উত্তরপ্রদেশের জাহাঙ্গিরাবাদে পরিবারের সঙ্গে থাকেন শাহে আলম। গত ১৩ জুলাই তিনি বিয়ে করেন রুকসানা বানোকে। সেই বিয়েতে রুকসানার পরিবারের কাছে পণ হিসাবে মোটরবাইক চেয়েছিলেন আলম। কিন্তু বিয়ের দিন তাঁর সেই দাবি মেটাতে পারেনি রুকসানার পরিবার। সেই ‘অপরাধ’-এ বিয়ের ২৪ ঘণ্টা কাটার আগেই রুকসানাকে তিন তালাক দিলেন আলম।

বিয়ের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই এই বিচ্ছেদে হকচকিয়ে যান রুকসানা। এর পর বিয়ের কাজ মিটে গেলে পুলিশের দ্বারস্থ হন তিনি। পুলিশ জানিয়েছে, রুকসানার বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে আলম ও তাঁর পরিবারের ১২ জনের বিরুদ্ধে  মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এই ঘটনা নিয়ে পুলিশ সুপার আকাশ তোমর জানিয়েছেন, ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্ত শেষ হলেই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিন তালাক নিয়ে বিগত বছরগুলিতে আলোচনার ঝড় বয়েছে ভারতীয় রাজনীতিতে। ২০১৭তে এই প্রথাকে অসাংবিধানিক অ্যাখ্যাও দিয়েছিল দেশের শীর্ষ আদালত। কিন্তু তাঁর পরেও পরিস্থিতির যে খুব বেশি বদল ঘটেনি, তা দেখিয়ে দিল উত্তরপ্রদেশের এই ঘটনা। 

আরও পড়ুন: অবিবাহিত মেয়েদের মোবাইলে নিষেধাজ্ঞা! ‘ভিন জাতে’ বিয়ে করলে জরিমানা দেড় লাখ

আরও পড়ুন: গণটুকলি! ৯৫৯ জন পরীক্ষার্থীর উত্তরপত্রে একই ভুল