Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

৩০ নভেম্বর ২০২১ ই-পেপার

কোহালি মেনে নিলেই নতুন ওভার কুম্বলের

গৌতম ভট্টাচার্য
২২ জুন ২০১৬ ০৯:১৯

আগামী চব্বিশ ঘণ্টায় অপ্রত্যাশিত কিছু না ঘটলে অনিল কুম্বলে ভারতীয় দলের নতুন হেড কোচ নির্বাচিত হবেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সাড়ে ন’শোর উপর উইকেটের অধিকারী কুম্বলে মঙ্গলবার বোর্ডের ক্রিকেট উপদেষ্টা কমিটির সভা শুরুর আগেও সামান্য এগিয়ে ছিলেন। কিন্তু এ দিনের বৈঠকে তাঁর প্রেজেন্টেশন কুম্বলেকে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রবি শাস্ত্রীর চেয়ে অনেক এগিয়ে দিয়েছে।

সচিন, সৌরভ, লক্ষ্মণদের তিন সদস্যের কমিটি কুম্বলে সম্পর্কে মোটামুটি একমত। বোর্ড সচিব অজয় শিরকে তাঁদের পছন্দের কথা জেনেও গিয়েছেন। শোনা যাচ্ছে, সরকারি সিলমোহরে শেষ ছাপ্পাটা নির্ভর করছে বিরাট কোহালির উপর।

বুধবার হয়তো উপদেষ্টা কমিটির সদস্যরা বিরাটের সঙ্গে একপ্রস্ত কথা বলবেন। বিরাট যদি বলেন যে, ‘না, আমার শাস্ত্রীকে দরকার’, একমাত্র তা হলেই কুম্বলে আটকে যেতে পারেন। বোর্ড মহলের ধারণা, শাস্ত্রীর সঙ্গে বিরাটের দুর্ধর্ষ সম্পর্ক থাকতে পারে। কিন্তু এত বড় ব্যক্তিগত ঝুঁকি কি কোচ মনোনয়নে তিনি নেবেন?

Advertisement

এ দিনের বৈঠকে সদস্যরা মোটামুটি একমত হন, এখন আমাদের বিদেশি কোচ দরকার নেই। এই তিন সদস্য এবং রাহুল দ্রাবিড় মিলেই ২০০০ সালে জন রাইটকে এনেছিলেন। কিন্তু আজ মনে করছেন, ষোলো বছর পরের পরিস্থিতিতে আর বিদেশি কোচ দরকার নেই।
তাই টম মুডি, অ্যান্ডি মোলস এবং ট্রেভর পেনির স্কাইপ প্রেজেন্টেশন কোনও প্রভাব ফেলেনি।

রবি শাস্ত্রী সম্পর্কে কমিটির সাধারণ মনোভাব সমালোচনামূলক নয়। বরং তাঁরা মনে করেন, রবির আমলে রেজাল্ট দুর্ধর্ষ না হলেও মোটামুটি ভাল। রবিকে তাঁরা দলের সঙ্গে জড়িয়ে রাখতে চান। কেউ কেউ মনে করেন, কুম্বলে কোচ হয়ে রবি যদি ব্যাটিং কোচ হন, সেটা দারুণ কম্বিনেশন হবে। বিশেষ করে বিদেশে টাফ কন্ডিশনে কী করে ব্যাট করতে হবে, সেটা বলার পক্ষে তিনি আদর্শ। বর্তমান ব্যাটিং কোচ সঞ্জয় বাঙ্গার আদৌ নন। যতই তিনি জিম্বাবোয়েতে দল নিয়ে যান না কেন।

কিন্তু প্রস্তাব এলে শাস্ত্রী ব্যাটিং কোচ হতে রাজি হবেন? সাধারণ ধারণা, হেড কোচ না হলে নীচের কোনও পোস্ট কিছুতেই নেবেন না শাস্ত্রী। তাঁর অনড় শর্ত থাকবে, হয় আমায় কোচ করো, নয়তো কিছুই নয়।

কমিটি সহকারী কোচেদের নাম সুপারিশ না করলেও শাস্ত্রীর বাছা সাপোর্ট স্টাফ নিয়ে অভিভূত নয়। তাঁরা কেউ কেউ মনে করেন, ভারতীয় বোলিংয়ের আসল মুখ হলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। অশ্বিন ভাল করলে ভারত জেতে। তিনি বিদেশে ভাল বল করতে পারেন না বলে ভারত নিয়মিত জেতে না। কমিটি মনে করে, বোলিং কোচকে আদতে স্পিন বোলিং কোচ হতে হবে। আপদে-বিপদে অশ্বিনকে টেক কেয়ার করতে হবে। যেটা প্রাক্তন পেসার ভরত অরুণের পক্ষে সম্ভব নয়। ওটা কুম্বলেই পারবেন।

ভারতীয় কোচদের মধ্যে প্রবীণ আমরে এবং লালচাঁদ রাজপুত এ দিন এসেছিলেন। দু’জনেই খুব ভাল পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন করেছেন। বিশেষ করে রাজপুত! এঁরা কেউ সাপোর্ট স্টাফ হিসেবে দলে ঢুকে পড়বেন কি না, তা সময় বলবে। তবে কুম্বলে মনোনীত হলে হয়তো জাহির খানকে বোলিং কোচ চাইবেন।

শাস্ত্রী আপাতত তাইল্যান্ডে। রোববার নাগাদ ফিরবেন। এ দিন তাই স্কাইপে ইন্টারভিউ দিয়েছেন। অন্যরা যেমন বাহারি প্রেজেন্টেশন তৈরি করেছেন, তিনি কিছু করেননি। নিজের পরিকল্পনার কথা মুখে পূর্ণাঙ্গ বলেছেন সৌরভ-লক্ষ্মণ এবং গ্লাসগোর হোটেলে বসে থাকা সচিনকে।

কিন্তু কুম্বলে শুধু পরিকল্পনাই বলেননি, বিস্তারিত পেশ করেছেন দলের জন্য তাঁর ভিশন ফর এক্সেলেন্স। কী ভাবে ভারত ২০১৯-এ বিশ্বকাপ জিততে পারে, তার রোডম্যাপ। যা দেখে নাকি চমৎকৃত সদস্যরা। ভারত অধিনায়ক থাকার সময়ও কুম্বলে এমনই ভিশন ডকুমেন্ট তৈরি করেছিলেন টিমের জন্য। সেটা যেমন সাড়া ফেলেছিল, আট বছর পর সম্ভাব্য কোচ হিসেবে তাঁর প্রেজেন্টেশনও তেমনই মুগ্ধ করে গেল।

কুম্বলেদের পরীক্ষার সরকারি ফল বেরোবে শুক্রবার ধর্মশালায় বোর্ডের বৈঠকে। সেখানে থাকা বোর্ড প্রেসিডেন্ট নাকি শাস্ত্রীর মনোনয়নের পক্ষে। অথচ মহানাটকীয় কিছু না ঘটলে শৈলশহরে আম্পায়ারদের ডাকা উচিত ‘রাইট আর্ম ওভার দ্য উইকেট’!

আরও পড়ুন

Advertisement