Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৩ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

বেঙ্গালুরু কাঁটায় বিদ্ধ হয়ে অস্বস্তি বাড়ল এটিকের

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০২ মার্চ ২০২০ ০৭:২৩
হতাশ: এ বার ঘরের মাঠে পরীক্ষা এটিকে কোচ হাবাসের। আইএসএল

হতাশ: এ বার ঘরের মাঠে পরীক্ষা এটিকে কোচ হাবাসের। আইএসএল

বেঙ্গালুরু এফসি ১

এটিকে ০

দু’জনেই অতীতে খেলে এসেছেন বেঙ্গালুরুতে। তাই বর্তমানে এটিকে ফুটবলার হলেও আইএসএলের দ্বিতীয় সেমিফাইনালের প্রথম পর্বের ম্যাচের আগে জন জনসন ও এদু গার্সিয়া রসিকতায় মেতেছিলেন বিপক্ষের হরমনজ্যোৎ সিংহ খাবরা ও সুনীল ছেত্রীদের সঙ্গে।

Advertisement

সেই সৌজন্য যে পরের নব্বই মিনিটে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে পরিণত হবে, তা জানাই ছিল। শেষ পর্যন্ত হলও তাই। খেলা শেষ হওয়ার কিছুক্ষণ আগে এটিকের রয় কৃষ্ণকে ফাউল করে লাল কার্ডও দেখলেন বেঙ্গালুরুর নিশু কুমার। চোরাগোপ্তা ট্যাকলও হল প্রচুর। যেখানে সৌজন্যের ছাপ থাকেনি প্রত্যাশিত ভাবেই। যার নির্যাস, ঘরের মাঠ কান্তিরাভা স্টেডিয়ামে এটিকের বিরুদ্ধে ১-০ জিতে হাসি মুখে মাঠ ছাড়লেন সুনীল ছেত্রীরাই।

৩১ মিনিটে দেশর্ন ব্রাউনের গোলে ম্যাচে এগিয়ে গিয়েছিল স্পেনীয় কোচ কার্লেস কুদ্রাতের প্রশিক্ষণাধীন বেঙ্গালুরু। সেই গোল আর শোধ করতে পারেননি এটিকের রয় কৃষ্ণ, ডেভিড উইলিয়ামসেরা। ঘরের মাঠে দ্বিতীয় পর্বের সেমিফাইনালের আগে চাপ বাড়ল এটিকে শিবিরে। আগামী রবিবার যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে সমর্থকদের সামনে বেঙ্গালুরুকে দু’গোলের ব্যবধানে হারালেই ফাইনালে যাবে এটিকে। অন্য দিকে, সেই ম্যাচ ড্র করলেই ফাইনালে চলে যাবে বেঙ্গালুরু।

বেঙ্গালুরু এফসি-র ঘরের মাঠ কান্তিরাভা স্টেডিয়ামে এ দিন শুরু থেকেই আক্রমণে ঝড় তোলার জন্য এটিকের স্পেনীয় কোচ আন্তোনিয়ো লোপেস হাবাস দল সাজিয়েছিলেন ৩-৫-২ ছকে। একই রণনীতি নিয়েছিলেন বেঙ্গালুরু কোচও।

এটিকের বিরুদ্ধে তাঁদের লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে যে দল খেলেছিল, এ দিন সেই দলের সাত জনকে বসিয়ে প্রথম একাদশ সাজিয়েছিলেন কুদ্রাত। দলে ফিরেছিলেন বেঙ্গালুরু অধিনায়ক সুনীল ছেত্রীও। অন্য দিকে হাবাস প্রথম একাদশে আগের ম্যাচে খেলা পাঁচ জনকে বসিয়ে রবিবার খেলান গোলকিপার অরিন্দম ভট্টাচার্য়, প্রবীর দাশ, মাইকেল সুসাইরাজ, হাভিয়ের হার্নান্দেস ও রেগিন মিচেলকে।

হাবাসের লক্ষ্য ছিল এদু গার্সিয়া-ডেভিড উইলিয়ামস ও রয় কৃষ্ণ ত্রিভুজকে কাজে লাগিয়ে আক্রমণে ঝড় তোলা। সেই লক্ষ্যে সফলও হয়েছিলেন শুরুর দিকে। ১৭ মিনিটে কৃষ্ণের বাড়ানো বল থেকে উইলিয়ামসের গোলে এগিয়ে গিয়েছিল এটিকে। কিন্তু সেই গোল রেফারি বাতিল করেন উইলিয়ামসের হাতে বল লাগায়।

এর পরেই ম্যাচে ফেরে বেঙ্গালুরু। প্রতি-আক্রমণভিত্তিক ফুটবলে বিপক্ষ রক্ষণে চাপ বাড়াতে থাকে তারা। ৩১ মিনিটে গুরপ্রীত সিংহের বাড়ানো বল বাঁ প্রান্তে দাঁড়িয়ে ধরেন বেঙ্গালুরু অধিনায়ক সুনীল ছেত্রী। সেই বল এরিক পার্তালুর পা ঘুরে খুয়ানানের কাছে এলে তিনি গোল লক্ষ করে শট নিয়েছিলেন। যা এটিকে গোলকিপার অরিন্দমের হাত থেকে বেরিয়ে এলে সেই বল জালে জড়িয়ে দেন ব্রাউন।

এটিকে: অরিন্দম ভট্টাচার্য, প্রীতম কোটাল, জন জনসন, সুমিত রাঠি, প্রবীর দাস, রেগিন মিচেল (জয়েশ রানে), হাভিয়ের হার্নান্দেস (আর্মান্দো সোসা পেনা), এদু গার্সিয়া, মাইকেল সুসাইরাজ, ডেভিড উইলিয়ামস, রয় কৃষ্ণ।

বেঙ্গালুরু এফসি: গুরপ্রীত সিংহ সাঁধু, রাহুল ভেকে, খুয়ানান, অ্যালবার্ট সেরান (কেভন ফ্রেটার), হরমনজ্যোৎ সিংহ খাবরা, সুরেশ সিংহ (উদান্ত সিংহ), এরিক পার্তালু, দিমাস দেলগাদো, নিশু কুমার, সুনীল ছেত্রী, দেশর্ন ব্রাউন (ফ্রান্সিসকো বোর্জেস)।

আরও পড়ুন

Advertisement