বিশ্বকাপে পাকিস্তানের খারাপ পারফরম্যান্সের দায় নিয়ে সরে দাঁড়ালেন নির্বাচক মণ্ডলীর প্রধান ইনজামামউলহক। মেগা টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে যাওয়ার পরেই জল্পনা চলছিল। পাকিস্তানের হতশ্রী পারফরম্যান্সের জন্য দায়ী করা হচ্ছিল নির্বাচকদের। এবার দলের ব্যর্থতার দায় নিয়ে সরে দাঁড়াতে হল ইনজিকে।  

তিনি বলেন, ‘‘আমার চুক্তি শেষ হচ্ছে ৩০ জুলাই। তার পরেই সরে দাঁড়াব। বিশ্বকাপ থেকে ফেরার পরেই বোর্ডকে আমি নিজের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দিয়েছিলাম। আমার মনে হয় এবার সময় এসেছে নতুন কাউকে সুযোগ দেওয়ার। নতুন মুখ, নতুন চিন্তাভাবনা নিয়ে আসবে, যা দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে সাহায্য করবে। আমাকে এই সুযোগ দেওয়ার জন্য পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের কাছে কৃতজ্ঞ।’’

আরও পড়ুন: ভারতীয় ফুটবলের তিন পরিচিত মুখকে সই করাল পিয়ারলেস

আরও পড়ুন: এই নাইট তারকা ভারতের মিডল অর্ডার সমস্যা দূর করতে পারেন, বলছেন হোয়াটমোর

অন্য কোনও ভুমিকায় তাঁকে দেখা যাবে কিনা, সেই প্রসঙ্গে প্রাক্তন পাক ক্রিকেটার বলেন, ‘‘আমি একজন ক্রিকেটার। আমারসারা জীবনটাই এই খেলার সঙ্গে যুক্ত। বোর্ড যদি আমাকে অন্য কোনও ভূমিকায় দেখতে চায়, তাহলে আমি অবশ্যই তা নিয়ে ভাবনাচিন্তা করব। কিন্তু বোর্ড আমায় এখনও কোনও প্রস্তাব দেয়নি।’’

তাঁর ভাইপো ইমাম উল হককে অন্যায্যভাবে সুযোগ পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল তাঁর বিরুদ্ধে। সেই প্রসঙ্গে ইনজির মতামত, অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে নিজের যোগ্যতায় সুযোগ পেয়েছিল ইমাম। সেখানে তিনি নির্বাচক ছিলেন না। ইমাম নিজের যোগ্যতায় বিশ্বকাপের দলে ডাক পান। দলের ব্যর্থতায় অনেকেই দলগঠনের দিকে আঙুল তোলেন। ইনজি বলেন, ‘‘কোচ, অধিনায়ক ও অন্যান্য নির্বাচকরা সহমত পোষণ করায় আমি দল নির্বাচন করেছিলাম। সুতরাং, বিশ্বকাপে ভরাডুবির দায় আমার একার নয়।’’