পশুপাখিদের উপর অত্যাচারের অনেক বীভত্স দৃশ্য ধরা পড়েছে আগেও। কিন্তু বিহারে যে ঘটনা সামনে এল তা যেন সব বীভত্সতাকে ছাপিয়ে গেল। তাও আবার সরকারি মদতে। অভিযোগ, একটি নীলগাইকে জ্যান্ত কবর দিয়ে দেয়বিহারের বৈশালী জেলা কর্তৃপক্ষ। সেই ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। বৈশালীরবিধায়ক ভিডিয়োটিকে জাল বলে দাবি করেও পরে অবশ্য অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন।

বিহারের বৈশালী জেলার কৃষকরা নাকি বার বার অভিযোগ করছিলেন, নীলগাই তাদের সব ফসল খেয়ে যাচ্ছে। তাই বৈশালী জেলার বনবিভাগ পেশাদার শুটার ভাড়া করে। তাদের দায়িত্ব ছিল নীলগাইদের গুলি করে মারা। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ৪ দিনে প্রায় ৩০০ নীলগাইকে গুলি করে মেরেছে সেই সব শুটাররা। তাদের মধ্যে অনেকেগুলি খেয়ে ঘটনাস্থলেই মারা গিয়েছে।

হতভাগ্য সেই সব নীলগাইদের মধ্যে এটির ভাগ্য মনে হয় সব থেকে খারাপ ছিল। যেখানে গুলি খাওয়া আহত নীলগাইটিকে নৃশংসভাবে গর্তে ফেলে চাপা দিয়ে দেওয়া হয়।ভিডিয়োটি আদিত্য জোশী নামে এক ব্যক্তির টুইটার হ্যান্ডেলে আপলোড হয়েছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে, গর্তের ধারে বসে রয়েছে একটি নীলগাই। জেসিবি মেশিন দিয়ে তাকে গর্তে ফেলে দেওয়া হল। তারপর মাটি চাপা দিয়ে দেওয়া হল।

আরও পড়ুন : ৭৪ বছরের প্রথমবার মা হলেন মহিলা, চিকিত্সকদের দাবি, নতুন রেকর্ড

আরও পড়ুন : বৈঠকে বসে মোদী বাজাচ্ছেন তবলা আর পুতিন খেলছেন ঘড়ি নিয়ে!

চলতি মাসের ৪ তারিখে ভিডিয়োটি পোস্ট হয়েছে। এক মিনিট ৩৫ সেকেন্ডের এই ভিডিয়োটি এখনও পর্যন্ত প্রায় ৩২ হাজার ইউজার দেখেছেন। ভিডিয়োটি প্রকাশ্যে আসতেই তীব্র নিন্দা শুরু হয়েছে। এই নীলগাই হত্যা অভিযান নাকি শুরু হয়েছে বৈশালীর বিধায়ক রাজকিশোর সিংহের উদ্যোগে।আর এই কাজে রাজ্য সরকার ও স্থানীয় প্রশাসন যুক্ত রয়েছে বলেও অভিযোগ।

এখন ভিডিয়োটি প্রকাশ্যে চলে আসতেই বিধায়ক রাজকিশোর সিংহ দাবি করছেন, এটি মিথ্যা অভিযোগ। যে ভিডিয়োটি আপলোড হয়েছে সেটি জাল ভিডিয়ো। পরে অবশ্য তিনি দাবি করেন, নীলগাইকে জীবন্ত কবর দেওয়া অমানবিক। তবে তিনি বিষয়টি সম্পর্কে কিছুই জানেন না বলেও দাবি করেছেন। তিনি এও দাবি করেন যে, তিনি জেলাশাসককে অনুরোধ করেছিলেন, শুটার ডেকে নীলগাইকে গুলি করে তাদের সংখ্যা কমাতে। তারপর বনদফতর শুটার ডাকে এবং অনেক গ্রামে নীলগাইদের গুলি করা হয়। কিন্তু এভাবে জীবন্ত কোনও নীলগাইকে কবর দেওয়ার ঘটনা ঘটলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান রাজকিশোর।