মইন আলির বেদম মার খেয়ে ইডেন গার্ডেন্সে কেঁদে ফেলেন নাইটদের ‘মিস্ট্রি স্পিনার’ কুলদীপ যাদব।

শুক্রবার রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের রানের গতি বাড়িয়ে দিয়েছিলেন মইন আলিই। আরসিবি-র ইনিংসের ১৬ তম ওভারে মইন আলি দুটো চার ও তিনটি ছক্কা হাঁকান কুলদীপকে। ১৭ ওভারের শেষে ক্যামেরায় ধরা হয় কুলদীপকে। দেখা যায় জলের বোতল হাতে কুলদীপ কাঁদছেন। তাঁকে সান্ত্বনা দিচ্ছেন নীতীশ রাণা। যদিও কুলদীপের ওভারেই ফিরে যান মইন আলি। কিন্তু ততক্ষণে যা হওয়ার হয়ে গিয়েছে। বেঙ্গালুরু রানের পাহাড় গড়ার দিকে এগিয়ে গিয়েছে। ম্যাচটাও হারতে হয় কেকেআরকে।

এ বারের আইপিএল কুলদীপের কাছে দুঃস্বপ্ন হয়ে উঠেছে। তাঁর বোলিংয়ে রক্তাল্পতা দীনেশ কার্তিক তো বটেই, রাতের ঘুম কেড়ে নিচ্ছে বিরাট কোহালিরও। পরিসংখ্যান বলছে, ৯টি ম্যাচ থেকে এখনও পর্যন্ত কুলদীপের ঝুলিতে এসেছে মাত্র চারটি উইকেট। কয়েক দিন আগেও তাঁকে ‘রহস্য স্পিনার’ বলা হত। এ বারের আইপিএল দেখে ক্রিকেটবিশ্বের একটা বড় অংশের মনে হচ্ছে, বিপক্ষের ব্যাটসম্যানরা কুলদীপের রহস্য ধরে ফেলেছেন। কোহালির কাছেও বিষয়টা দুশ্চিন্তার। কারণ আইপিএল শেষ হলেই বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপে কোহালির হাতের তাস কুলদীপ। কিন্তু কুলদীপ-রহস্য যদি জেনে ফেলেন সবাই, তা হলে বিশ্বকাপেও কাঁদতে হবে নাইট-বোলারকে। ভারতের জন্যও বিষয়টা একেবারেই সুখকর নয়।

আরও খবর: বাদ উথাপ্পা-কুলদীপ? দেখে নিন নাইটদের সম্ভাব্য একাদশ

আরও খবর: বাদ তাসকিন, দলে আনকোরা পেসার, ব্যাঘ্রগর্জন করেই বিশ্বকাপের দল ঘোষণা বাংলাদেশের

তবে আরসিবি ম্যাচে কুলদীপের পারফরম্যান্সকে গুরুত্ব দিতে নারাজ ক্রিকেটভক্তরা। তাঁদের বক্তব্য, ক্রিকেটে এরকম হয়েই থাকে। এক-আধটা দিন খারাপ যায় সবারই। কেউ আবার বলছেন, টি টোয়েন্টির সেরা দশ জন বোলারের মধ্যে রয়েছেন কুলদীপ। বিশ্বকাপে টিম ইন্ডিয়ার প্রধান স্পিনারও তিনি। সবই ঠিক আছে। কিন্তু আইপিএলের জন্য তো দেশের তারকা বোলার বেআব্রু হয়ে পড়ছেন। এর মূল্য না আবার চোকাতে হয় বিশ্বকাপে!