Advertisement
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
Matthew Wade

ক্যানসারজয়ী ওয়েডের দাপটে বিশ্বকাপে উড়ে গিয়েছিল পাকিস্তান, একই দশা হল ভারতের

অস্ট্রেলিয়ার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে ওঠা হোক বা ভারতের বিরুদ্ধে সিরিজের প্রথম ম্যাচে জয়, সব কিছুর পিছনেই রয়েছে ম্যাথু ওয়েডের ব্যাট। ফিনিশার হিসাবে অস্ট্রেলিয়া দলে নিজেকে প্রমাণ করেছেন তিনি।

চাপ নেওয়ার অভ্যেস আছে ওয়েডের।

চাপ নেওয়ার অভ্যেস আছে ওয়েডের। —ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৭:৫৭
Share: Save:

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে পর পর তিন বলে পাকিস্তানের শাহিন শাহ আফ্রিদিকে তিনটি বিশাল ছক্কা মেরে দলকে ফাইনালে তুলেছিলেন অস্ট্রেলিয়ার উইকেটরক্ষক ম্যাথু ওয়েড। রাতারাতি নায়কের মর্যাদা পেয়েছিলেন। মোহালিতেও দেখা গেল ওয়েডের দাপট। ভারতের দেওয়া ২০৯ রানের বিশাল লক্ষ্য পার করলেন তিনি সহজেই। ২১ বলে ৪২ রান তোলেন ওয়েড।

অস্ট্রেলিয়াকে ম্যাচ জিতিয়ে ওয়েড বলেন, “ওরা আমাকে ইয়র্কার করছিল। আমি সেগুলো সহজেই মাঠের বাইরে পাঠাচ্ছিলাম। এটাই আমার আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দেয়। ভারতের মাঠে বল মাটিতে রেখেও রান পাওয়া সম্ভব। আমি সেই চেষ্টাই করছিলাম। বোলারদের উপর সেটা চাপ বাড়িয়ে দেয়।”

চাপ নেওয়ার অভ্যেস আছে ওয়েডের। ছোটবেলায় ক্যানসার হয়েছিল তাঁর। শারীরিক এবং মানসিক লড়াই করতে হয়েছে তাঁকে। সেই সব কিছুর বিরুদ্ধে জিতে মাঠে ফিরেছেন তিনি।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার তরফে প্রকাশ করা একটি ভিডিয়োতে নিজের ফিরে আসার গল্প বলেন ওয়েড। তিনি বলেন, ‘‘১৬ বছর বয়সে জননেন্দ্রিয়ের ক্যানসারে আক্রান্ত হই। আমি হতাশ হয়ে পড়েছিলাম। কিন্তু সেই সময় আমি এমন কিছু বন্ধু পেয়েছিলাম, যারা বাড়ি থেকে বেরিয়ে খেলার মাঠে যেতে আমাকে উদ্বুদ্ধ করেছিল। ওই পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে সেটা আমাকে খুব সাহায্য করেছিল।’’

তবে সেই সময়টা তাঁর পরিবারের কাছে খুব কঠিন ছিল বলে জানিয়েছেন ওয়েড। তিনি বলেন, ‘‘আমার পরিবার খুব খারাপ সময়ের মধ্যে দিয়ে গিয়েছিল। আমি ছোট ছিলাম বলে বুঝতে পারছিলাম না বাড়িতে কী চলছে। আমার থেকে আমার পরিবারকে বেশি ঝক্কি পোহাতে হয়। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আমরা জিতেছিলাম।’’

ক্যানসারকে হারিয়ে ফের খেলার মাঠে ওয়েডের ফেরার পিছনে তাঁর মায়ের বড় ভূমিকা ছিল বলে জানিয়েছেন বাবা স্কট। তিনি বলেন, ‘‘ম্যাথুর মা হাল ছাড়েনি। ওর সব চুল পড়ে যায়। ওকে টুপি পরিয়ে মাঠে পাঠাত ওর মা। সব সময় ওকে উদ্বুদ্ধ করত।’’

মোহালিতে প্রথমে ব্যাট করে ২০৮ রান তোলে ভারত। সেই লক্ষ্যে অস্ট্রেলিয়া পৌঁছে যায় চার বল বাকি থাকতেই। প্রথম বার ওপেন করতে নেমে ৬১ রান করেন ক্যামেরন গ্রিন। স্টিভ স্মিথ করেন ৩৫ রান। শেষ বেলায় ভুবনেশ্বর কুমারদের বল অনায়াসে বাউন্ডারিতে পাঠিয়ে ম্যাচ অস্ট্রেলিয়াকে ম্যাচ জেতান ওয়েড।

আইপিএলে গুজরাত টাইটান্সের হয়ে খেলেন ওয়েড। হার্দিক পাণ্ড্যর দলে ওপেন করেন তিনি। পাঁচটি ম্যাচ খেলে ১৪৫ রান করেন। স্ট্রাইক রেট ১১৩.৭৬। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ১১ বছরের আন্তর্জাতিক কেরিয়ারে ওয়েডের সংগ্রহ ৪৩৫৩ রান। রয়েছে পাঁচটি শতরান। অর্ধশতরান রয়েছে ১৯টি।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE