Advertisement
০৩ মার্চ ২০২৪

একটি ফ্রেমের গল্প

কেমন হওয়া চাই চশমার ফ্রেম? যাতে প্রয়োজনের সঙ্গে মেটে ফ্যাশনের চাহিদাও। খোঁজ রইল...কেমন হওয়া চাই চশমার ফ্রেম? যাতে প্রয়োজনের সঙ্গে মেটে ফ্যাশনের চাহিদাও।

অন্তরা মজুমদার
শেষ আপডেট: ০৯ মার্চ ২০১৯ ০০:০০
Share: Save:

চশমা পরা বহু দিন ধরেই নেহাত প্রয়োজনীয়তায় আটকে নেই। স্টাইলিশ চশমার ফ্রেম এখন রীতিমতো স্টেটমেন্ট। কলেজপড়ুয়া থেকে কর্পোরেট চাকুরে— সকলের জন্যই চশমা একটা বুদ্ধিদীপ্ত স্মার্ট লুক হতে পারে বলে মনে করছেন রূপ বিশেষজ্ঞরা। নিয়ম মেনে আর ট্রেন্ড জেনে ঠিক পোশাকের সঙ্গে মানানসই চশমা পরলে সেটাই কিন্তু হয়ে যেতে পারে ফ্যাশন। আগেকার সেই ধারণা এখন বাতিল যে, চশমা পরলে মুখের বয়স বেড়ে যায়!

মুখের শেপ দেখে ফ্রেম

কোন মুখে কেমন ফ্রেম মানাবে, তা নিয়ে একটা দোলাচলে ভোগেন অনেকেই। তার গাইডলাইন রইল...

চৌকো মুখ: এই ধরনের মুখে সাধারণত চোয়াল বেশ চওড়া হয়। কপালের অংশ হয় কাটা কাটা। চোয়াল ও ভুরুর সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে আয়তাকার বা ডিম্বাকার ফ্রেম বাছতে পারেন। মানাবে এভিয়েটর ফ্রেমের গ্লাসও।

পান পাতা মুখ: এই মুখে কপাল খানিক ছড়ানো হলেও চোয়ালের কাছে ক্রমশ সরু হয়ে এসে হার্ট শেপ নেয়। তাই সরু ফ্রেমের চশমা এই মুখের ক্ষেত্রে সুন্দর মানাবে। হাফ রিম, ক্যাট্‌স আই বা গোল ফ্রেমের চশমা বাছতে পারেন।

গোলাকার: এই মুখে সাধারণত কপাল থেকে চোয়াল পর্যন্ত একটা সমান মাপের আদল হয়। তবে মেদ জমলে একটু বেশি মোটা লাগতে পারে। তাই জ্যামিতিক শেপের ফ্রেম বাছলে একটা ব্যালান্স আসবে চেহারায়। ওয়েফেয়ারার, ক্যাট্‌স আই বা আয়তাকার ফ্রেম নিতে পারেন।

ডিম্বাকার:ডিম্বাকৃতি মুখের আদলকে সবচেয়ে নিখুঁত শেপ মনে করা হয়। ফলে যে ফ্রেমই বাছুন না কেন, মানিয়ে যাবে। সে ফ্রেম ক্লাবমাস্টার হোক, গোল হোক বা চৌকো হোক।

ফ্রেমের রকমফের

চশমা পরলে একটা চিন্তা কিন্তু মেয়েদের সর্বক্ষণ ভাবায়। চশমার কাচের আড়ালে সুন্দর চোখ দুটো যে ঢেকে যাচ্ছে! তা হলে উপায়? পরোয়া নেই। চশমায় স্টাইলিশ হতে চাইলে প্রথমেই বেছে নিন যুগোপযোগী ফ্রেম। তার সঙ্গে জানা প্রয়োজন, কোন ধরনের পোশাক ও পেশার সঙ্গে কেমন ফ্রেম মানানসই।

•আপনি যদি অফিসে কর্মরতা হন, তা হলে কর্পোরেট ড্রেস কোড মেনে ফর্ম্যাল বা সেমি ফর্ম্যাল অফিস ওয়্যারের সঙ্গে বেছে নিতে পারেন এভিয়েটর ফ্রেমের গ্লাস। স্মার্ট লাগবে।

•কলেজপড়ুয়া বা ক্রিয়েটিভ এজেন্সিতে চাকরিরত মহিলারা একটু অ্যাডভেঞ্চারাস হন। মুখের সঙ্গে মানিয়ে ক্যাট্‌স আই ফ্রেমের কথা ভাবতে পারেন। এখন নানা রকম প্রিন্টের ফ্রেমও পাওয়া যায়, সেগুলোও দারুণ মানাবে।

•আপনার কাছে যদি স্টাইলই শেষ কথা হয়, তা হলে মাল্টিপল ফ্রেমের চশমা বেছে নিতে পারেন। পোশাক অনুযায়ী পাল্টে নেওয়া যাবে ফ্রেমের সাইডস।

•আপনি যদি এথনিক পোশাকে কমফর্টেবল হন, তা হলে মুখের সঙ্গে মানানসই ভিনটেজ ওয়েফেয়ারার ফ্রেম বাছুন।

সাজ হোক মানানসই

এ বার আসা যাক মেকআপের প্রসঙ্গে। চশমা পরেও নিজেকে কী ভাবে প্রেজ়েন্টেবল করবেন, তার জন্য কয়েকটা জিনিস মাথায় রাখুন।

•মোটা ফ্রেমের চশমা পরলে গাঢ় রঙের লিপস্টিক পরুন। সে ক্ষেত্রে চোখে হালকা মেকআপ করলেও চলে যাবে।

•ক্যাট্‌স আই ফ্রেমে এমনিতেই মুখে একটা ট্রেন্ডি লুক আসে। তার সঙ্গে চোখ দুটো আরও আকর্ষক করে তুলতে চাইলে ভাল ব্র্যান্ডের মাসকারা লাগিয়ে নিন। এতে অনেক সময়ে চশমায় চোখের পাতা আটকে ঝামেলা হতে পারে, তাই মাসকারা ভাল করে শুকোলে তবেই চশমা পরুন। চাইলে ফলস আইল্যাশও লাগাতে পারেন। সে ক্ষেত্রে আইল্যাশ লাগিয়ে মাসকারা লাগাতে হবে।

•ফ্রেমের সঙ্গে মানিয়ে আইলাইনার লাগান। একটু মোটা করে টানবেন। এতে চোখের ভাষা বদলে যাবে।

•চশমার ফ্রেম চোখের উপরের কতটা অংশ ঢেকে রাখছে, সেই বুঝে আইশ্যাডো ব্যবহার করুন। আইশ্যাডো ফ্রেমের বাইরে চলে গেলে কিন্তু দেখতে ভাল লাগবে না।

•ভুরুর শেপ খুব গুরুত্বপূর্ণ। চশমা পরা মুখে যদি আইব্রো‌জ় প্লাক করা না থাকে, সে ক্ষেত্রে আইব্রো পেন্সিল দিয়ে শেপটা সুন্দর করে এঁকে নিন।

তাই চশমাটা খুলে আর পাশে রেখে দেবেন না। বরং সাজ সম্পূর্ণ করতে চশমাই হোক দোসর।

ছবি: অমিত দাস; মডেল: রিয়া ভট্টাচার্য, তৃণা, রিয়া বণিক; মেকআপ: অভিজিৎ পাল; পোশাক: ফ্যানেট্টা মাল্টি লেবেল স্টোর, বালিগঞ্জ ফাঁড়ি: চশমা: নোভা আইওয়্যার; ফুড পার্টনার: মিসেস উইলসনস কাফে

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE