Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

গোপী ও প্রকাশের সামনেই খেতাব জিতে নিল বেঙ্গালুরু

ছাত্রের প্রশংসায় যেমন উজ্জ্বল হয়ে উঠল জাতীয় ব্যাডমিন্টন কোচের মুখ। তাঁর পাশে বসে থাকা আর এক ব্যাডমিন্টন কিংবদন্তিও উচ্ছ্বাস চেপে রাখতে পারলে

শমীক সরকার
বেঙ্গালুরু ১৪ জানুয়ারি ২০১৯ ০৩:১৬
Save
Something isn't right! Please refresh.
সেরা: পিবিএল চ্যাম্পিয়ন হয়ে শ্রীকান্তের বেঙ্গালুরু। রবিবার। পিবিএল

সেরা: পিবিএল চ্যাম্পিয়ন হয়ে শ্রীকান্তের বেঙ্গালুরু। রবিবার। পিবিএল

Popup Close

বিদ্যুতের মতো কিদম্বি শ্রীকান্তের জাম্প স্ম্যাশটা কোর্টে আছড়ে পড়তেই দর্শকরা তো বটেই, পুল্লেলা গোপীচন্দ এবং প্রকাশ পাড়ুকোনও হাততালি দিয়ে উঠলেন।

ছাত্রের প্রশংসায় যেমন উজ্জ্বল হয়ে উঠল জাতীয় ব্যাডমিন্টন কোচের মুখ। তাঁর পাশে বসে থাকা আর এক ব্যাডমিন্টন কিংবদন্তিও উচ্ছ্বাস চেপে রাখতে পারলেন না। স্টেডিয়ামে উপস্থিত দেশের সর্বকালের অন্যতম সেরা দুই ব্যাডমিন্টন তারকার সামনে টানা আট নম্বর ম্যাচ জিতে অধিনায়ক শ্রীকান্ত প্রথম বার প্রিমিয়ার ব্যাডমিন্টন লিগে চ্যাম্পিয়ন করলেন দলকে। রবিবার তাঁর দুরন্ত ছন্দে বেঙ্গালুরু র‌্যাপ্টর্স ফাইনালে ৪-৩ জিতল মুম্বই রকেটসের বিরুদ্ধে।

অথচ মুম্বই কিন্তু বেশ কয়েক বার জেতার মতো জায়গায় চলে গিয়েছিল। তা ছাড়া শনিবার দ্বিতীয় সেমিফাইনালে গত বারের চ্যাম্পিয়ন পি ভি সিন্ধুর হায়দরাবাদ হান্টার্সকে হারিয়েই ফাইনালে উঠেছিল তারা। তাই সবাই ধরে নিয়েছিল হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে এ দিন। দুরন্ত দ্বৈরথের আবহও তৈরি ছিল। একে রবিবার, ছুটির দিন, তার উপরে চূড়ান্ত পর্বে শহরের স্থানীয় দল। খেতাবি যুদ্ধে বেঙ্গালুরুর দর্শকদের উন্মাদনার পারদ কতটা চড়তে পারে সেটা আগেই আন্দাজ করা যাচ্ছিল। দেখা গেল, সন্ধ্যা থেকেই কান্তিরাভা স্টেডিয়াম উত্তেজনায় ফুটছে। প্রায় ৩৭০০ দর্শকাসনের ইন্ডোর গ্যালারি কানায় কানায় ভর্তি।

Advertisement



মহাতারকা: পিবিএল ফাইনাল শুরুর আগে দুই কিংবদন্তি। পুল্লেলা গোপীচন্দ এবং প্রকাশ পাড়ুকোন। পিবিএল

এর মধ্যেই প্রথম ম্যাচে মুম্বই মিক্সড ডাবলস জিতে ২-০ স্কোরে এগিয়ে যায় (মুম্বইয়ের ট্রাম্প ম্যাচ ছিল এটি)। বেঙ্গালুরুর হয়ে ব্যবধান কমান শ্রীকান্ত। বিশ্বের আট নম্বর শ্রীকান্ত ডেনমার্কের অ্যান্ডার্স অ্যান্টোনসেনকে (বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং ১৮) ১৫-৭, ১৫-১০ উড়িয়ে দেন। শনিবারই ফাইনালে ওঠার পরে বছর একুশের ড্যানিশ তারকা হুঙ্কার দিয়েছিলেন, ‘‘লিগ ম্যাচে শ্রীকান্তের কাছে হেরে গিয়েছি। ফাইনালে বদলা নেবই।’’ কিন্তু ড্যানিশ তরুণ হয়তো জানতেন না, ছন্দে থাকা শ্রীকান্তের সামনে কোনও হুঙ্কারই কাজে আসে না। হেলায় অ্যান্টোনসেনকে হারান প্রাক্তন বিশ্বসেরা। তাঁর বিখ্যাত জাম্প স্ম্যাশ তো ছিলই। সঙ্গে অনবদ্য ড্রপ শট, ক্রস কোর্ট প্লে, প্লেসমেন্ট এবং নেট প্লে। যার সামনে অসহায় দেখাচ্ছিল অ্যান্টোনসেনকে। ফলে দ্রুত ম্যাচ বের করে নিতে বেঙ্গালুরুর অধিনায়কের কোনও সমস্যাই হয়নি। স্কোর দাঁড়ায় শ্রীকান্তদের পক্ষে ১-২। এর পরে মেয়েদের সিঙ্গলসে বিশ্বের ৫৯ নম্বর তাইল্যান্ডের থি থারাঙ্গ ভু তাঁদের ট্রাম্প ম্যাচে স্ট্রেট গেমে মুম্বইয়ের শ্রেয়াংশী পরদেশীকে (২০২) হারালে বেঙ্গালুরু এ বার ৩-২ এগিয়ে যায়।

হার রুখতে মুম্বইকে এর পরের ম্যাচ জিততেই হত। যেখানে ফর্মে থাকা সমীর বর্মা (বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং ১২) মুখোমুখি হন বেঙ্গালুরুর সাই প্রণীতের (২২)। সমীর গোটা মরসুম দুরন্ত ছন্দে থাকলেও প্রণীত তাঁকে প্রথম গেমে সহজেই হারান ১৫-৭। কিন্তু দ্বিতীয় গেমে সমীর ঘুরে দাঁড়ান ১৫-১২ জিতে। শেষ পর্যন্ত তৃতীয় গেমও সমীর ১৫-৩ জেতায় স্কোর দাঁড়ায় ৩-৩। খেলা গড়ায় শেষ ম্যাচে। পুরুষদের ডাবলসের লড়াইয়ে। সেখানে বেঙ্গালুরুর মহম্মদ এহসান এবং হেন্দ্রা সেতিয়াওয়ানের জুটি মুম্বইয়ের লি ডায়ে ইয়ং এবং কিম জাং জি-কে সহজেই হারিয়ে খেতাব নিশ্চিত করে ফেলেন। তাঁরা শেষ পয়েন্ট নিতেই উৎসব করতে করতে প্রণীতরা কোর্টে ছুটে আসেন। কিছুক্ষণ পরে দেখা যায় বেঙ্গালুরু সমর্থকদের সেই বহু প্রতীক্ষিত মুহূর্ত। জাতীয় কোচ গোপীচন্দের হাত থেকে প্রথম বার শ্রীকান্তদের পিবিএল চ্যাম্পিয়নের ট্রফি নেওয়ার ছবি। দেখতে দেখতে একটা কথা মনে হচ্ছিল। কথায় বলে, ভাগ্য দু’বার সঙ্গ না দিলেও তৃতীয় বার মুখ ফেরায় না। কিন্তু শ্রীকান্তের দাপটে সেই সুযোগও কাজে এল না দু’বারের রানার্স মুম্বইয়ের!

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement