুন পুরো ভিডিয়ো

নাসিরুদ্দিন শাহ-এর এই ভিডিয়ো বার্তা সামনে আসার পরই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক বিতর্ক। অনেকেই  যেমন তাঁর উদ্বেগের সঙ্গে সহমত পোষণ করেছেন, অনেকেই আবার বলেছেন ‘চমক’ তৈরির জন্য এই মন্তব্য নাসিরুদ্দিনের।

আরও পড়ুন: কর্নাটকে দাস প্রথা! ৫২ জন আদিবাসীকে আটকে রেখে চাবুকপেটা, যৌন নির্যাতন

শিবসেনা সাংসদ অরবিন্দ সবন্ত বলেছেন, ‘‘এই মন্তব্য করে বিরাট ভুল করেছেন নাসিরুদ্দিন। কেউ ঘিরে ধরলে ওঁর ছেলেমেয়েরা নিজেদের হিন্দুস্তানি বললেই তো সমস্যা থাকে না কোনও।’’নাসিরুদ্দিনের মন্তব্যের সমালোচনা করেছেন রাজ্যসভার সাংসদ এবং আরএসএস নেতা রাকেশ সিংহও। তাঁর মন্তব্য, ‘‘নিজের পরিবার ও দেশের নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তিত হলে নাসিরুদ্দিনের সবার আগে রোহিঙ্গা মুসলিমদের দেশ ছাড়তে বলা উচিত। উনি আসলে সুশীল সমাজের তৈরি করা ষড়যন্ত্র ছড়ানোর জন্যই এমনটা করেছেন।’’

আরও পড়ুন: মন্দির নির্মাণও বিজেপি-র ‘জুমলা,’ অভিযোগ শিবসেনার মুখপত্রে

(দেশজোড়া ঘটনার বাছাই করা সেরা বাংলা খবর পেতে পড়ুন আমাদের দেশ বিভাগ।)