গণপিটুনি, ঘৃণামিশ্রিত অপরাধ, গো-রক্ষার নামে হিংসা ও ভুয়ো খবর রুখতে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, তা জানতে রাজ্যগুলিকে সাত দিনের সময়সীমা দিল সুপ্রিম কোর্ট। সাত দিনের মধ্যে রিপোর্ট জমা না দিলে প্রতিটি রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিবকে শীর্ষ আদালতে হাজিরা দিতে হবে বলেও জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।  একই সঙ্গে কী ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে, সেই গাইডলাইন সরকারি ওয়েবসাইট ও অন্যান্য গণমাধ্যমেও প্রকাশ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

শেষ এক বছরে ন’টি রাজ্যে ৩১ টি ঘৃণামিশ্রিত হত্যার ঘটনায় উদ্বিগ্ন সুপ্রিম কোর্ট  জুলাই মাসেই রাজ্যগুলিকে অবিলম্বে ব্যবস্থা নেওয়া নির্দেশ দেয়। একই সঙ্গে  প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র, বিচারপতি এ এম খানউইলকার এবং ডি ওয়াই চন্দ্রচুড়ের বেঞ্চ গণপিটুনি আটকাতে কোনও নতুন আইন আনা যায় কিনা, তা নিয়েও কেন্দ্রকে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেয়।

বুধবারই এই নিয়ে মন্ত্রিগোষ্ঠীর সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ। কেন্দ্র সম্ভাব্য নতুন আইন নিয়ে বৈঠক করলেও অধিকাংশ রাজ্যই এখনও কোনও রিপোর্ট জমা দেয়নি। শুধু মাত্র ন’টি রাজ্য এখনও পর্যন্ত নিজেদের রিপোর্ট জমা দিয়েছে শীর্ষ আদালতের কাছে। যা নিয়ে ক্ষুব্ধ সুপ্রিম কোর্ট কড়া বার্তা পাঠালো রাজ্যগুলিকে।

আরও পড়ুন: গো-রক্ষার নামে হিংসা ৪১৫০% বাড়ল এই জমানায়!

আরও পড়ুন: জঙ্গিদের মুক্ত করার পরই সরানো হল জম্মু কাশ্মীরের পুলিশ প্রধানকে

রিপোর্ট জমা না দিলে সাত দিনের মধ্যে স্বরাষ্ট্রসচিবদের শীর্ষ আদালতে  হাজিরা দিতে হবে বলেও জানানো হয়েছে।

(ভারতের রাজনীতি, ভারতের অর্থনীতি- সব গুরুত্বপূর্ণ খবর জানতে আমাদের দেশ বিভাগে ক্লিক করুন।)