খুব জোরে গাড়ি চালিয়ে দিয়ে পিষে মারা হল দুই প্রবীণ দলিত মহিলাকে। গুরুতর জখম হলেন আরও দুই পথচারী। উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহরে সোমবার রাতের ঘটনা। প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগের ভিত্তিতে পুলি‌শ একটি মামলা রুজু করেছে।

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, যে দুই মহিলাকে পিষে মারা হয়েছে, কিছু দিন আগে তাঁদেরই পরিবারের এক যুবতীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেছিল স্থানীয় এক যুবক।

ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গিয়েছে, রাস্তা দিয়ে হাঁটছিলেন ওই দুই প্রবীণ দলিত মহিলা। হঠাৎই একটি গাড়ি পিছন থেকে খুব জোরে এসে তাঁদের ধাক্কা মারে। তাঁরা রাস্তায় পড়ে গেলে, গাড়িটি দু’জনকে পিষে দিয়ে চলে যায়। ওই সময় রাস্তায় হাঁটছিলেন আরও কয়েক জন। গাড়ির ধাক্কায় তাঁদের দু’জন গুরুতর জখম হন। এর পরেই এলাকায় ভিড় জমে যায়।

 

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, কিছু দিন আগে ওই দুই প্রবীণ দলিত মহিলার পরিবারের ২২ বছরের এক যুবতীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেছিল এলাকারই বছর তিরিশের এক যুবক। কিন্তু যুবতীর বাধায় ব্যর্থ হয় যুবকটি। তার পর থেকেই ওই দলিত পরিবার টার্গেট হয়ে গিয়েছিল যুবকটির কাছে।

আরও পড়ুন- মন্দিরে ঢুকতে যাওয়ার ‘শাস্তি’, দলিত কিশোরের হাত-পা বেঁধে মার!​

আরও পড়ুন- ঝাড়খণ্ডে গণপিটুনিতে মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেফতার ১১, বরখাস্ত দুই পুলিশ অফিসার​

এক স্থানীয় বাসিন্দার তোলা ভিডিয়োয় ২২ বছরের সেই যুবতীকে বলতে শানো গিয়েছে, ব্যর্থ হওয়ার পর থেকেই তাঁকে ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের নানা ভাবে খুনের হুমকি দেওয়া হচ্ছিল। এমনকি, দুই প্রবীণ মহিলাকে পিষে মারার মিনিটকয়েক আগেও যুবতীকে ফোন করে হুমকি দিয়েছিল উচ্চ বর্ণের ওই যুবক।

বুলন্দশহরের সিনিয়র পুলিশ অফিসার অতুল শ্রীবাস্তব বলেছেন, ‘‘প্রথমে আমরা ভেবেছিলাম ট্রাকের তলায় পড়ে মৃত্যু হয়েছে ওই দুই মহিলার। কিন্তু পরে ওই পরিবারের তরফে আমাদের কাছে লিখিত ভাবে অভিযোগ জানানো হয়, এই ঘটনার সঙ্গে আগের শ্লীলতাহানির ব্যর্থ চেষ্টার যোগসাজশ রয়েছে। এর পর আমরা এফআইআর করেছি।’’