সব্জি কেনার জন্য ৩০ টাকা চেয়েছিলেন। এটাই ছিল ‘অপরাধ’। সেই ‘অপরাধেই’ বেধড়কমার খেতে হল এক মহিলাকে। এখানেই শেষ নয়, টাকা চাওয়ার অপরাধে তিন তালাক শুনতে হল তাঁকে। উত্তরপ্রদেশের গ্রেটার নয়ডার দাদরি এলাকার ঘটনা।

পুলিশের কাছে অভিযোগে জাইনাব নামে বছর তিরিশের ওই মহিলা জানিয়েছেন, গত শনিবার ২৯ জুন সব্জি কেনার জন্য স্বামী সাবিরের কাছে ৩০ টাকা চেয়েছিলেন। কেন বেশি টাকা চাওয়া হচ্ছে, এই নিয়ে তর্ক শুরু হয় স্বামীর সঙ্গে। তর্ক এমন জায়গায় পৌঁছয় উত্তেজিত হয়ে মারধর শুরু করেন স্বামী। সেই সঙ্গে তিন তালাক দেন সাবির, এমনটাই অভিযোগ জাইনাবের।

স্বামী একাই নন মারধর করেন তাঁর দেওর জাকির, ননদ সামা ও শাশুড়ি নাজো। এমনকি তাঁকে ইলেক্ট্রিক শক দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ করেছেন জাইনাব। মারধরের খবর পেয়ে বোনের শ্বশুরবাড়ি পৌঁছন জাইনাবের ভাই। সেখান থেকেতাঁকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যান চিকিত্সার জন্য।

আরও পড়ুন : গন্ধ শুঁকে দৈত্যাকার শামুক খুঁজে বার করল বিগল!

আরও পড়ুন : মহাকাশ থেকে তোলা অগ্ন্যুত্পাতের ছবি প্রকাশ নাসার

দাদরি থানার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ আধিকারিক নিরজ মালিক জানিয়েছেন, ৩০ জুন সাবির ও তাঁর পরিবারের অন্য সদস্যদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। যদিও সাবির জামিন পেয়ে গিয়েছেন। পাশাপাশি জাইনাবের অভিযোগও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তাঁর শারীরিক পরীক্ষা করে দেখা হয়, তাঁকে কোনও ইলেক্ট্রিক শক দেওয়া হয়েছিল কিনা। সেই অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

জাইনাবকে আপাতত তাঁর বাপের বাড়িতে রাখা হয়েছে। তিন সন্তানও তাঁর সঙ্গেই গিয়েছে।