• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মাল্য সৎ, একবার ঋণখেলাপেই কেউ চোর হয়ে যায় না! বেফাঁস মন্তব্য গডকড়ীর

Nitin Gadkari
নিতিন গডকড়ী। —ফাইল চিত্র।

মোদী সরকারের অস্বস্তি বাড়িয়ে ফের বেফাঁস গডকড়ী। সম্প্রতি ব্যাঙ্কের ঋণখেলাপি মামলায় যাঁকে দেশে ফেরানোর নির্দেশ পেয়ে ‘বড় জয়’ মন্তব্যে উচ্ছ্বসিত ছিল মোদী সরকার। সেই সরকারেরই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নিতিন গডকড়ীকে ঋণখেলাপি মামলায় অভিযুক্ত বিজয় মাল্যের প্রতি অত্যন্ত সহানুভূতিশীল শোনাল। বিজয় মাল্য একেবারেই ‘চোর’ নয়, মন্তব্য তাঁর।

বৃহস্পতিবার মুম্বইয়ে ভারতীয় অর্থনীতি সংক্রান্ত একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণ মন্ত্রী নিতিন গডকড়ী। সেখানেই ভারতের বর্তমান অর্থনৈতিক প্রসঙ্গ উঠে আসে। উঠে আসে বিজয় মাল্য, নীরব মোদীদের মতো ব্যবসায়ীদের কথা, যাঁরা ব্যাঙ্ক থেকে বিপুল ঋণ নিয়ে শোধ দেননি, উল্টে দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন। বিজয় মাল্য প্রসঙ্গে গডকড়ীর মন্তব্য, ‘‘৪০ বছর ধরে মাল্য নিয়মিত ঋণ শোধ করে আসছেন, ৪০ বছর পর যখন তিনি উড়ান সংস্থায় গেলেন... যিনি টানা ৫০ বছর ঋণ শোধ করবেন তিনি ঠিক, আর একবার সময়ে ঋণ শোধ করতে না পারলেই তিনি সঙ্গে সঙ্গে চোর হয়ে গেলেন?’’এই ধরনের মানসিকতা একেবারেই সমর্থনযোগ্য নয়, মন্তব্য গডকড়ীর।

উল্টে গডকড়ীর মতে,‘‘প্রত্যেক ব্যবসায় চড়াই-উতরাই থাকবেই। ভুলও হতে পারে। কোনও ব্যক্তি যদি বিপত্তির মধ্যে পড়ে যান, তাহলে তাঁকে প্রতারক দেগে দেওয়ার বদলে আমাদের উচিত তাঁর সাহায্যে এগিয়ে আসা। তা না হলে দেশের অর্থনীতির প্রসার কোনওভাবেই সম্ভব নয়। কারণ, এমন একটা ভুল হতেই পারে, সেই ভুলটা ইচ্ছাকৃত না হলেই হল। আজকাল মানুষের প্রতি আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি বদলে গিয়েছে। একটু কিছু হলেই আমরা তাঁকে চোর দেগে দিই। এটা উচিত নয়।’’ মাল্যর পাশে দাঁড়ানোর জন্য যাতে কেউ তাঁকে ভুল না বোঝেন, তাই এটাও স্পষ্ট করে দিয়েছেন, মাল্যর সঙ্গে তাঁর কোনও ব্যবসায়িক সম্পর্ক নেই। কথাগুলো বলার পিছনে তাঁর কোনও ব্যক্তিগত স্বার্থ কাজ করছে না।

আরও পড়ুন: রাফাল চুক্তিতে গলদ নেই, কোনও তদন্ত নয়, জানাল সুপ্রিম কোর্ট, স্বস্তিতে কেন্দ্র

বছরখানেক আগে লন্ডনের ওয়েস্টমিনস্টার ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে মাল্যের প্রত্যর্পণের মামলা শুরু হয়। সওয়ালের সময়ে সিবিআইয়ে দুর্নীতি, ভারতীয় রাজনীতিকদের কাজকর্ম, জেলের অবস্থার মতো নানা চিত্র তুলে ধরেছিলেন মাল্যের আইনজীবীরা। কিন্তু শেষমেশ তার কোনও কিছুই টেকেনি। গত সোমবার ভারতে ৯ হাজার কোটি টাকার ব্যাঙ্ক প্রতারণায় অভিযুক্ত প্রাক্তন কিংফিশার কর্ণধার বিজয় মাল্যের প্রত্যর্পণে সায় দিয়েছে ব্রিটেনের আদালত। এই রায় ভারতের পক্ষে বড় জয় বলে দাবি করেছিলেন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি।

আরও পড়ুন: রাজস্থান-ছত্তীসগঢ়ের সিদ্ধান্ত আজ, মুখ্যমন্ত্রীর দৌড়ে এগিয়ে গহলৌত-বাঘেল

গডকড়ী বারবারই এমন বেফাঁস মন্তব্য করে থাকেন। এর আগে প্রকাশ্যে দাবি করেছিলেন, মোদীই তাঁকে বলেছেন ‘অচ্ছে দিন’ এখন গলার কাঁটা হয়ে গিয়েছে। সম্প্রতি দেশে ‘চাকরি নেই’ বলেও মোদীর অস্বস্তি বাড়ান। আর এ বারও বিপরীতে গিয়ে মাল্য নিয়ে গডকড়ীর মন্তব্য কেন্দ্রকে বেশ অস্বস্তিতে ফেলে দিয়েছে। বিরোধীদের আক্রমণের ধার বাড়ানোরও সুযোগ করে দিয়েছেন।

 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন