×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৯ জুন ২০২১ ই-পেপার

রোনাল্ডো নিয়ে দুই প্রান্তে দুই কোচ

রাস্তায় দেখলে কথা বলবেন না মোরিনহো

নিজস্ব প্রতিবেদন
২০ সেপ্টেম্বর ২০১৪ ০২:৫৬

চেলসি-আর্সেনাল নিয়ে বাগযুদ্ধ থেকে শুরু করে একে অপরের সমালোচনা করা, জনসমক্ষে সব কিছুই করেছেন আর্সেন ওয়েঙ্গার এবং হোসে মোরিনহো। যাঁদের সম্পর্ক ফুটবল বিশ্বের অন্যতম চিরন্তন বিতর্কের বস্তু। ইপিএলের দুই সুপার কোচ আবার নতুন বিতর্কে জড়িয়ে পড়লেন। আর এ বার এই বিতর্কের সঙ্গে জুড়ে গেল আরও এক তারকার নাম। ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো।

এক দিকে আর্সেনাল কোচ সাফ বলে দিলেন, সিআর সেভেনকে সই না করানোর সিদ্ধান্তই তাঁর কোচিং জীবনের সবচেয়ে বড় আক্ষেপ। অন্য দিকে চেলসির ‘বস্’ মোরিনহো তোপ দাগলেন, টিমে রোনাল্ডো ছিলেন তাই রিয়াল মাদ্রিদের কোচ হিসেবে তিনি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিততে পারেননি।

২০০৩-’০৪ মরসুমে রোনাল্ডোর সঙ্গে প্রথম কথা বলেন ওয়েঙ্গার। তরুণ পর্তুগিজ ফুটবলারকে ঘুরিয়ে দেখানো হয় আর্সেনালের তখনকার ঘরের মাঠ হাইবেরি। রোনাল্ডোর জন্য জার্সি নম্বরও ঠিক করে ফেলে আর্সেনাল। কিন্তু সিআর সেভেনের জন্য স্পোর্টিং লিসবনের দাবি করা দাম দিতে নারাজ ছিলেন আর্সেনালের ফরাসি কোচ। পরিস্থিতির ফায়দা তুলে ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড সই করিয়ে ফেলে রোনাল্ডোকে। “আমার কোচিং কেরিয়ারের সবচেয়ে বড় আক্ষেপ রোনাল্ডোকে সই না করানো। আরও খারাপ লাগে এটা ভাবলে যে, ও ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডে সই করল,” এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন ওয়েঙ্গার। এমনকী তিনি এটাও বলেছেন যে, রোনাল্ডোকে ‘হারানোর’ দুঃখ নাকি বার্সেলোনার বিরুদ্ধে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনাল হারার চেয়েও বেশি কষ্টের! মেসি বনাম রোনাল্ডো লড়াইয়েও ওয়েঙ্গারের চোখে এগিয়ে সিআর সেভেন। “মেসি এমন এক কারিগর যে অসম্ভব কিছু জিনিস করতে পারে। কিন্তু রোনাল্ডো টোটাল ফুটবলার।”

Advertisement

মোরিনহো অবশ্য একেবারে অন্য চোখে দেখছেন পর্তুগিজ তারকাকে। রোনাল্ডোর প্রতি হালফিলে বিশেষ ‘স্নেহ’ দেখাননি ‘দ্য স্পেশ্যাল ওয়ান’। প্রাক্তন ছাত্রের দিকে তাঁর নতুন তির, ২০১১-’১২ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সেমিফাইনালে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে নাকি রোনাল্ডোর জন্যই হেরে যায় রিয়াল। মোরিনহো বলেছেন, “খুব খারাপ লাগে ভাবলে যে, তৃতীয় বার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিততে পারলাম না। মনে আছে, বায়ার্নের বিরুদ্ধে টাইব্রেকারে প্রথম পেনাল্টিটা মিস করল রোনাল্ডো। যে কারণে হারতে হল।”

রিয়ালে থাকাকালীন রোনাল্ডো পর্তুগিজ কোচের অন্যতম প্রিয় ছাত্র হলেও মোরিনহো জানিয়ে দিয়েছেন, বর্তমানে কোনও সম্পর্ক নেই দু’জনের মধ্যে। তাঁর সাফ কথা, “আমাদের এমন সম্পর্ক না যে রাস্তায় দেখা হলে দাঁড়িয়ে একে অপরের সঙ্গে কথা বলব। একসঙ্গে সময় কাটানো তো দূরের কথা। রিয়ালে ওর ফর্ম আমাকে সাহায্য করেছিল লা লিগা জিততে। আর আমার ম্যানেজমেন্ট ওকে সাহায্য করেছিল বিশ্বের সেরা ফুটবলার হতে। ব্যস এইটুকুই।”



Advertisement