Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৪ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

ময়নাতদন্ত: দিন ২

বিস্ময়-বলে ওয়ার্নারকে ফিরিয়ে ‘ওয়ার্ন’ অশ্বিন

নিজস্ব সংবাদদাতা
০৬ মার্চ ২০১৭ ০৪:১১
অশ্বিনের সেই ম্যাজিক বল। বলটি লেগস্টাম্পের বাইরে পড়ে টার্ন নিয়ে ওয়ার্নারের অফস্টাম্প উপড়ে দেয়। গ্রাফিক: দীপাঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়।

অশ্বিনের সেই ম্যাজিক বল। বলটি লেগস্টাম্পের বাইরে পড়ে টার্ন নিয়ে ওয়ার্নারের অফস্টাম্প উপড়ে দেয়। গ্রাফিক: দীপাঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়।

বেঙ্গালুরুতে কোহালি বনাম স্মিথ নিয়ে তপ্ত আবহাওয়া। ইশান্ত শর্মার মুখভঙ্গি যদি সেরা বিনোদন হয়, তা হলে ক্রিকেটীয় প্যাঁচ-পয়জারও চলতে থাকল। কী সেগুলো? তুলে দেওয়া হল দ্বিতীয় দিনের বিশ্লেষণ—

অশ্বিনের কামাল ক্যাচ: রবীন্দ্র জাডেজার বলে পিটার হ্যান্ডসকম্ব মিডউইকেট দিয়ে উঁচু করে শট খেললেন। সাধারণত যাঁকে কেউ দারুণ ফিল্ডার বলবে না, সেই অশ্বিনই পাখির মতো উড়ে গিয়ে অবিশ্বাস্য ক্যাচ নিলেন। কিন্তু চূড়ান্ত নাটক হয়ে গেল সেই ক্যাচ ধরা নিয়ে। পড়তে পড়তেও অশ্বিন বল ধরে রাখলেন। বল নিয়ে গড়াগড়ি খেতে খেতে পড়েই যাচ্ছিল ক্যাচ। তিনি হাত, বুক, মাথা দিয়ে ধরে রাখলেন।

কট গ্যালারি বোল্ড কোহালি: তিনি অধিনায়ক হওয়ার পর থেকে এটা করতে দেখা যাচ্ছে। প্রতিপক্ষ সামান্য চাপে রেখেছে দেখলেই গ্যালারির দিকে তাকিয়ে অধিনায়ক কোহালি ইশারা করতে থাকেন। দু’হাত তুলে জনতাকে বলতে থাকেন, চেঁচিয়ে আমাদের সমর্থন করুন। তাতে অনেক ক্ষেত্রে সাফল্যও আসে। রবিবার যেমন হল। চা-পানের ঠিক আগের ওভার ছিল সেটা। গ্যালারির দিকে তাকিয়ে দু’হাত নাড়িয়ে কোহালি আবেদন করতে থাকলেন সমর্থন করার জন্য। গ্যালারি গর্জন করে উঠল। সেই ওভারেই আউট মিচেল মার্শ। বোলার ইশান্তের বিশেষ কৃতিত্ব নেই। বলটা প্রায় গড়িয়েই গিয়ে পায়ে লাগল মার্শের। এলবিডব্লিউ দিতে দেরি করেননি আম্পায়ার। মার্শের নামের পাশে লেখা যেতেই পারে কট গ্যালারি বোল্ড কোহালি।

Advertisement

অস্ট্রেলিয়ার আবিষ্কার রেনশ: একুশতম জন্মদিন পালন করেছেন সবে। ভারতে আসার আগে কেউ কি তাঁকে নিয়ে ভেবেছিল? এখন কিন্তু ম্যাট রেনশ-কেই অস্ট্রেলিয়ার নতুন আবিষ্কার ভাবা হচ্ছে। পর-পর দু’টি ইনিংসে তিনি হাফ সেঞ্চুরি করে ফেললেন। যা ভারতের ঘূর্ণি উইকেটে অনেক নামী বিদেশি ব্যাটসম্যানের নেই। ভারতে এসে ভারতীয় স্পিনারদের বিরুদ্ধে অস্ট্রেলিয়া যে প্রতিরোধ দেখাতে পারছে, তার জন্য মিষ্টিমুখের (দাড়িহীন মেসি?) রেনশ-কে কৃতিত্ব দিচ্ছেন অনেকেই।

শন মার্শ-রা কেন সফল: ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের সঙ্গে রেনশ-দের তফাত কোথায়? তফাত মনোভাবে। অজিঙ্ক রাহানে-রা উইকেট উপহার দিচ্ছেন। কিন্তু অস্ট্রেলীয় ব্যাটসম্যানরা ক্রিজে পড়ে থাকছেন। ধৈর্য ধরে, নিজেদের প্রয়োগ ক্ষমতা দেখিয়ে অশ্বিনদের মোকাবিলা করার মানসিকতা দেখাচ্ছেন। রবিবার সারা দিনে অস্ট্রেলিয়া রান তুলেছে ওভার প্রতি ২.২৩ রেটে। রেনশ ৬০ করলেন ১৯৬ বলে। স্ট্রাইক রেট ৩০.৬১। শন মার্শের মতো স্ট্রোকপ্লেয়ার ১৯৭ বলে করলেন ৬৬। স্ট্রাইক রেট ৩৩.৫। মন্ত্রটাই হচ্ছে, পড়ে থাকো ক্রিজে। উইকেট ছুড়ে দিও না। ভারতীয়রা কি শিক্ষা নেবেন?

অশ্বিন যখন ওয়ার্ন: মাইক গ্যাটিংকে আউট করা শেন ওয়ার্নের সেই বিখ্যাত বলটি মনে আছে? কেউ ভুলে গিয়ে থাকলে রবিবার বেঙ্গালুরু টেস্টে মনে করিয়ে দিলেন আর. অশ্বিন। ম্যাজিক বলে তিনি তুলে নিলেন ওয়ার্নেরই দেশের ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার-কে। ওয়ার্ন ছিলেন লেগস্পিনার। আউট করেছিলেন ডানহাতি গ্যাটিং-কে। এখানে অশ্বিন অফস্পিনার। ফেরালেন বাঁ হাতি ওয়ার্নার-কে। কিন্তু স্পিনের জাদুতে দু’টি বলের মধ্যেই দারুণ মিল। ওয়ার্নের ম্যাজিক বল লেগস্টাম্পের বাইরে পড়ে হতচকিত গ্যাটিংয়ের অফস্টাম্প উপড়ে ফেলেছিল। অশ্বিনের স্বপ্নের অফস্পিন ডেলিভারি বাঁ হাতি ওয়ার্নারের লেগস্টাম্পের বাইরে পড়ে বিষাক্ত টার্ন নিয়ে ভেঙে দিল ওয়ার্নারের অফস্টাম্প। নীরব দর্শক ওয়ার্নার।

ম্যাচ যাচ্ছে কোন দিকে: অস্ট্রেলিয়া এগিয়ে গিয়েছে ৪৮ রানে। হাতে চার উইকেট। সোমবার সকালে তাড়াতাড়ি অতিথিদের অলআউট না করতে পারলে চিন্তা বাড়বে কোহালিদের। ক্রিজে আছেন মিচেল স্টার্ক। যিনি পুণেতে দুই ইনিংসেই ম্যাচ ঘোরানো ব্যাটিং করে দিয়েছিলেন। অস্ট্রেলিয়া ১০০ রানের ‘লিড’ নিয়ে নিলে উদ্বেগ বাড়বে ভারতীয় ড্রেসিংরুমে।

আরও পড়ুন

Advertisement