Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৪ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

বিহারের রঞ্জি খেলা নিয়ে দ্বন্দ্ব সৌরভ ও সাবার

সৌরভ ও সাবা দু’জনেই এখন দেশের ক্রিকেট প্রশাসনে। প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক সৌরভ বোর্ডের টেকনিক্যাল কমিটির প্রধান। আর প্রাক্তন ভারতীয় উইকেটরক্ষক স

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৭ এপ্রিল ২০১৮ ০৪:২২
Save
Something isn't right! Please refresh.
সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও সাবা করিম।

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও সাবা করিম।

Popup Close

ক্রিকেট মাঠে এক সময় তাঁরা ছিলেন সতীর্থ। একসঙ্গে নেমেছেন বহু ম্যাচ খেলতে। সেই সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও সাবা করিমের মধ্যে সোমবার বোর্ডের এক বৈঠকে যুক্তি, পাল্টা যুক্তির লড়াই হল বলে শোনা যাচ্ছে।

সৌরভ ও সাবা দু’জনেই এখন দেশের ক্রিকেট প্রশাসনে। প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক সৌরভ বোর্ডের টেকনিক্যাল কমিটির প্রধান। আর প্রাক্তন ভারতীয় উইকেটরক্ষক সাবা বোর্ডের জেনারেল ম্যানেজার (ক্রিকেট অপারেশন্স)। সোমবার কলকাতায় সৌরভদের কমিটির বৈঠকে ছিলেন সাবা। বিচারপতি লোঢা কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী বিহারকে এ বারের রঞ্জি ট্রফিতে খেলার সুযোগ দেওয়ার প্রস্তাব দেন তিনি। কিন্তু সেই প্রস্তাব মানতে রাজি হননি সৌরভরা।

প্রসঙ্গত, সাবা বিহার থেকেই উঠে আসা উইকেটরক্ষক, যিনি বাংলার হয়ে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলে ভারতীয় দলে জায়গা করে নিয়েছিলেন। সোমবার তিনি সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত বোর্ডের প্রশাসক কমিটি (সিওএ)-এর একটি চিঠিও সঙ্গে এনেছিলেন বলে জানান বৈঠকে থাকা এক কর্তা। যাতে লোঢা কমিটির সুপারিশকে উদ্ধৃত করে একই প্রস্তাব দেওয়া ছিল। কিন্তু সৌরভ ও কমিটির বেশির ভাগ সদস্যই তাঁর এই প্রস্তাব কার্যত নাকচ করে দেন বলে জানা গিয়েছে। সাবাকে পাল্টা যুক্তি দেওয়া হয়, বিহারকে রঞ্জি ট্রফিতে খেলার সুযোগ দেওয়া হলে অন্য অনেক রাজ্যের ক্রিকেট সংস্থা আদালতে যেতে পারে। বিশেষ করে উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলি। বিহারকে সরাসরি রঞ্জি খেলার সুযোগ দেওয়া হলে তাদেরও এই টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়ার দাবি ওঠার সম্ভাবনা প্রবল বলে জানান সৌরভরা। তাঁরা জানিয়ে দেন, বোর্ড যেন সেই সম্ভাবনার কথা মাথায় রেখে এই সিদ্ধান্ত নেয়।

Advertisement

সৌরভদের পাল্টা প্রস্তাব ছিল, নির্দিষ্ট নীতি মেনে বরং বিহারকে রঞ্জি ট্রফিতে ফেরার পথ দেখানো হোক। তাদের অনূর্ধ্ব-১৬, ১৯ ও ২৩ পর্যায়ের ক্রিকেটে খেলার অনুমতি দেওয়া হোক। এই স্তরে ভাল ফল করলে বিহারকে রঞ্জিতে সুযোগ দেওয়া যেতে পারে বলে মনে করে কমিটি। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত সিওএ-র উপরেই ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

সোমবার প্রায় ঘণ্টা তিনেকের এই বৈঠকে রঞ্জি ট্রফিতে প্রি কোয়ার্টার ফাইনাল রাউন্ড চালু করার প্রস্তাব দেওয়া হয়। সেরা ১৬ দল নিয়ে এই রাউন্ড হতে পারে এই বছর থেকে। এ ছাড়া রঞ্জির আগে জাতীয় ওয়ান ডে টুর্নামেন্ট বিজয় হজারে ট্রফি শেষ করার প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছে। ঘরোয়া ক্রিকেট কোকাবুরা বলে খেলার প্রস্তাব দেওয়া হলেও বোর্ডের ভারপ্রাপ্ত সচিব অমিতাভ চৌধুরি তা কার্যত নাকচ করে দিয়ে বলেন, ‘‘ঘরোয়া ক্রিকেট এসজি বলেই যেমন খেলা হচ্ছিল, তেমনই হবে। এখনই বদলানো যাবে বলে মনে হয় না। বৈঠকেও এটা আলোচনা হয়েছে।’’



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement