‘রাহুর দশা’ কাটতে চলেছে টাকার! ডলারের সঙ্গে মান-মর্যাদার দাঁড়িপাল্লায় টাকাকে হয়তো আর ‘দুয়োরানি’ হয়ে থাকতে হবে না!

কপাল খুলছে ভারতীয় মুদ্রার। ডলারের সঙ্গে দৌড়ে টানা তিন মাস উত্তরোত্তর পিছিয়ে পড়ার পর ফের ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে টাকা। গত সোমবার থেকে। ডলারের তুলনায় তার ‘মান’ বেড়েছে ২.১ শতাংশ।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এটাই টাকার সুদিনের শুরু। আগামী বছর আর এতটা মুখ ভার করে থাকতে হবে না ভারতীয় মুদ্রাকে। তার দাম বাড়বে অন্তত ৩ শতাংশ। অপরিশোধিত তেলের দাম পড়ে গিয়ে মান বাড়বে টাকার।

আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম উত্তরোত্তর বেড়ে চলায় এ বছরের সেপ্টেম্বর থেকে ডলারের সঙ্গে দৌড়ে কিছুতেই এঁটে উঠতে পারছিল না টাকা। ক্রমশই পিছিয়ে পড়ছিল। শুধু এই বছরেই ডলারের তুলনায় টাকার ‘মান’ পড়ে ১০ শতাংশ। ২০১৩ সালের পর আর কখনও এতটা ‘রাহুগ্রস্ত’ হয়নি টাকা। আন্তর্জাতিক বাজার থেকে চড়া দামে তেল কেনার খেসারত দিতে গিয়ে টাকা এতটাই ‘দুয়োরানি’ হয়ে পড়েছিল যে, এশিয়ার অন্য কোনও দেশের মুদ্রাই আর দৌড়ে পাত্তা দেওয়ার প্রয়োজন মনে করছিল না ভারতীয় মুদ্রাকে।

কিন্তু সেই অপরিশোধিত তেলের দাম পড়তে শুরু করার পর নতুন ‘ইনিংস’ যে ভাবে শুরু করেছে টাকা, তাতে অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞদের আশা, বহু দিন পর আগামী বছর বলে বলে ছক্কা হাঁকাতে না পারলেও, উইকেট ধরে খেলতে পারবে টাকা। ডলারের সঙ্গে দৌড়ে ভারতীয় মুদ্রাকে ক্রমশই পিছিয়ে পড়তে হবে না। এই বছরের মতো। এ ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকবে রিজার্ভ ব্যাঙ্কেরও।

সিঙ্গাপুরের অর্থনৈতিক সমীক্ষক সংস্থা ‘নোমুরা হোল্ডিং’-এর স্ট্র্যাটেজিস্ট দুষ্যন্ত পদ্মনাভন বলেছেন, ‘‘আশা, আগামী বছর এশিয়ায় অন্য দেশগুলির মুদ্রাগুলির সঙ্গে টক্করে সবার চেয়ে এগিয়ে থাকবে টাকাই। সেই অগ্রগতি আগামী বছরের ৪টি ত্রৈমাসিকেই টাকা ধরে রাখতে পারবে।’’

আরও পড়ুন- টানা দৌড় টাকার, চাঙ্গা বাজারও​

আরও পড়ুন- সূচকে ধাক্কা ৭১৪ অঙ্ক, ফের কমল টাকার দাম​

অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞদের অনুমান, এই ত্রৈমাসিকেই তার মান বাড়বে অন্তত ৩ শতাংশ। তার ফলে, এশিয়ায় ইন্দোনেশিয়ার মুদ্রা ‘রুপিয়া’র পরেই মানে-দামে থাকবে টাকা।

দুবাইয়ের অর্থনৈতিক সমীক্ষক সংস্থা ‘এমিরেটস-এনবিডি-পিজেএসসি’র অধিকর্তা আদিত্য পুগালিয়া বলছেন, ‘‘২০১৯-র শেষে গিয়ে ডলারের তুলনায় টাকার দাম সর্বাধিক দাঁড়াবে ৭১.১৫। যার মানে, এক ডলার কিনতে খরচ হবে ৭১.১৫ টাকা।’’