রাজকীয় সংবর্ধনায় বোর্ডের নতুন প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে বরণ করে নিল সিএবি। বিমানবন্দর থেকে তাঁর গাড়ি যখন বঙ্গ ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থার সামনে এসে দাঁড়াল, তখন লোকে লোকারণ্য।

সাধারণ মানুষের ভিড়, মিডিয়ার উপস্থিতি, সিএবি কর্তাদের তৎপরতাই বলে দিচ্ছিল শহরের ছেলেটা এখন ভারতীয় ক্রিকেট প্রশাসনের শেষ কথা। তাঁর অঙ্গুলিহেলনেই আগামী কয়েকমাস চলবে ভারতীয় ক্রিকেট। ভারতীয় ক্রিকেটে ফের সৌরভ ছড়াবেন ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক। তিনি আসবেন বলে অনেক আগে থেকেই সেজে উঠেছিল বঙ্গীয় ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থা। প্রবেশদ্বারে বসেছে তোরণ। বোর্ডের নতুন প্রেসিডেন্টের কাট আউট বসেছে দেওয়াল জুড়ে। সিএবি জুড়ে প্রাণচঞ্চলতা। ইডেনের সামনে মহারাজ পৌঁছতেই জ্বলে ওঠে হাজার ওয়াটের আলো। পুষ্পবৃষ্টি হল। আতসবাজি পোড়ানো হল। কোনও রকমে ভিড় ঠেলে সৌরভ ঢুকে পড়লেন সিএবির অন্দরমহলে। এ রকম ভিড় তো বহুদিন দেখা যায়নি। 

মঙ্গলবার বিকেল পাঁচটা নাগাদ মুম্বই থেকে কলকাতায় পা রাখেন সৌরভ। বোর্ড প্রেসিডেন্ট হওয়ার পরে প্রথম বার। সিএবি কর্তারা কলকাতা বিমানবন্দরে তাঁকে অভ্যর্থনা জানান। নিজের শহরে পা রেখেই সৌরভ বলেন, ‘‘অনেক কাজ বাকি। ভাল করে কাজ করতে হবে। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে জোর দিতে হবে।’’ বোর্ড প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর থেকে এই কথাগুলোই নাগাড়ে বলে যাচ্ছেন সৌরভ। আরও একবার বিমানবন্দরে দাঁড়িয়ে বললেন তিনি। 

২৩ অক্টোবর সরকারি ভাবে প্রেসিডেন্ট পদে ঘোষণা হবে তাঁর নাম। যদিও ইতিমধ্যেই স্থির হয়ে গিয়েছে বিভিন্ন পদ কারা সামলাবেন। সৌরভ বললেন, "জয় শাহ, অরুণ ধুমল এবং জয়েশ জর্জকে নিয়ে ভারতীয় বোর্ডের নবীন দল। এদের মধ্যে আমি আর জয়ই অভিজ্ঞ। নিজেদের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করব।" সিএবিতে অবশ্য সৌরভ ভারতীয় ক্রিকেট নিয়ে তাঁর চিন্তার কথা জানান। বিশ্বকাপের পর ভারতীয় ক্রিকেট ছন্দেই রয়েছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে গিয়ে সিরিজ জিতেছে। দেশের মাটিতে ইতিমধ্যেই বিরাট কোহালি টেস্ট সিরিজ জিতে নিয়েছেন। সিরিজ জিতলেও বড় টুর্নামেন্ট জিততে পারছে না কোহালির ভারত। এটাই চিন্তায় রাখছে সৌরভকে। প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক বলছেন, ‘‘ভারত সাতটা টুর্নামেন্ট খেলে একটাতেও জিততে পারেনি। দল হিসেবে আমরা খুবই শক্তিশালী। তবুও বড় টুর্নামেন্ট কেন জিততে পারছি না, তা নিয়ে বিরাটের সঙ্গে আলোচনায় বসব।’’

চোট সারিয়ে দলে ফিরে পুণেতে দুর্দান্ত কিপিং করেছেন ঋদ্ধিমান সাহা। বাংলার উইকেটকিপারের পারফরম্যান্স প্রসঙ্গে সৌরভ বলছেন, ‘‘ঋদ্ধিমান দেশের হয়ে খেলছে তাতে আমি খুব খুশি। দুর্দান্ত উইকেট কিপিংও করছে। তবে ব্যাট হাতে ওকে রান করতে হবে। ওর উইকেট কিপিং দক্ষতা নিয়ে কোনও সন্দেহই নেই। তবে ওকে রান করতে হবে। আমি ঋদ্ধিমানের সঙ্গে খেলেছি। ওর ভাল চাই।’’ 

রবিবার মধ্যরাতেই স্থির হয়ে যায় সৌরভই নতুন বোর্ড প্রেসিডেন্ট। তার পর থেকেই শুভেচ্ছা বার্তায় ভেসে যাচ্ছেন তিনি। ভিভিএস লক্ষ্মণ, বীরেন্দ্র সহবাগের মতো প্রাক্তন ক্রিকেটাররা টুইট করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মহারাজকে। চলতি মাসের ২৩ তারিখ সরকারি ভাবে বোর্ড প্রেসিডেন্টের চেয়ারে বসতে চলেছেন সৌরভ।

আরও পড়ুন: সৌরভের নেতৃত্বে উন্নতি করবে ভারতীয় ক্রিকেট, বলছেন লক্ষ্মণ

সিএবি-র ফটকে বসানো হয়েছে তোরণ।  

প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক বোর্ড প্রেসিডেন্ট হওয়ায় সিএবি–র প্রেসিডেন্ট হিসেবে কে কাজ করবেন? তা নিয়ে চলছে জল্পনা। বর্তমান সচিব অভিষেক ডালমিয়া প্রেসিডেন্ট হতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে। সৌরভের দাদা প্রাক্তন ক্রিকেটার স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায়ের নামও প্রেসিডেন্ট পদের জন্য উঠে আসছে। সিএবি প্রেসিডেন্টের চেয়ারে কে বসবেন, সেই ব্যাপারে সৌরভের সিদ্ধান্তের দিকেই তাকিয়ে সবাই।