• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বিনোদন

গুণমুগ্ধদের প্রত্যাখ্যান করে হবু স্বামীর খোঁজ সাক্ষাৎকারে, অভিনয় ছেড়ে বিদেশে কেমন আছেন মীনাক্ষী

শেয়ার করুন
১৫ 1
প্রথম ছবির পরেই ছাড়তে চেয়েছিলেন অভিনয়। কিন্তু পারেননি। রাতারাতি তারকা হয়ে পৌঁছেছিলেন খ্যাতির শীর্ষে। সেই অবস্থায় থেকেই ছেড়ে দিলেন অভিনয়। এ বার আর সিদ্ধান্ত পাল্টালেন না। অভিনয় থেকে দূরে কেমন আছেন আটের দশকের তারকা, মীনাক্ষী শেষাদ্রি? (ছবি: ফেসবুক)
১৫ 2
ঝাড়খণ্ডের এক তামিল পরিবারে ১৯৬৩ সালের ১৬ নভেম্বর জন্ম মীনাক্ষীর। ছোট থেকেই চাররকম ধ্রুপদী নৃত্য ভরতনাট্যম, কুচিপুড়ি, কত্থক ও ওডিশিতে প্রশিক্ষিত। ১৯৮১ সালে মাত্র ১৭ বছর বয়সে তিনি ‘মিস ইন্ডিয়া’র শিরোপা লাভ করেন। সে বছর তিনি টোকিয়োতে ‘মিস ইন্টারন্যাশনাল’-এর মঞ্চেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। কিন্তু সাফল্য পাননি। (ছবি: ফেসবুক)
১৫ 3
১৯৮৩ সালে তাঁর আত্মপ্রকাশ বড় পর্দায়। প্রথম ছবি ‘পেন্টার বাবু’-তে তাঁর বিপরীতে নায়ক ছিলেন মনোজ কুমারের ভাই রাজীব গোস্বামী। দ্বিভাষিক এই ছবি মুক্তি পেয়েছিল তেলুগু ও হিন্দিতে। (ছবি: ফেসবুক)
১৫ 4
প্রথম ছবির পরেই অভিনয় ছেড়ে দেবেন বলে ঠিক করেছিলেন। কিন্তু তাঁর সিদ্ধান্ত পাল্টাতে বাধ্য করেন পরিচালক সুভাষ ঘাই। তাঁর পরের ছবি ‘হিরো’-তে তিনি নায়িকার ভূমিকায় নেন মীনাক্ষীকে। বিপরীতে, নায়ক নবাগত জ্যাকি শ্রফ। ব্লকবাস্টার ‘হিরো’ রাতারাতি তারকা বানায় মীনাক্ষীকে। (ছবি: ফেসবুক)
১৫ 5
কিছু ছবি ব্যর্থ হওয়ার পরে রাজেশ খন্না এবং রজনীকান্তের সঙ্গে ‘বেওয়াফাই’ ছবিতে অভিনয়। ১৯৮৫ সালের সবথেকে বক্সঅফিস সফল ছবি ছিল এটি। এই ছবির পরে ইন্ডাস্ট্রিতে পায়ের তলায় জমি শক্ত হয় মীনাক্ষীর। (ছবি: ফেসবুক)
১৫ 6
এরপর অভিনয়ের সুযোগ পেতে সমস্যা হয়নি মীনাক্ষীর। ‘মেরা জবাব’, ‘আঁধি তুফান’, ‘মেরি জঙ্গ’, ‘মেরি জঙ্গ’, ‘জুর্ম’, ‘ইনকাম দশ হাজার’, ‘ইন্তেকাম’, ‘শাহেনশা’, ‘বিজয়’, ‘ঘর পরিবার’, ‘আদমি খিলোনা হ্যায়’, ‘ঘাতক’ তাঁর অভিনীত উল্লেখযোগ্য ছবি।
১৫ 7
তবে যে ছবি আর মীনাক্ষীর নাম প্রায় সমার্থক, তা হল ‘দামিনী’। ১৯৯৩ তে মুক্তিপ্রাপ্ত ছবির নায়িকা ছিলেন মীনাক্ষী। এক প্রতিবাদিনীর ভূমিকায় মীনাক্ষীর বলিষ্ঠ অভিনয় দর্শকের মনে দাগ কেটে যায়। (ছবি: ফেসবুক)
১৫ 8
মীনাক্ষী সম্বন্ধে বলা হয়, অভিনয় না করে তিনি শুধু নৃত্যশিল্পী হিসেবেও প্রতিষ্ঠিত হতে পারতেন। ‘হিরো’, ‘শাহেনশা’, ‘বিজয়’, ‘গঙ্গা যমুনা সরস্বতী’, ‘জুর্ম’, ‘ঘাতক’ ছবিতে মীনাক্ষীর পারফরম্যান্স অনবদ্য। ‘দামিনী’ ছবিতে তাঁর ‘তাণ্ডব’ নাচ-কে বলা হয় হিন্দি সিনেমার ইতিহাসে একটি মাইলফলক। নয়ের দশকে ‘খাজুরাহো’ উৎসবে তাঁর নাচ ছিল মুখ্য আকর্ষণ। (ছবি: ফেসবুক)
১৫ 9
১৯৯০ সালে ‘ঘায়েল’ ছবির সময়ে মীনাক্ষীর প্রেমে পড়েন পরিচালক রাজকুমোর সন্তোষী। পরে একা সাক্ষাৎকারে তিনি স্বীকারও করেন, মীনাক্ষীকে তিনি বিয়ে করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তাঁর প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন নায়িকা। পরে সন্তোষীর পরিচালনায় তিনি অভিনয় করলেও সম্পর্কে কোনওদিন রাজি হননি। তাঁর কাছে প্রত্যাখ্যাত হয়ে রাজকুমার সন্তোষী মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছিলেন। (ছবি: ফেসবুক)
১০১৫ 10
কেরিয়ারের সেরা সময়ে মীনাক্ষী ছিলেন সবথেকে বেশি পারিশ্রমিক পাওয়া নায়িকা। বলিউডে প্রতিষ্ঠিত এক গায়কের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক ঘিরে গুঞ্জন শোনা গিয়েছে। মীনাক্ষীর জন্যই নাকি ভেঙে যায় স্ত্রীর সঙ্গে ওই গায়কের দাম্পত্য। পরে সম্পর্ক থেকে সরে আসেন ওই গায়ক এবং মীনাক্ষীও। (ছবি: ফেসবুক)
১১১৫ 11
স্বামী হরিশের সঙ্গে মীনাক্ষীর যোগাযোগের মাধ্যমও বেশ অদ্ভুত। মীনাক্ষীর সাক্ষাৎকার নিতে এসে জনৈক সাংবাদিক জানতে পারেন, তিনি সেটল করার কথা ভাবছেন। তখনই কথায় কথায় পাত্র হিসেবে নিজের ভাইয়ের নাম প্রস্তাব করেন ওই সাংবাদিক। আমেরিকায় গিয়ে নিজেই হবু স্বামী হরিশের সঙ্গে আলাপ করেন মীনাক্ষী। প্রথম আলাপেই দু’জনের দু’জনকে ভাল লাগে। বিয়ের সিদ্ধান্ত নিতে দেরি হয়নি। (ছবি: ফেসবুক)
১২১৫ 12
কেরিয়ারে শীর্ষে থাকতেই ১৯৯৫ সালে মীনাক্ষী বিয়ে করেন ইনভেস্টমেন্ট ব্যাঙ্কার হরিশ মাইসোরকে। এরপর মাত্র একটি ছবি, ১৯৯৬ সালে মুক্তি পাওয়া ‘ঘাতক’-এ তাঁকে দেখা গিয়েছিল নায়িকা হিসেবে। সে বছরই ‘স্বামী বিবেকানন্দ’ ছবিতে ছোট ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন তিনি। (ছবি: ফেসবুক)
১৩১৫ 13
বিয়ের পরে ইন্ডাস্ট্রিকে বিদায় জানান মীনাক্ষী। এখন তিনি আমেরিকার টেক্সাসের বাসিন্দা। স্বামী এবং দুই সন্তানকে নিয়ে ভরপুর সংসারী। হরিশ-মীনাক্ষীর ছেলের নাম জোশ এবং মেয়ের নাম কেন্দ্রা। (ছবি: ফেসবুক)
১৪১৫ 14
২০১৬ সালে ‘ঘায়েল ওয়ান্স এগেইন’ ছবিতে তিনি কাজ করেছিলেন ছোট ভূমিকায়। এর বাইরে ভবিষ্যতে অভিনয়ের ইচ্ছে প্রকাশ করেননি তিনি। ১৯৯৯ সালে শেখর সুমনের টক শো-এ অতিথি ছিলেন মীনাক্ষী। সেখানেও তাঁর কথায় প্রাধান্য পেয়েছিল সংসারী ভূমিকাই। (ছবি: ফেসবুক)
১৫১৫ 15
অভিনয় ছাড়লেও নাচ এখনও মীনাক্ষীর সঙ্গী। তিনি আমেরিকায় নাচ শেখান। তাঁর নৃত্য প্রতিষ্ঠানের নাম ‘চেরিশ ডান্স স্কুল’। পাশ্চাত্যে ভারতীয় ধ্রুপদী নৃত্যের প্রসারই এখন মূল লক্ষ্য অতীতের তারকা মীনাক্ষীর। (ছবি: ফেসবুক)

Advertisement

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
বাছাই খবর
আরও পড়ুন