গত মরশুমে রঞ্জি ট্রফির নকআউট পর্বে বিতর্কিত আম্পায়ারিং নিয়ে বিস্তর জলঘোলা হয়। সেই বিষয়টি মাথায় রেখে এবার সুপ্রিম কোর্টের অধীনে থাকা কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্স (সিওএ)আসন্ন মরশুমে রঞ্জি ট্রফির নকআউট পর্বে ডিআরএস আনতে চলেছে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে যেমন দুই দলই যেমন ডিআরএস পায়, রঞ্জিতেও দলগুলি তেমনই পাবে বলে জানা গিয়েছে।

এই সিদ্ধান্ত প্রসঙ্গে জেনারেল ম্যানেজার অফ ক্রিকেট অপারেশনস সাবা করিম বলেন, "গত মরশুমে রঞ্জি ট্রফির নকআউট পর্বে আম্পায়াররা বেশ কিছু বিতর্কিত সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। কিছু মারাত্মক ভুল করেন তাঁরা। তাই এবার থেকে আমরা রঞ্জির নকআউট পর্বে নির্দিষ্ট সংখ্যায় ডিআরএসের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।”

আরও পড়ুন: দুর্দান্ত স্ট্রাইক রেট, গড় পঞ্চাশের উপর, তবুও বাদ শুভমন!

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপের দল থেকে রায়ুডু বাদ কেন? অবশেষে মুখ খুললেন নির্বাচক প্রধান

সিওএ-র সঙ্গে বিসিসিআইয়ের সম্পর্কের টানাপড়েন চলছে বহু দিন ধরেই।সেই ‘রীতি’ বজায় রেখে সিওএ-র এই সিদ্ধান্তকে লোক দেখানো বলে কটাক্ষ করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড।নির্ভুল আম্পায়ারিং-এর পরিবর্তে কেন শুধু প্রযুক্তির উপর ভরসা করা হবে, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তাঁরা।

এই প্রসঙ্গে বিসিসিআইয়ের এক কর্তা বলেন, “এখন তো এটাই নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে। সংগঠন ভিতর থেকে নড়বড়ে হলেও বাইরে নানা ধরনের চমক আনা চাই।"

আন্তর্জাতিক স্তরে ভারতীয় আম্পায়াররা এর ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন বলেও আশঙ্কা করছেন বিসিসিআই আধিকারিকরা। এক প্রবীণবোর্ড কর্তা বলেন, "আন্তর্জাতিক প্যানেলে কতজন ভারতীয় আম্পায়ার আছেন? নির্ভুল এবং সুষ্ঠ আম্পায়ারিংয়ের লক্ষ্যে নাগপুরে আম্পায়ারিংয়ের অ্যাকাডেমি আছে। তাহলে সেই অ্যাকাডেমির তো কোনও প্রাসঙ্গিকতাই রইল না।"

তবে রঞ্জি ট্রফির নকআউট পর্বে ডিআরএসের প্রয়োগ ভারতীয় ক্রিকেটে এক নতুন অধ্যায় শুরু করবে বলে মনে করছেন ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা।