• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘পুলওয়ামায় লাভবান হয়েছে কে? তদন্তে কী বেরল?’ বিজেপিকে কটাক্ষ রাহুলের

pulwama
পুলওয়ামার সেই ঘটনা। ইনসেটে, রাহুল গাঁধী। -ফাইল ছবি।

Advertisement

পুলওয়ামা কাণ্ডের বর্ষপূর্তির দিনে শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সরকারকে তীব্র কটাক্ষ করলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গাঁধী। প্রশ্ন তুললেন, পুলওয়ামা কাণ্ডের ‘হাওয়া’তেই কি গত লোকসভা নির্বাচনের বৈতরণী পেরিয়েছিল বিজেপি? তারাই কি সবচেয়ে বেশি লাভবান হয়েছে ওই ঘটনায়?

এ দিন তিনটি প্রশ্ন তুলে টুইট করেছেন রাহুল। লিখেছেন, ‘‘পুলওয়ামা কাণ্ডের বর্ষপূর্তির দিনে নিহত জওয়ানদের স্মরণ করার সময় এই তিনটি প্রশ্নের জবাব পাওয়াটা জরুরি হয়ে উঠেছে।’’

কারা লাভবান হয়েছেন, সেই প্রশ্ন তোলার পাশাপাশি রাহুল জানতে চেয়েছেন, পুলওয়ামা কাণ্ডের তদন্তে কী বেরিয়ে এল? নিরাপত্তার বজ্র আঁটুনির কোন কোন ফাঁক গলে ওই হামলা হয়েছিল? তার জন্য মোদী সরকারের কারা কারা দায়ী?

পুলওয়ামা কাণ্ডের পরপরই গত লোকসভা ভোটে জেতার জন্য বিজেপির মূল হাতিয়ার হয়ে উঠেছিল জাতীয়তাবাদী প্রচার। তখনই বিরোধীরা প্রশ্ন তুলেছিলেন, পুলওয়ামা কাণ্ডে কি বিজেপি-ই সবচেয়ে বেশি লাভবান হয়নি? রাহুলের এ দিনের টুইট সেই সমালোচনাকেই জোরালো করে তুলল। গত বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় সিআরপিএফ-এর ৪৪ জন জওয়ান নিহত হয়েছিলেন বিস্ফোরণে।

আরও পড়ুন- ট্রাম্পের সফরে কতটা লাভবান হবে ভারতের বাণিজ্য, সংশয়ে কূটনৈতিক মহল​ 

আরও পড়ুন- ‘ক্ষতি হয়তো কুকথাতেও’, দিল্লি হারের ব্যাখ্যায় অমিত​

রাহুলের টুইটের পর তার সমালোচনা করতে দেরি করেনি বিজেপি। দলীয় মুখপাত্র সম্বিত পাত্র রাহুলকে পাল্টা কটাক্ষ করে বলেছেন, ‘‘কে সবচেয়ে বেশি লাভবান হয়েছেন? রাহুল, আপনি কি লাভালাভ ছাড়া আর কিছুই বোঝেন না? এটাই সেই গাঁধী পরিবার, যাঁরা লাভালাভ ছাড়া কিছুই বোঝেন না! ওঁরা যে শুধুই দৃশ্যত দুর্নীতিগ্রস্ত, তাই নয়; ওঁরা অন্তরের দিক থেকেও দুর্নীতিগ্রস্ত।’’ 

তীব্র কটাক্ষ করেছেন বিজেপির তথ্যপ্রযুক্তি সেলের প্রধান অমিত মালব্য়ও। রাহুলকে পাল্টা প্রশ্ন করেছেন, ‘‘আপনি কি মনে করেন, পুলওয়ামা কাণ্ডের জন্য পাকিস্তান দায়ী নয়? পাকিস্তানকে কেন আপনি ক্লিনচিট দিতে এত উৎসাহী? বালাকোটে ভারতীয় সেনারা পাল্টা হানাদারি চালানোয় কি আপনি হতাশ?’’

পুলওয়ামা কাণ্ড নিয়ে এ দিন প্রশ্ন তুলেছেন সিপিওম পলিটব্যুরোর সদস্য মহম্মদ সেলিমও। নিহত সেনাদের স্মৃতিতে স্মারক না বানানোর দাবি জানিয়েছেন তিনি। বলেছেন, তাতে নিরাপত্তা ব্যবস্থায় নিজেদের গাফিলতিকেই স্বীকৃতি দেওয়া হবে।

সেলিমের প্রশ্ন, ‘‘সীমান্তে কড়া সেনা পাহারার নজর এড়িয়ে কী ভাবে ৮০ কিলোগ্রাম ওজনের আরডিএক্স বিস্ফোরক ঢুকল পুলওয়ামায়, সেটাই তো আমরা এখনও জানতে পারিনি। আগে এর তদন্ত হওয়া উচিত।’’

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন